দেবদাস (১৯৩৫-এর চলচ্চিত্র)

১৯৩৫ চলচ্চিত্র

দেবদাস প্রমথেশ বড়ুয়া পরিচালিত ১৯৩৫ সালের বাংলা ভাষার ভারতীয় চলচ্চিত্র। অপরাজেয় কথাশিল্পী শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় রচিত দেবদাস উপন্যাস অবলম্বনে ছবিটির চিত্রনাট্য রচনা করেছেন প্রমথেশ বড়ুয়া। এতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন প্রমথেশ বড়ুয়া, পার্বতী চরিত্রে অভিনয় করেছেন যমুনা বড়ুয়া এবং চন্দ্রমুখী চরিত্রে অভিনয় করেছেন চন্দ্রাবতী দেবী। পরবর্তীতে ছবিটি ১৯৩৬ সালে হিন্দি ভাষায় এবং ১৯৩৮ সালে অসমীয়া ভাষায় মুক্তি পায়।

দেবদাস
Devdas booklet cover - Bengali version of Devdas (1935).jpg
দেবদাস ছবির বুকলেট কভার
পরিচালকপ্রমথেশ বড়ুয়া
চিত্রনাট্যকারপ্রমথেশ বড়ুয়া
উৎসশরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় কর্তৃক 
দেবদাস
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারতিমির বরণ
রাইচন্দ বড়াল
পঙ্কজ মালিক
চিত্রগ্রাহকদিলীপ গুপ্ত
সুধীন মজুমদার
ইউসুফ মুলজি
নিতিন বসু
সম্পাদকসুবোধ মিত্র
প্রযোজনা
কোম্পানি
পরিবেশকঅরোরা ফিল্ম কর্পোরেশন
মুক্তি৩০ মার্চ ১৯৩৫[১]
দৈর্ঘ্য১৪১ মিনিট
দেশভারত
ভাষাবাংলা

বাংলা সংস্করণের সকল ভারতীয় প্রিন্ট কলকাতার নিউ থিয়েটারে আগুন লেগে ধ্বংস হয়ে যায়। বর্তমানে বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভে ছবিটির একমাত্র কপিটি রয়েছে। সেই কপিটিরও ৪০ ভাগের মত নষ্ট হয়ে গেছে।[২]

কাহিনী সংক্ষেপসম্পাদনা

জমিদার নারায়ণ মুখার্জির পুত্র দেবদাস সোনার চামচ মুখে নিয়ে জন্মগ্রহণ করে। সে তাজ সোনাপুর গ্রামে বেড়ে ওঠে এবং তার শৈশব কাটে তার খেলার সাথী প্রতিবেশী পারুর সাথে। ছেলেবেলা থেকে তারা তাদের সামাজিক অবস্থানের বিপরীতে গিয়ে নিজেদের মধ্যে এক সম্পর্ক স্থাপন করে। ধীরে ধীরে তা প্রেমের রূপ ধারণ করলেও কেউ কাউকে তা বলে না। কিন্তু দেবদাসকে তার পরিবার তার পড়াশুনার জন্য কলকাতা পাঠিয়ে দিলে পারুর পৃথিবী তোলপাড় করে তার দেবদাসের জন্য এবং দেবদাসের দ্রুত ফিরে আসার জন্য সে দিয়া জ্বালিয়ে অপেক্ষা করে। বছর খানেক পরে দেবদাস গ্রামে আসে এবং সেও পারুকে আপন করে পেতে চায়। কিন্তু দেবদাসের বাবা পারুর মা সুমিত্রার প্রস্তাব ফিরিয়ে দেয়। ফলে দুই পরিবারের মধ্যে সম্পর্কের ঠানাপোড়েন দেখা দেয়। দেবদাস তার বাবাকে বুঝাতে চেষ্টা করে কিন্তু তার বাবাই তার প্রেমের পথে বড় বাধা হয়ে দাঁড়ায়।

দেবদাস ফিরে যায় এবং পারুকে চিঠি জানিয়ে দেয় তাকে ক্ষমা করে দেওয়ার জন্য। পারুর পরিবার পারুকে তার থেকে বয়সে অনেক বড় জমিদার ভুবনের সাথে বিয়ে দেয়। অন্যদিকে, তার বন্ধু চুনীলালের পাল্লায় পড়ে দেবদাস মদ আর চন্দ্রমুখীতে আসক্ত হয়ে পড়ে। সুন্দরী নর্তকী চন্দ্রমুখীও দেবদাসকে পছন্দ করে। তাদের মধ্যে এক অদ্ভুত সম্পর্কের সৃষ্টি হয়। দেবদাস মন খুলে পারুর জন্য তার কষ্টের কথা চন্দ্রমুখীকে বলে। পারু তার সংসারিক কর্তব্য পালনে মনোযোগী হয়ে পড়ে, কিন্তু দেবদাসকে এক মুহূর্তের জন্যও ভুলতে পারে না। দেবদাসের ভাগ্যে অন্য কিছু লেখা ছিল। দু'জন নারী প্রেম পাওয়া সত্ত্বেও কেউ তার নয়। একজনকে সে কখনো ভালবাসতে পারবে না আর একজনকে সে কখনো ভালো না বেসে থাকতে পারবে না।

কুশীলবসম্পাদনা

 
প্রমথেশ বড়ুয়া ও যমুনা বড়ুয়া
 
প্রমথেশ বড়ুয়া ও যমুনা বড়ুয়া
 
প্রমথেশ বড়ুয়া, অমর মালিক ও চন্দ্রাবতী

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Sur, Ansu (১৯৯৮)। Ansu Sur, সম্পাদক। Bengali film directory। Nandan, Calcutta। পৃষ্ঠা 319। 
  2. Kazmi, Nikhat (২০০২-১০-০৩)। "Original Devdas belongs to Bangladesh" (ইংরেজি ভাষায়)। দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা