নব্যমানবতাবাদ

নব্যমানবতাবাদ অথবা নব্য-মানবতাবাদ (ইংরেজি: Neohumanism) হল প্রভাতরঞ্জন সরকার কর্ত্তৃক প্রদত্ত একটি সামাজিক দর্শন। এটির মূল উৎস হচ্ছে ১৯৮২ সালে প্রকাশিত তাঁর গ্রন্থ "বুুদ্ধির মুুক্তি–নব্যমানবতাবাদ"। এই ধারণা মানবতাবাদকে বিশ্লেষণ করে নব আঙ্গিকে একে তুলে ধরেছে। এর মূল বিষয়বস্তু হল বিশ্বৈকতাবাদ বা বিশ্বভ্রাতৃত্ববোধ। নব্যমানবতাবাদের সমর্থকদের "নব্যমানবতাবাদী" বলা হয়।[১][২][৩][৪][৫][৬]

নব্য-মানবতাবাদ

মূল ধারণাসম্পাদনা

মানবতাবাদে মানবজাতির উন্নতির কথা বলা হয়েছে। কিন্তু, নব্যমানবতাবাদে মানুষ-সহ পশু, পাখি, তরুলতা তথা এ বিশ্বের সমস্ত প্রাণিন ও অপ্রাণিন সত্তার মেলবন্ধন ও উন্নতির কথা বলা হয়েছে। এটি আধ্যাত্মিকতা, সামাজিকীকরণ ও বিশ্বভ্রাতৃত্ববোধের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্কের কথা উত্থাপন করে এবং ভাবজড়তা, শোষণ, অপসংস্কৃতি ইত্যাদির সমালোচনা করে। প্রগতিশীল ব্যবহারিক তত্ত্ব তথা প্রাউটের সঙ্গে নব্যমানবতাবাদের মৌলিক সম্পর্ক রয়েছে। প্রভাতরঞ্জন বলেছেন– প্রাউট সমস্ত বৈষম্য ও কৃত্রিম বিভেদ দূর করতে প্রেরণা ও শক্তি দেবে। প্রাউট নব্যমানবতাবাদ থেকে – নব্যমানবিক প্রেরণা থেকে, নব্যমানবীয় ভাবাদর্শ থেকে ও নব্যমানবিক চিন্তাধারা থেকে এগিয়ে চলার প্রেরণা ও প্রত্যয় পাবে। আনন্দমার্গের বিভিন্ন কর্মযজ্ঞে এর প্রভাব রয়েছে।[১][২][৪][৫][৭]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "neohumanism"Applied Sentience (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৭-২১ 
  2. Neo-humanism, Globalization And World Futures, New Renaissance: A Journal for Social and Spiritual Awakening, Albania.
  3. "Gurus of India"www.gurusofindia.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৭-২১ 
  4. "Ananda Marga's Tantric Neo-Humanism"Oxford Reference (ইংরেজি ভাষায়)। ডিওআই:10.1093/oi/authority.20110803095410743। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৭-২১ 
  5. Noble, Barnes &। "Sarkar, you can not be forgotten. The life and work of Prabhat Ranjan Sarkar|NOOK Book"Barnes & Noble (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৭-২২ 
  6. নব্যমানবতাবাদ ও বাংলা ছোটগল্প, সুুুকুমার সরকার ও বীরেশ্বর মাইতি, ২০১৪, নিউ পাবলিকেশনস্। আইএসবিএন 81-929523-2-0
  7. "প্রাউট ও নব্যমানবতাবাদ | নোতুন পৃথিবী"notunprithivi.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৭-২১ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা