প্রধান মেনু খুলুন

নয়াগড় জেলা

ওড়িশার একটি জেলা

নয়াগড় জেলা(ওড়িয়া: ନୟାଗଡ଼ ଜିଲ୍ଲା, প্রতিবর্ণী. নয়াগড় জিল্লা) পূর্ব ভারতে অবস্থিত ওড়িশা রাজ্যের ৩০ টি জেলার একটি জেলা৷ ১৮ই চৈত্র ১৩৯৯ বঙ্গাব্দে(১লা এপ্রিল ১৯৯৩ খ্রিস্টাব্দে) পূর্বতন পুরী জেলা থেকে নতুন নয়াগড় জেলাটি গঠিত হয়৷ জেলাটি ওড়িশার কেন্দ্রীয় ওড়িশা বিভাগের অন্তর্গত৷ জেলাটির জেলাসদর নয়াগড় শহরে অবস্থিত এবং নয়াগড় মহকুমা নিয়ে গঠিত৷

নয়াগড় জেলা
ନୟାଗଡ଼ ଜିଲ୍ଲା
ওড়িশার জেলা
ওড়িশায় নয়াগড়ের অবস্থান
ওড়িশায় নয়াগড়ের অবস্থান
দেশভারত
রাজ্যওড়িশা
প্রশাসনিক বিভাগকেন্দ্রীয় ওড়িশা বিভাগ
সদরদপ্তরনয়া গড়
তহশিল
আয়তন
 • মোট৩৮৯০ কিমি (১৫০০ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট৯,৬২,৭৮৯
 • জনঘনত্ব২৫০/কিমি (৬৪০/বর্গমাইল)
জনতাত্ত্বিক
 • সাক্ষরতা৮০.৪২ শতাংশ
 • লিঙ্গানুপাত৯১৫
গড় বার্ষিক বৃষ্টিপাত১৩৫৪ মিমি
ওয়েবসাইটদাপ্তরিক ওয়েবসাইট

পরিচ্ছেদসমূহ

নামকরণসম্পাদনা

খ্রিস্টীয় ত্রয়োদশ শতকে মধ্যভারত থেকে বাঘেল রাজবংশের রাজা সূর্যমণি পুরী অঞ্চলে এসে নিজের রাজত্ব স্থাপন করেন এবং নিজের নতুন রাজধানী তথা বাসস্থানের নাম দেন নয়াগড়৷[১]

ইতিহাসসম্পাদনা

ভূপ্রকৃৃতিসম্পাদনা

অর্থনীতিসম্পাদনা

অবস্থানসম্পাদনা

জেলাটির উত্তরে ওড়িশা রাজ্যের অনুগুল জেলাজেলাটির উত্তর পূর্বে(ঈশান) ওড়িশা রাজ্যের কটক জেলাজেলাটির পূর্বে ওড়িশা রাজ্যের খোর্দ্ধা জেলাজেলাটির দক্ষিণ পূর্বে(অগ্নি) ওড়িশা রাজ্যের খোর্দ্ধা জেলাজেলাটির দক্ষিণে ওড়িশা রাজ্যের খোর্দ্ধা জেলাজেলাটির দক্ষিণ পশ্চিমে(নৈঋত) ওড়িশা রাজ্যের গঞ্জাম জেলাজেলাটির পশ্চিমে ওড়িশা রাজ্যের কন্ধমাল জেলাজেলাটির উত্তর পশ্চিমে(বায়ু) ওড়িশা রাজ্যের বৌধ জেলা[২]

জেলাটির আয়তন ৩৮৯০ বর্গ কিমি৷ রাজ্যের জেলায়তনভিত্তিক ক্রমাঙ্ক ৩০ টি জেলার মধ্যে তম৷ জেলার আয়তনের অনুপাত ওড়িশা রাজ্যের ২.৫০%৷

ভাষাসম্পাদনা

নয়াগড় জেলায় প্রচলিত ভাষাসমূহের পাইচিত্র তালিকা নিম্নরূপ -

২০১১ অনুযায়ী নয়াগড় জেলার ভাষাসমূহ[৩]

  ওড়িয়া (৯৯.০৯%)
  কুই (০.৬০%)
  অন্যান্য (০.৩১%)

ধর্মসম্পাদনা

জনসংখ্যার উপাত্তসম্পাদনা

মোট জনসংখ্যা ৮৬৪৫১৬(২০০১ জনগণনা) ও ৯৬২৭৮৯(২০১১ জনগণনা)৷ রাজ্যে জনসংখ্যাভিত্তিক ক্রমাঙ্ক ৩০ টি জেলার মধ্যে ২২তম৷ ওড়িশা রাজ্যের ২.২৯% লোক নয়াগড় জেলাতে বাস করেন৷ জেলার জনঘনত্ব ২০০১ সালে ২২২ ছিলো এবং ২০১১ সালে তা বৃদ্ধি পেয়ে ২৪৮ হয়েছে৷ জেলাটির ২০০১-২০১১ সালের মধ্যে জনসংখ্যা বৃৃদ্ধির হার ১১.৩৭% , যা ১৯৯১-২০১১ সালের ১০.৪৬% বৃদ্ধির হারের থেকে বেশি৷ জেলাটিতে লিঙ্গানুপাত ২০১১ অনুযায়ী ৯১৫(সমগ্র) এবং শিশু(০-৬ বৎ) লিঙ্গানুপাত ৮৫৫৷[৪]

নদনদীসম্পাদনা

পরিবহন ও যোগাযোগসম্পাদনা

পর্যটন ও দর্শনীয় স্থানসম্পাদনা

ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিসম্পাদনা

শিক্ষাসম্পাদনা

জেলাটির স্বাক্ষরতা হার ৭০.৫২%(২০০১) তথা ৮০.৪২%(২০১১)৷ পুরুষ স্বাক্ষরতার হার ৮২.৬৬%(২০০১) তথা ৮৮.১৬%(২০১১)৷ নারী স্বাক্ষরতার হার ৫৭.৬৪%(২০০১) তথা ৭২.০৫% (২০১১)৷ জেলাটিতে শিশুর অনুপাত সমগ্র জনসংখ্যার ১১.১০%৷[৪]

প্রশাসনিক বিভাগসম্পাদনা

সীমান্তসম্পাদনা

বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা