গিজনের কলঙ্ক

১৯৮২ ফিফা বিশ্বকাপের ম্যাচ

"গিজনের কলঙ্ক" হলো ১৯৮২ ফিফা বিশ্বকাপের একটি ফুটবল ম্যাচের নাম যা ১৯৮২ সালের ২৫ জুন গিজনে অবস্থিত এল মলিনন স্টেডিয়ামে পশ্চিম জার্মানি এবং অস্ট্রিয়ার মধ্যে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। ম্যাচটি ছিল প্রথম রাউন্ডের গ্রুপ ২–এর ষষ্ঠতম এবং শেষ ম্যাচ, একই সাথে আগের দিনে অনুষ্ঠিত পঞ্চম খেলা। ম্যাচটিতে একমাত্র গোলটি করেন পশ্চিম জার্মানির হর্স্ট হ্রুবেচ

পশ্চিম জার্মানি বনাম অস্টিয়া
গিজনের লাঞ্ছনা (Schande von Gijón)
গিজনের কলঙ্ক (فضيحة خيخون)
লজ্জাজনক ম্যাচ (le Match de la honte)
ম্যাচটির ভেন্যু এল মলিনন
প্রতিযোগিতা১৯৮২ ফিফা বিশ্বকাপ
উভয় দলই দ্বিতীয় পর্বে উন্নীত হয়
আলজেরিয়া গোল পার্থক্যের বিবেচনায় ১৯৮২ ফিফা বিশ্বকাপ থেকে বাদ পড়ে যায়
তারিখ২৫ জুন ১৯৮২; ৪১ বছর আগে (1982-06-25)
মাঠএল মলিনন, গিজন
রেফারিবব ভ্যালেন্টাইন (স্কটল্যান্ড)
দর্শক সংখ্যা৪১,০০০

পটভূমি সম্পাদনা

  • দ্রষ্টব্য: জয়ের জন্য ২ পয়েন্ট, ড্রয়ের জন্য ১, প্রথম টাই-ব্রেকার হলো গোল পার্থক্য
অব দল ম্যাচ জয় ড্র হার স্বগো বিগো গোপা পয়েন্ট যোগ্যতা অর্জন
  অস্ট্রিয়া +৩ একটি ম্যাচ বাকি আছে
  আলজেরিয়া অনিশ্চিত (কোন ম্যাচ বাকি নেই)
  পশ্চিম জার্মানি +২ একটি ম্যাচ বাকি আছে
  চিলি −৫ বাদ
২৪ জুন ১৯৮২ তারিখের খেলা শেষের পর হালনাগাদকৃত। উৎস: ফিফা

আলজেরিয়া শুরুতেই পশ্চিম জার্মানিরকে ২-১ গোলে বিস্ময়করভাবে পরাজিত করে তাদের বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করেছিলো, "১৯৬৬ সালে উত্তর কোরিয়ার কাছে ইতালি পরাজিত হওয়ার পর এটিই ছিলো বিশ্বকাপের সবচেয়ে বড় অঘটন",[১] এবং "এটিকে বিশ্বকাপ ইতিহাসের অন্যতম বড় অঘটন হিসেবে ধরা হয়"।[২] আলজেরিয়া প্রথম কোন আফ্রিকান বা আরব দল যারা ফিফা বিশ্বকাপে কোনো ইউরোপীয় দলকে পরাজিত করেছিলো। তারা শেষ ম্যাচে চিলিকে ৩–২ গোলে হারানোর পূর্বে অস্ট্রিয়ার কাছে ০–২ গোলে হেরেছিলো। চিলির বিপক্ষে আলজেরিয়া জয় পাওয়ার ফলে তারা প্রথম কোন আফ্রিকান বা আরব হিসেবে বিশ্বকাপে দুটি জয় পাওয়ার গৌরব অর্জন করে।[২]

পশ্চিম জার্মানি বনাম অস্ট্রিয়া ম্যাচের আগের দিন আলজেরিয়া তাদের শেষ ম্যাচটি খেলেছিল, যার ফলে পশ্চিম জার্মানি আর অস্ট্রিয়া আগে থেকেই জানতো যে পরবর্তী পর্বে যাওয়ার জন্য তাদের কী ফলাফল দরকার। কোনভাবে যদি পশ্চিম জার্মানি এক বা দুই গোলে জিতে তাহলে পশ্চিম জার্মানি এবং অস্ট্রিয়া উভয়েই গোল পার্থক্যের ট্রাইব্রেকারের ভিত্তিতে যোগ্যতা অর্জন করতে পারে। তবে যদি পশ্চিম জার্মানি চার বা তার বেশি গোলে জয় পেত তাহলে পশ্চিম জার্মানি এবং আলজেরিয়া যোগ্যতা অর্জন করতো। আর পশ্চিম জার্মানি যদি তিন গোলের জয় পেত তাহলে অস্ট্রিয়া এবং আলজেরিয়াকে পরবর্তী ট্রাইব্রেকারের (স্বপক্ষে গোল সংখ্যা) মুখোমুখি হতে হতো, যেখানে অস্ট্রিয়ারকে এই বাধা এড়ানোর জন্য আগে থেকেই তাদের স্বপক্ষে, কমপক্ষে দুইটি গোল থাকার প্রয়োজন হতো। আর যদি পশ্চিম জার্মানি যদি হারতো বা ম্যচটি ড্র হতো তাহলে তারা বাদ পড়ে যেতো।

তথ্যসূত্র সম্পাদনা

  1. "Pittsburgh Post-Gazette - Google News Archive Search"গুগল নিউজ। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জুন ২০২৩ 
  2. Murray, Scott; Walker, Rowan (২০০৮)। "June 25 – West Germany 1–0 Austria: 'El Anchluss' (1982)"Day of the Match। Boxtree। পৃষ্ঠা ১৮৩আইএসবিএন 978-0-7522-2678-1