দি ইনক্রেডিবল হাল্ক (চলচ্চিত্র)

দি ইনক্রেডিবল হাল্ক (ইংরেজি: The Incredible Hulk) ২০০৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত আমেরিকান সুপারহিরো চলচ্চিত্র মার্ভেল কমিক্সের হাল্ক চরিত্রের উপর ভিত্তি করে নির্মিত একটি চলচ্চিত্র। চলচ্চিত্রটি প্রযোজনা করেছে মার্ভেল স্টুডিওজ এবং পরিবেশক ছিলোইউনিভার্সাল পিকচার্স। এটি মার্ভেল সিনেম্যাটিক ইউনিভার্স (এমসিইউ)-এর দ্বিতীয় চলচ্চিত্র। চিত্রনাট্যকার জ্যাক পেনের এ চলচ্চিত্রটি পরিচালনা করেছেন লুইস লেটারিয়ার। এতে ব্রুস ব্যানার চরিত্রে অভিনয় করেছেন এডওয়ার্ড নর্টনএবং অন্যান্য চরিত্রে ছিলেন লিভ টাইলার, টিম রথ, টিম ব্লেক নেলসন, টাই বারেল এবং উইলিয়াম হার্ট

দি ইনক্রেডিবল হাল্ক
প্রেক্ষাগৃহে মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্রের পোস্টার
পরিচালকলুইস লেটারিয়ার
প্রযোজক
রচয়িতাজাক পেন
উৎসস্ট্যান লি
জ্যাক কিরবি কর্তৃক 
হাল্ক
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারক্রেইগ আর্মস্ট্রং
চিত্রগ্রাহকপিটার মেনজিস জুনিয়র
সম্পাদক
প্রযোজনা
কোম্পানি
পরিবেশকইউনিভার্সাল পিকচার্স
মুক্তি
স্থিতিকাল১১২ মিনিট
দেশমার্কিন যুক্তরাষ্ট্র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
ভাষাইংরেজি
নির্মাণব্যয়$১৫০ মিলিয়ন[১]
আয়$২৬৪.৮ মিলিয়ন[২]
মার্ভেল সিনেম্যাটিক ইউনিভার্সের
পর্যায়সমূহ


পটভূমি সম্পাদনা

ভার্জিনিয়ার কুলভার বিশ্ববিদ্যালয়ে, জেনারেল থাডিয়াস থান্ডারবোল্ট রস তাঁর কন্যা বেটির সহকর্মী ও প্রেমিক ড. ব্রুস ব্যানারের সাথে গবেষণার বিষয়ে সাক্ষাত করার সময় রস দাবি করেছে যে, মানুষকে গামা বিকিরণের প্রতিরোধ করা সম্ভব। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের "সুপার সৈনিক" প্রোগ্রামের পরীক্ষা-নিরীক্ষা যা রস পুনর্নির্মাণের আশা করেছিল তা ব্যর্থ হয়। গামা বিকিরণের সংস্পর্শের ফলে ব্যানার সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্য হাল্কে রূপান্তরিত হয়। ব্রুস ব্যানারের হার্টের হার প্রতি মিনিটে 200 এর উপরে উঠে গেলে হাল্কে পরিণত হয়। হাল্ক ল্যাব এবং ল্যাব ধ্বংস করে দেয়, ল্যাবের ভিতরে বেশ কয়েকজনকে হত্যা করে। জেনারেল এবং বেটি সহ অন্যান্যদের সাথে আহত হয়। ব্যানার মার্কিন সামরিক বাহিনী এবং বিশেষত রসের কাছ থেকে পলাতক হয়ে ওঠেন, যিনি হাল্ককে অস্ত্র প্রয়োগ করতে চান।

পাঁচ বছর পর, ব্যানার তার গামা রেডিয়েশনের অবস্থার নিরাময়ের সন্ধান করার সময় ব্রাজিলের রিও ডি জেনিরোর রোসিনহাতে একটি বোতলজাত কারখানায় কাজ করে। ছদ্মনামে ইন্টারনেটে মিস্টার ব্লু নামে পরিচিত একজন সহকর্মীর সাথে কাজ করা শুরু করে। গামা রেডিয়েশন নিয়ন্ত্রণ রাখার জন্য ব্রুস ব্যানার যোগ ব্যায়াম (ইয়োগা) শিখছে, ফলস্বরূপ পাঁচ মাসেও সে হাল্কে রূপান্তরিত হয়নি। বোতলজাত কারখানায় ব্যানার তার আঙুল কেটে ফেলার পরে, তার রক্তের একটি ফোঁটা একটি বোতলে পড়ে যায়, যার ফলে মিলওয়াকি, উইসকনসিন নামে একজন বয়স্ক ভোক্তা গামা রেডিয়েশনে আক্রান্ত হয়। ব্যানার ট্র্যাক করার জন্য বোতলটি ব্যবহার করে। জেনারেল রস ব্রুসকে ধরার জন্য এমিল ব্লনস্কির নেতৃত্বে একটি বিশেষ বাহিনীর দল পাঠায়। ব্যানার হাল্কে রূপান্তরিত হয় এবং ব্লনস্কির দলকে পরাজিত করে, তবে ব্লনস্কি বেঁচে যায়। ব্যানার কিভাবে হাল্ক হয়ে ওঠে জেনারেল রস তা ব্যাখ্যা করার পরে, এমিল ব্লনস্কি অল্প পরিমাণে অনুরূপ সিরাম ইনজেকশন দিতে সম্মত হন, যা তাকে উন্নত গতি, শক্তি, তৎপরতা এবং নিরাময় ক্ষমতা দেয় কিন্তু তার কঙ্কালকে বিকৃত করতে শুরু করে, যা তার বুদ্ধিকে দুর্বল করে তোলে।

ব্যানার কালভার বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিরে আসে এবং বেটির সাথে পুনরায় দেখা হয়। ব্যানার দ্বিতীয়বার জেনারেল রস এবং ব্লনস্কির বাহিনী দ্বারা আক্রমণের শিকার হয়। বেটির সন্দেহভাজন প্রেমিক লিওনার্ড স্যামসন দ্বারা ইঙ্গিত দেওয়া হয়, যার ফলে ব্যানার আবার হাল্কে রূপান্তরিত হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরের পরবর্তী যুদ্ধ জেনারেল রসের বাহিনীর জন্য নিরর্থক প্রমাণিত হয় এবং তারা পিছু হটে, যদিও এমিল ব্লনস্কি, যার বিবেক-বুদ্ধি লোপ পেয়েছে, হাল্ককে আক্রমণ করে এবং উপহাস করে। হাল্ক এমিল ব্লনস্কিকে মারাত্মকভাবে আহত করে এবং বেটির সাথে পালিয়ে যায়। হাল্ক ব্যানারে রূপান্তর হওয়ার পরে, সে এবং বেটি দৌড়ে গিয়ে মিস্টার ব্লু এর সাথে যোগাযোগ করে, যিনি তাদের নিউ ইয়র্ক সিটিতে তার সাথে দেখা করার জন্য অনুরোধ করেন। মিস্টার ব্লু আসলে সেলুলার বায়োলজিস্ট ড. স্যামুয়েল স্টারন্স। তিনি ব্যানারকে বলেন যে, সে ব্যানারের অবস্থার একটি সম্ভাব্য প্রতিষেধক তৈরি করেছে। একটি সফল পরীক্ষার পরে, তিনি ব্যানারকে সতর্ক করেন যে, প্রতিষেধক শুধু প্রতিটি রূপান্তরকে বিপরীত করতে পারে। স্টার্নস প্রকাশ করেছেন যে, তিনি ব্যানারের রক্তের নমুনাগুলিকে সংশ্লেষিত করেছেন, যা ব্যানার ব্রাজিল থেকে একটি বড় সরবরাহে পাঠিয়েছিল, ওষুধে তার সীমাহীন সম্ভাবনা প্রয়োগ করার জন্য। হাল্কের ক্ষমতা সামরিক বাহিনীর হাতে পড়ার ভয়ে, ব্যানার রক্ত সরবরাহকে ধ্বংস করতে চায়।

কিছুটা সুস্থ হওয়ার পর এমিল ব্লনস্কি ব্যানারকে জেলখানায় আনার তৃতীয় প্রচেষ্টার জন্য জেনারেল রসের বাহিনীতে যোগ দেয়। তারা সফল হয়, এবং ব্যানার এবং বেটিকে একটি হেলিকপ্টারে নিয়ে যাওয়া হয়। এমিল ব্লনস্কি পিছনে দাঁড়িয়ে থাকে আর স্টারন্সকে ব্যানারের রক্ত তার নিজের শরীরে ইনজেকশন দেওয়ার নির্দেশ দেয়, কারণ এমিল ব্লনস্কি হাল্কের ক্ষমতার লোভ করে। ইনজেকশন দেওয়ার ফলে ব্লনস্কি দ্য অ্যাবোমিনেশন এ রূপান্তরিত হয়, যা হাল্কের চেয়েও বৃহৎ আকার এবং অধিক শক্তিশালী একটি প্রাণী। এমিল ব্লনস্কি স্টারন্সকে আক্রমণ করেন, যিনি তার কপালে কাটা অবস্থায় ব্যানারের কিছু রক্ত দেখতে পান, যার ফলে তিনিও পরিবর্তিত হতে শুরু করেন। দ্য অ্যাবোমিনেশন হারলেম এলাকাটিকে যুদ্ধের মাঠ বানিয়ে ফেলে। ব্যানার বুঝতে পারে যে, হাল্কই কেবল অ্যাবোমিনেশনকে থামাতে পারবে। তাই ব্যানার জেনারেল রসকে বোঝায় যে, তাকে যেনো ছেড়ে দেওয়া হয়। ব্রুস ব্যানার জেনারেল রসের হেলিকপ্টার থেকে লাফ দেয় আর মাটিতে আঘাত করার পর হাল্কে রূপান্তরিত হয়। হারলেম এলাকা জুড়ে একটি ভয়ংকর যুদ্ধের পর, হাল্ক অ্যাবোমিনেশনকে একটি শিকল দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করার চেষ্টা করে। হাল্ক অ্যাবোমিনেশনকে পরাজিত করে, কিন্তু বেটির আবেদন শুনে তার জীবন রক্ষা করে এবং অ্যাবোমিনশনকে জেনারেল রস ও তার বাহিনীর কাছে ছেড়ে দেয় গ্রেপ্তার করার জন্য। বেটির সাথে কিছু মুহূর্ত থাকার পর, হাল্ক নিউ ইয়র্ক থেকে লম্বা লম্বা লাফ দিয়ে চলে যায়।

এক মাস পরে দেখা যায়, ব্যানার এখন ব্রিটিশ কলাম্বিয়ায় থাকে। হাল্কে রূপান্তর হওয়া দমন করার পরিবর্তে, সে এখন হালকা হাসি দিয়ে নিয়ন্ত্রিত পদ্ধতিতে হাল্কে রূপান্তর হতে চেষ্টা করে। পরে দেখা যায়, টনি স্টার্ক একটি স্থানীয় বারে জেনারেল রসের কাছে যান এবং তাকে জানান যে একটি দলকে (অ্যাভেঞ্জার্স) একত্রিত করা হচ্ছে।

অভিনয়ে সম্পাদনা

কালভার ইউনিভার্সিটির একজন পারমাণবিক পদার্থবিজ্ঞানী এবং জৈব রসায়নবিদ। যিনি গামা বিকিরণের সংস্পর্শে আসার কারণে, রাগান্বিত বা উত্তেজিত হলে একটি বিশাল সবুজ মানুষ আকৃতির দৈত্যে রূপান্তরিত হন।

একজন সেলুলার বায়োলজিস্ট এবং ব্রুসের প্রাক্তন বান্ধবী, ব্রুসের দৈত্যে অবস্থার কারণে আলাদা হয়ে গেছেন।

বেটি রসের বাবা এবং একজন মার্কিন সেনা জেনারেল যিনি হাল্ককে বন্দী করার জন্য নিজেকে উৎসর্গ করেছেন।

  • টিম রথ এমিল ব্লনস্কি (দ্য অ্যাবোমিনেশন) চরিত্রে অভিনয় করেন।

যুক্তরাজ্যের রয়্যাল মেরিনস কমান্ডোসে একজন রাশিয়ান বংশোদ্ভূত অফিসার। যিনি হাল্কের ক্ষমতার লালসায় বিভিন্ন সিরাম দিয়ে ইনজেকশন দেন যা তাকে হাল্কের মতো শক্তিশালী মানুষ আকৃতির দৈত্যে রূপান্তরিত করে।

সেলুলার জীববিজ্ঞানী যিনি ব্যানারের অবস্থার একটি সম্ভাব্য প্রতিষেধক তৈরি করেন। চলচ্চিত্রের শেষের দিকে, স্টারন্স এমন কিছু পদার্থের সংস্পর্শে আসে যা তাকে লিডারে রূপান্তর শুরু করে।

  • টাই বারেল লিওনার্ড স্যামসন চরিত্রে অভিনয় করেন।

পেশায় একজন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ। বেটি রস ব্রুস ব্যানারের অনুপস্থিতিতে লিওনার্ড স্যামসনের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছিল।

ভবিষ্যৎ সম্পাদনা

এডওয়ার্ড নর্টন এর পরিবর্তে মার্ক রাফালো ব্রুস ব্যানার (হাল্ক) চরিত্রে দি অ্যাভেঞ্জার্স (২০১২) সিনেমায় অ্যাভেঞ্জার্সে যুক্ত হয়।

বিশেষ প্রত্যাবর্তন সম্পাদনা

"হোয়াট ইফ... দ্য ওয়ার্ল্ড লস্ট ইটস মাইটিয়েস্ট হিরোস?", এমসিইউ অ্যানিমেটেড টেলিভিশন সিরিজ হোয়াট ইফ…? এর ১ম কিস্তির তৃতীয় পর্ব (২৫ আগস্ট,২০২১ সালে পর্বটি মুক্তি পায়) যা এই ছবির কিছু ঘটনাকে আবার নতুন করে কল্পনা করায়।

আরও দেখুন সম্পাদনা

তথ্যসূত্র সম্পাদনা

  1. Friedman, Josh (জুন ১৩, ২০০৮)। "New 'Hulk' may be bigger than old one"Los Angeles Times। ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১, ২০০৮ 
  2. "The Incredible Hulk"Box Office Mojo। ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ১৭, ২০০৮ 

বহিঃসংযোগ সম্পাদনা