জামিয়া নঈমীয়া মুরাদাবাদ

জামিয়া নঈমীয়া মুরাদাবাদ (উর্দু: جامعہ نعیمیہ مراد آباد‎‎, হিন্দি: जामिया नईमिया मुरादाबाद) ভারতের আহলে সুন্নাত মুসলমানদের একটি ইসলামি মাদ্রাসা। এটি উত্তরাঞ্চলের রাজ্য উত্তর প্রদেশের মুরাদাবাদে অবস্থিত।[১][২]"ভারতে ওহাবীবাদ" এর ক্ষতিকারক প্রসারের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য এটি একটি স্পষ্ট উদ্দেশ্য নিয়ে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। [৩]

জামিয়া নঈমীয়া মুরাদাবাদ
ধরনইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়
সভাপতিসৈয়দ মেহমুদ আশরাফ আশরাফী
শিক্ষার্থী১০০০+ (আনুমানিক)
অবস্থান, ,
ওয়েবসাইটjamianaimia.com

ইতিহাসসম্পাদনা

এটি মুরাদাবাদ শহরে মাদ্রাসা হিসাবে শুরু হয়েছিল। সুন্নি ইসলামী পণ্ডিত নঈম উদ্দিন মুরাদবাদীর নামানুসারে এর নামকরণ করা হয়েছিল 'নঈমীয়া'। এটি সুন্নি সুফি আন্দোলনের বেশ কয়েকজন শীর্ষস্থানীয় ওলামায়ে তৈরি করেছে।[৪]

১৯২৫ সালে (১৩৩৪ হি), জামিয়া নঈমীয়া মুরাদাবাদে নিখিল ভারত সুন্নি সম্মেলনের প্রথম শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল, যার লক্ষ্য ছিল একক রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক এবং সামাজিক-ধর্মীয় প্ল্যাটফর্মের অধীনে "সুন্নি সংখ্যাগরিষ্ঠ" একীকরণ অন্তর্ভুক্ত। এতে প্রায় আড়াই শতাধিক ধর্মীয় পণ্ডিত উপস্থিত ছিলেন। [৫]

কোর্সসম্পাদনা

  • আলিম
  • ফাযিল
  • মৌলভী

ফাতওয়াসম্পাদনা

সমাজবাদী পার্টির নেতা আজম খানের বিরুদ্ধে গরিবদের কাছ থেকে জোর করে কবরস্থানের জমি এবং অন্যান্য সম্পত্তি জমি ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগে একটি ফতোয়া জারি করা হয়েছিল। মুফতি মুহিব্বে আলী নঈমী, ফতোয়াটি জারি করেন।[৬]

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "JAMIA NAIMIA"jamianaimia.com। ১৩ আগস্ট ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জুন ২০২০ 
  2. Ali Riaz (৩ সেপ্টেম্বর ২০০৮)। Faithful Education: Madrassahs in South Asia। রুটগার্স বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস। আইএসবিএন 978-0-8135-4562-2 
  3. Jackson, William Kesler, "A Subcontinent's Sunni Schism: The Deobandi-Barelvi Rivalry and the Creation of Modern South Asia" (2013). History - Dissertations.page 152. https://surface.syr.edu/hst_etd/102
  4. Sanyal, Usha (২০০৮)। "Ahl-i Sunnat Madrasas: the Madrasa Manzar-i Islam, Bareilly, and Jamia Ashrafiyya, Mubarakpur"। Jamal, Malik। Madrasas in South Asia: Teaching terror?রুটলেজ। পৃষ্ঠা ২৩–৪৪। 
  5. জ্যাকসন, উইলিয়াম ক্যাসলার (২০১৩), পৃষ্ঠা ১৯১
  6. "आजम खान के खिलाफ जारी हुआ फतवा, जानिए क्या है मामला?"প্রভাত খবর - হিন্দি সংবাদ। ১ জুলাই ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জুন ২০২০ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা