প্রধান মেনু খুলুন

কালোঘাড় সারস

পাখির প্রজাতি

কালোঘাড় সারস (বৈজ্ঞানিক নাম: Grus nigricollis) Gruidae (গ্রুইডি) গোত্র বা পরিবারের অন্তর্গত Grus (গ্রুস) গণের অন্তর্ভুক্ত এক প্রজাতির দুর্লভ পাখি। পাখিটি শুধুমাত্র চীন, ভুটান, ভিয়েতনামভারতে দেখা যায়। কালোঘাড় সারস বৈজ্ঞানিক নামের অর্থও কালোঘাড় সারস (লাতিন: grus = সারস, niger = কালো, -colis = ঘাড়ের)। সারা পৃথিবীতে খুব কম জায়গা জুড়ে এরা বিস্তৃত, প্রায় ৬৪ হাজার ১০০ বর্গ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে এদের আবাস।[২] বিগত কয়েক দশক ধরে এদের সংখ্যা আশঙ্কাজনক হারে কমে যাচ্ছে। সেকারণে আই. ইউ. সি. এন. এই প্রজাতিটিকে সংকটাপন্ন বলে ঘোষণা করেছে।[১]

কালোঘাড় সারস
Stavenn Grus nigricollis 00.jpg
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: Animalia
পর্ব: কর্ডাটা
শ্রেণী: পক্ষী
বর্গ: Gruiformes
পরিবার: Gruidae
গণ: Grus
প্রজাতি: G. nigricollis
দ্বিপদী নাম
Grus nigricollis
Przhevalsky, 1876
GrusNigricollisMap.svg

কালোঘাড় সারস ভারত ও ভুটানে পরিযায়ী হিসেবে আসে। বৌদ্ধ ধর্মীয় সংস্কৃতিতে পাখিটি একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করে আছে। ভুটানে এ পাখিটির নামে প্রতিবছর একটি উৎসবের আয়োজন করা হয়। জম্মু ও কাশ্মীর প্রদেশে পাখিটি প্রাদেশিক পাখি হিসেবে পরিচিত।

বিবরণসম্পাদনা

 
প্রতিবছর প্রায় একশ'র মত পাখি ভারতে বংশবিস্তারের উদ্দেশ্যে আসে। ছবিটি ২০১৩ সালের আগস্ট মাসে লাদাখ থেকে তোলা

কালোঘাড় সারসের দৈর্ঘ্য ১৩৯ সেমি, ডানার বিস্তার ২৩৫ সেমি ও ওজন ৫.৫ কিলোগ্রাম। এর দেহ সাদাটে-ধূসর। মাথা, গলা ও ঘাড় কালো। মাথার চাঁদি মন্দা লাল ও প্রায় পালকহীন। পা, পায়ের পাতা ও নখর কালো। চোখের পেছনে কালো একটি পট্টি থাকে। এর প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পালকগুলো কালো। লেজ কালো এবং এ লেজ দেখে দূর থেকে প্রায় একই রকম দেখতে পাতি সারস থেকে এদের আলাদা করা যায়। পাতি সারসের লেজ ধূসর। স্ত্রী ও পুরুষ সারস দেখতে একই রকম।[৩]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Grus nigricollis"The IUCN Red List of Threatened Species। সংগ্রহের তারিখ ১৮ অক্টোবর ২০১৩ 
  2. "Grus nigricollis"BirdLife International। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৯-১৮ 
  3. Ali, S & S D Ripley (১৯৮০)। Handbook of the birds of India and Pakistan2 (2 সংস্করণ)। Oxford University Press। পৃষ্ঠা 139–140। 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা