প্রধান মেনু খুলুন

দুধকুমার নদী

বাংলাদেশের নদী

দুধকুমার নদী বাংলাদেশ-ভারতের একটি আন্তঃসীমান্ত নদী[১] নদীটির দৈর্ঘ্য ১৬ কিলোমিটার, গড় প্রস্থ ২৪ মিটার এবং নদীটির প্রকৃতি সর্পিলাকার। বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড বা "পাউবো" কর্তৃক দুধকুমার নদীর প্রদত্ত পরিচিতি নম্বর উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের নদী নং ৫৭।[২] ভারতের পশ্চিমবঙ্গ থেকে আগত রায়ডাক নদী বা সঙ্কোশ নদী পাটেশ্বরীর কাছে দুধকুমার নাম ধারণ করেছে। বাংলাদেশের একেবারে উত্তর সীমানার নদী দুধকুমার।[৩]

দুধকুমার নদী
দেশসমূহ বাংলাদেশ, ভারত
অঞ্চলসমূহ রাজশাহী বিভাগ, জলপাইগুড়ি বিভাগ
জেলাসমূহ জলপাইগুড়ি জেলা, কুড়িগ্রাম জেলা
উত্স রায়ডাক নদী
মোহনা ব্রহ্মপুত্র
দৈর্ঘ্য ৬৫ কিলোমিটার (৪০ মাইল)

উৎপত্তি ও প্রবাহসম্পাদনা

দুধকুমার নদীর জন্ম মুলত ভারতের সিকিম রাজ্যে। তিস্তা নদীর সমান্তরালে উত্তরমুখী হয়ে ধরলা ও দুধকুমার নদী দুটি মিলিতভাবে বয়ে গেছে। রংপুরে নীলকুমার নামে একটি নদী এর সাথে মিশেছে। নদীটি পাটেশ্বরীতে গদাধরগঙ্গাধর নদী দুটিকে উপনদী হিসেবে গ্রহণ করে আঁকাবাঁকা পথে প্রায় ৫২ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে ব্রহ্মপুত্রের সাথে মিলিত হয়েছে।[৩]

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "আন্তঃসীমান্ত_নদী"বাংলাপিডিয়া। ১৬ জুন ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জুন ২০১৪ 
  2. মানিক মোহাম্মদ রাজ্জাক (ফেব্রুয়ারি ২০১৫)। "উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের নদী"। বাংলাদেশের নদনদী: বর্তমান গতিপ্রকৃতি (প্রথম সংস্করণ)। ঢাকা: কথাপ্রকাশ। পৃষ্ঠা ১২৬। আইএসবিএন 984-70120-0436-4 
  3. ড. অশোক বিশ্বাস, বাংলাদেশের নদীকোষ, গতিধারা, ঢাকা, ফেব্রুয়ারি ২০১১, পৃষ্ঠ্তি.১৯৫।