কাজী শরীফ কায়কোবাদ

কাজী শরীফ কায়কোবাদ বাংলাদেশের সেনাবাহিনীর সাবেক মেজর জেনারেল। তিনি বাংলাদেশ আনসারগ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর সাবেক মহাপরিচালক। [১]

কাজী শরীফ কায়কোবাদ
আনুগত্য বাংলাদেশ
সেবা/শাখা বাংলাদেশ সেনাবাহিনী
কার্যকাল১৯৮৪–বর্তমান
পদমর্যাদা মেজর জেনারেল
ইউনিটআর্টিলারি কর্পস
নেতৃত্বসমূহমহাপরিচালক- বাংলাদেশ আনসারগ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী
ব্যবস্থাপনা পরিচালক- বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরী
যুদ্ধ/সংগ্রামইউএনএমইই
ইউএনএমআইবিএইচ

জন্ম ও শিক্ষাজীবন

সম্পাদনা

১৯৬৪ সালের ০১ আগস্ট তারিখে ঢাকা জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। ঢাকা কলেজে অধ্যয়ন শেষে তিনি ১১তম বিএমএ লং কোর্সে অংশগ্রহণ করেন এবং ১৯৮৪ সালের ২১ ডিসেম্বর তারিখে কমিশন প্রাপ্ত হন। কমিশন লাভের পর বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর আর্টিলারি কোরের ০২ ফিল্ড রেজিমেন্ট আর্টিলারিতে তিনি কর্মজীবন শুরু করেন। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যাচেলর অব আর্টস (বিএ), জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স ইন ডিফেন্স স্টাডিজ (এমডিএস) ও একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স ইন সায়েন্সেস (এমএসসি-টেকনিক্যাল) ডিগ্রি অর্জন করেন। বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনাল হতে এমফিল পার্ট-২ সম্পন্ন করেন। মিরপুর সেনানিবাসে অবস্থিত ডিফেন্স সার্ভিসেস কমান্ড অ্যান্ড স্টাফ কলেজ হতে স্টাফ কোর্স এবং ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজ হতে এনডিসি কোর্স সম্পন্ন করেন। তিনি পাকিস্তানের স্কুল অব আর্টিলারিতে ওএসএল কোর্সে অংশগ্রহণ করেন এবং সকল বিদেশী ছাত্র-অফিসারদের মধ্যে ১ম এবং কোর্সে ২য় স্থান লাভ করেন।

সামরিক কর্মজীবন

সম্পাদনা

বাংলাদেশ আনসারগ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীতে যোগদানের আগে তিনি মিরপুর সেনানিবাসে অবস্থিত ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজে এসডিএস (সেনাবাহিনী) পদে দায়িত্বরত ছিলেন। ১৯৭১ সালের ২১ ডিসেম্বর আর্টিলারি কোর্সে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে কমিশন করেন। ১১তম বিএমএ দীর্ঘ মেয়াদী কোর্সে ছিলেন। পূর্বে তিনি বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক নিযুক্ত হন। জাতীয় প্রতিরক্ষা কলেজের সিনিয়র ডিরেক্টরিং স্টাফ হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। বাংলাদেশ মিলিটারি একাডেমী এবং আর্টিলারি সেন্টার এন্ড স্কুলে প্রশিক্ষক হিসেবে নিয়োজিত ছিলেন। ২০১৩ সালের ২৯ ডিসেম্বর মেজর জেনারেলে পদোন্নতি লাভ করেন। [২]

তিনি ০১টি লোকেটিং ব্যাটারী, ০১টি ফিল্ড রেজিমেন্ট আর্টিলারি, ০২টি ইউএন মিশন যার ১টিতে অবজারভার (CMPIO) হিসেবে, ০৩টি বিজিবি ব্যাটালিয়ন এবং ০২টি আর্টিলারি ব্রিগেড কমান্ড করেছেন। স্টাফ অফিসার হিসেবে তিনি সেনাসদরের এজি’র শাখায় ডিএএজি(কর্ড), এএজি এবং পরিচালক হিসেবে এসএসএফ এ কর্মরত ছিলেন। তিনি ইথিওপিয়া এবং ইরিত্রিয়াতে জাতিসংঘ মিশনে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি বিএমএ তে প্রশিক্ষক (প্লাটুন কমান্ডার) এবং আর্টিলারি সেন্টার ও স্কুলে সিনিয়র ইনস্ট্রাক্টর (গানারী) হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি বৈদেশিক প্রশিক্ষণ, শিক্ষা সফর ও ভ্রমণ উপলক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ভারতসহ পৃথিবীর মোট ২৯টি দেশ ভ্রমণ করেন। অবসর সময়ে মেজর জেনারেল কায়কোবাদ গলফ খেলতে পছন্দ করেন।

তিন বিজিবি ব্যাটালিয়ন, দুই আর্টিলারি রেজিমেন্ট এবং তিনটি আর্টিলারি ব্রিগেডের কমান্ডার ছিলেন। [৩] তিনি মিরপুরের ডিফেন্স সার্ভিসেস কমান্ড এবং স্টাফ কলেজের স্নাতক এবং মিরপুর জাতীয় প্রতিরক্ষা কলেজে ন্যাশনাল ডিফেন্স কোর্স সম্পন্ন করেন। বাংলাদেশ অ্যামেচার বক্সিং ফেডারেশনের সভাপতি পদে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে আনসারের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল কাজী শরীফ কায়কোবাদ। [৪]

জাতিসংঘ মিশন

সম্পাদনা

তিনি নাইজেরিয়ায় অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসে রাষ্ট্রদূত হিসেবে কর্মরত ছিলেন। বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা জাতিসংঘ মিশনে এবং ইথিওপিয়া ও ইরিত্রিয়া জাতিসংঘের মিশনে নিয়োজিত ছিলেন। [৩] কাজী শরীফ কায়কোবাদকে নাইজেরিয়ার প্রথম আবাসিক হাই কমিশনার হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল। [৫]

ব্যক্তিগত জীবন

সম্পাদনা

কাজী শরীফ কায়কোবাদ ও মিসেস লায়লা শরীফ সুখী দম্পতি এবং দুই সন্তানের জনক-জননী।

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. "Biography of Director General (In Bangla)"www.ansarvdp.gov.bd 
  2. "আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর মহাপরিচালক কাজী শরীফ কায়কোবাদ | কালের কণ্ঠ"Kalerkantho। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৬-১৯ 
  3. "Maj Gen Kaikobad to be made resident High Commissioner to Nigeria"। The Daily Star। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-১১-১৯ 
  4. "বক্সিংয়ের সভাপতি শরীফ কায়কোবাদ"Jugantor। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৬-১৯ 
  5. "High Commissioner to Nigeria calls on President"। Daily Asian Age। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-১১-১৯