কামরুল ইসলাম (রাজনীতিবদ)

বাংলাদেশী রাজনীতিবিদ

মোহাম্মদ কামরুল ইসলাম (জন্ম: ১ জুন ১৯৫০) হলেন বাংলাদেশের একজন আইনজীবী ও রাজনীতিবদ যিনি ঢাকা-২ আসনের সংসদ সদস্য। তিনি ১৩ জানুয়ারি ২০১৪ সাল থেকে ৬ জানুয়ারি ২০১৯ সাল পর্যন্ত খাদ্যমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

অ্যাডভোকেট

কামরুল ইসলাম
বাংলাদেশের খাদ্যমন্ত্রী
কাজের মেয়াদ
১৩ জানুয়ারি ২০১৪ – ৭ জানুয়ারি ২০১৯
পূর্বসূরীরমেশ চন্দ্র সেন
উত্তরসূরীসাধন চন্দ্র মজুমদার
ঢাকা-২ আসনের
সংসদ সদস্য
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
২৯ ডিসেম্বর ২০০৮
পূর্বসূরীআব্দুল মান্নান
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্মমোহাম্মদ কামরুল ইসলাম
১ জুন ১৯৫০
ঢাকা, পাকিস্তান
(বর্তমান বাংলাদেশ)
নাগরিকত্বপাকিস্তান (১৯৭১ সালের পূর্বে)
বাংলাদেশ
রাজনৈতিক দলবাংলাদেশ আওয়ামী লীগ

প্রাথমিক জীবনসম্পাদনা

কামরুল ইসলাম ১৯৫০ সালের ১লা জুন ঢাকার মোহাম্মদপুরে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা হাকিম খোরশেদুল ইসলাম এবং মাতা হালিমা খাতুন চৌধুরী তারা ব্রাহ্মণবাড়ীয়া থেকে ঢাকায় আসেন। তিনি ১৯৬৫ সালে ঢাকার আরমানিটোলা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এস.এস.সি পাশ করেন। ১৯৬৭ সালে তিনি গভর্নমেন্ট ইসলামিক ইন্টারমিডিয়েট কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক, ১৯৭০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক এবং ১৯৮২ সালে এল.এল.বি পাশ করেন।

ঢাকা বারে যোগদানের মাধ্যমে আইন পেশা শুরু করেন কামরুল ইসলাম। পরে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী হিসেবে যোগদান করেন। ১৯৯৬-২০০১ সালে কামরুল ইসলাম ঢাকার পাবলিক প্রসিকিউটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

রাজনৈতিক জীবনসম্পাদনা

কামরুল ইসলাম ১৯৬৯ সালে ছাত্রলীগের নেতা হিসেবে ৬ দফা ও ১১ দফা ভিত্তিক গণআন্দোলনে অংশ নেন। তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ঢাকা মহানগর শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।

তিনি ২০০৮ সাধারণ নির্বাচনে ঢাকা-২ আসনের জন্য আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করেন এবং নির্বাচনে জয়ী হয়ে হন।[১] ২০১৪ সালে তিনি বিনা প্রতিদন্দ্বীতায় পুনরায় সংসদ সদস্য হন।[২] ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি পুনঃরায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।[৩]

তিনি ২০০৮ থেকে ২০১৪ পর্যন্ত বাংলাদেশ সরকারের আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ছিলেন। ১২ ফেব্রুয়অরি ২০১৪ থেকে তিনি খাদ্য মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। তিনি বর্তমানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এর একজন প্রেসিডিয়াম সদস্য।

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

কামরুল ইসলাম ১৯৭৪ সালের ডিসেম্বরে বেগম তায়েবা ইসলামের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। এই দম্পতীর চার সন্তান - সায়েমা ইসলাম, সামিরা ইসলাম, সেগুপ্তা ইসলাম ও ডা. তানজির ইসলাম।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা