দানিয়েল (হিব্রু ভাষায়: דָּנִיֵּאלDāniyyēl; গ্রিক: Δανιήλ Daniḗl; আরবি: دانیال‎‎ Dānyāl) হলেন বাইবেলীয় দানিয়েলের পুস্তকের নায়ক বা কেন্দ্রীয় চরিত্র।[১] যিরূশালেমের সম্ভ্রান্ত যুবক দানিয়েলকে বাবিলের রাজা নবূখদ্‌নিৎসর বন্দী করে নিয়ে যায় এবং পারস্য সম্রাট সাইরাস কর্তৃক বাবিলজয়ের পূর্ব পর্যন্ত তিনি তাঁর সামর্থ্য ও সক্ষমতা অনুযায়ী রাজা ও তার উত্তরসূরীদের সেবা করে যান এবং ইস্রায়েলীয় ঈশ্বরের প্রতি অটল থাকেন।[২] আধুনিক পণ্ডিতদের মতে দানিয়েলের কোনও ঐতিহাসিক অস্তিত্ব নেই এবং দানিয়েলের পুস্তক খ্রিষ্টপূর্ব ২য় শতাব্দীর হেলেনীয় রাজা ৪র্থ আন্তিয়খুস এপিফানেসের রাজত্বের প্রতি এক গুপ্ত ইশারা।[৩][১]

দানিয়েল
Daniellion.jpg
ব্রিতঁ রিভিয়েরের আঁকা রাজার নিকট দানিয়েলের উত্তর
ভাববাদী, নবী
সম্মানিত
প্রধান মঠদানিয়েলের সমাধি, সুসা, ইরান
উৎসব২১ জুলাই: রোমান ক্যাথলিকবাদ
১৭ ডিসেম্বর: গ্রীক অর্থডক্সি
গুণাবলীসিংহের গুহায় প্রায়শ চিত্রিত করা হয়
ঐতিহ্য / ধরণখ্রিষ্টপূর্ব ৬ষ্ঠ শতাব্দী

ছ’টি শহর দানিয়েলের সমাধির দাবি করে থাকে যার মধ্যে দক্ষিণ ইরানের সুসা শহরের শুশ-এ দানিয়াল সর্বাপেক্ষা উল্লেখযোগ্য।[৪] ইহুদিধর্মে তিনি নবী নন,[৫] তবে রাব্বাইগণ তাঁকে বাবিলীয় বিস্ফূরণের সবচেয়ে স্বতন্ত্র সদস্য হিসেবে মূল্যায়ন করেন যিনি ধার্মিকতা ও সৎকাজে অতুলনীয়, ধ্বংসকামী শত্রুদের দ্বারা ঘিরে থাকা সত্ত্বেও আইনের প্রতি দৃঢ় অনুগত; এবং প্রাথমিক কয়েক শতাব্দীতে তারা দানিয়েলকে কেন্দ্র করে বহু কিংবদন্তি রচনা করেন।[৬] বিভিন্ন খ্রিষ্টান মণ্ডলী দানিয়েলকে ভাববাদী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়। পবিত্র কোরআনে উল্লেখ না থাকলেও ইসলামি সূত্রমতে হজরত দানিয়াল (আ). একজন নবী হিসেবে স্বীকৃত।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Noegel ও Wheeler 2002, পৃ. 74।
  2. Redditt 2008, পৃ. 181–82।
  3. Collins 1999, পৃ. 219।
  4. Gottheil ও König 1906
  5. Noegel ও Wheeler 2002, পৃ. 76।
  6. Ginzberg 1998, পৃ. 326।