প্রধান মেনু খুলুন

কলম্বো লোটাস টাওয়ার

কলম্বো নগরের টাওয়ার, শ্রীলংকা

লোটাস টাওয়ার (সিংহলি: නෙළුම් කුළුණ; তামিল: தாமரை கோபுரம்) হল শ্রীলঙ্কার কলম্বো শহরে নির্মাণাধীন একটি টাওয়ার।নির্মান শেষে এই টাওয়ারের উচ্চতা হবে ৩৫০ মিটার।[১][২] ভারতের গায় ওয়্যার-সমর্থিত আইএনএস কাত্তাবম্মানেরপর দক্ষিণ এশিয়ায় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ কাঠামো। এই টাওয়ারটি প্রথমে নির্মানের কথা ঠিক হয় পেলিয়াগোডা এলাকায়, পরে শ্রীলঙ্কা সরকার এটি কলম্বোতে নির্মানের কথা বলে।[৩] টাওয়ারের নির্মানের জন্য চিনের এক্সিম বাংক $১০৪.৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দিচ্ছে।[৪] এই টাওয়ারের ২৫৫ মি (৮৩৭ ফু) নির্মান সম্ভব হয়েছে। এটি কলম্বো ও তার শহরতলি এবং শহর ও তার চারপাশে বিস্তৃত মহাসড়ক থেকে দৃশ্যমান।

লোটাস টাওয়ার
නෙළුම් කුළුණ
தாமரை கோபுரம்
সাধারণ তথ্য
অবস্থানির্মানাধীন
ধরনপর্যবেক্ষণ, ডিজিটাল মহাজাকগতিক টেলিভিশন আইএসডিবি - টি, টেলিযোগাযোগ, পর্যটন আকর্ষণ, বাণিজ্যিক ব্যবহার
অবস্থানকলম্বো, শ্রীলঙ্কা
স্থানাঙ্ক০৬°৫৫′৩৭.১″ উত্তর ৭৯°৫১′২৯.৮″ পূর্ব / ৬.৯২৬৯৭২° উত্তর ৭৯.৮৫৮২৭৮° পূর্ব / 6.926972; 79.858278স্থানাঙ্ক: ০৬°৫৫′৩৭.১″ উত্তর ৭৯°৫১′২৯.৮″ পূর্ব / ৬.৯২৬৯৭২° উত্তর ৭৯.৮৫৮২৭৮° পূর্ব / 6.926972; 79.858278
সম্পূর্ণ২০১৮
উচ্চতা
অ্যান্টেনা পেঁচ৩৫০ মি (১,১৪৮.৩ ফু)
কারিগরী বিবরণ
তলার সংখ্যা১৩
লিফট/এলিভেটর

পরিচ্ছেদসমূহ

অবস্থানসম্পাদনা

দেশের রাজধানী কলম্বোর উপকণ্ঠের সীমানার মধ্যে টাওয়ার নির্মাণের প্রাথমিক সিদ্ধান্তের পর, শ্রীলঙ্কার সরকার শহরটির কেন্দ্রে টাওয়ারটি স্থাপনের করার পরিকল্পনা ঘোষণা করে। টাওয়ারের নতুন অবস্থানটি বিরালা লেকের তীর।

নির্মাণসম্পাদনা

শ্রীলঙ্কার টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক কমিশনের সভাপতি (টিআরসিএসএল), শ্রীলংকার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব, সিইআইইসি এবং এএলআইটি-এর সভাপতিগণের সাক্ষাৎকারে টিআরসিএসএল-এর মহাপরিচালক আনুশ পালপিতা সঙ্গে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন ৩ জানুয়ারী ২০১২।[৫]

একটি ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানের পর ২০ জানুয়ারী ২০১২ তারিখে নির্মাণ শুরু হয়। নির্মাণ স্থানটি বেইরা হ্রদের ওয়াটারফ্রন্টে এবং ডি. আর. উইজওয়ার্ডেন মভাথার পাশে অবস্থিত। [৬]

ডিসেম্বর ২০১৪ সালে, টাওয়ারের নির্মাণ ১২৫ মিটার (৪১০ ফুট) উচ্চতার সীমারেখা অতিক্রম করে এবং জুলাই ২০১৫ পর্যন্ত, টাওয়ার ২২৫ মিটারে (৮৩৭ ফুট) পৌঁছেছিল।

নকশা ও কার্যাবলীসম্পাদনা

এই ভবনের নকশাটি পদ্ম ফুল দ্বারা অনুপ্রাণিত। কমল বা পদ্ম শ্রীলংকার সংস্কৃতির মধ্যে বিশুদ্ধতা প্রতীক এবং দেশের উন্নয়নের প্রতীক হিসাবে ধরা হয়। টাওয়ারের ভিত্তিটি কমল বা পদ্ম সিংহাসন দ্বারা অনুপ্রাণিত এবং দুটি বিপরীত ট্র্যাপজোডাল দ্বারা গঠিত হবে। টাওয়ারের রঙটি মসৃণ রূপান্তর দ্বারা গোলাপী এবং হালকা হলুদের মধ্যে বিকল্প করার পরিকল্পনা করা হয়- কাচের আবরণ দ্বারা প্রাপ্ত একটি প্রভাব।

টাওয়ার ৩৫০ মিটার (১,১৫০ ফুট) লম্বা হবে এবং ৩০,৬০০ মিটার (৩,২৯,০০০ বর্গফুট) মেঝে এলাকা থাকবে।[৭]

লোটাস টাওয়ারের প্রধান রাজস্ব উৎস হবে পর্যটন ও অ্যান্টেনা লিজিং। এটি একটি রেডিও এবং টেলিভিশন সম্প্রচারকারী এন্টিনা আইএসডিবি-টি এবং ৫০ টি টেলিভিশন পরিষেবা, ৩৫ টি এমএম রেডিও স্টেশন এবং ২০ টি টেলিযোগাযোগ পরিষেবা প্রদানকারীর জন্য প্রস্তাবিত ডিভিবি-টি২ সমর্থন কাঠামো হিসাবে কাজ করবে [৮] এবং পর্যটকেরা বিভিন্ন পর্যটক আকর্ষণগুলি উপভোগ করবে।

টাওয়ারটিতে চারটি প্রবেশদ্বার থাকবে, যার মধ্যে দুটি ভিআইপি (বিশিষ্ট অতিথি এবং রাষ্ট্রীয় নেতাদের) প্রবেশদ্বার হিসাবে ব্যবহার করা হবে। একটি টেলিযোগাযোগ জাদুঘর এবং সাধারণ ভোজনালয় (রেস্টুরেন্ট) নীচের তলায় অবস্থিত। টাওয়ারে পডিয়াম ৬ টি মেঝে বা তলা নিয়ে গঠিত। পডিয়ামের প্রথম তলা একটি যাদুঘর এবং দুটি প্রদর্শনী ঘর নিয়ে গঠিত। ৫০০ টি আসনবিশিষ্ট কয়েকটি সম্মেলন কেন্দ্রের (কনফারেন্স হলের) জন্য দ্বিতীয় তলাটি ব্যবহার করা হবে। রেস্টুরেন্ট, সুপারমার্কেট এবং খাবারের দোকান তৃতীয় তলায় অবস্থিত হবে। চতুর্থ তলায় ১০০০-আসন অডিটোরিয়াম বসানো হবে, যা একটি নৃত্যশালা হিসাবেও ব্যবহার করা হবে। পঞ্চম তলায় বিলাসবহুল হোটেল রুম, বড় নৃত্যশালা, এবং সপ্তম তলা একটি পর্যবেক্ষণ গ্যালারি হিসাবে ব্যবহার করা হবে। পরিকল্পনা করা হয়েছে একটি বড় আকারে জল উদ্যানের (ওয়াটার পার্ক) প্রাকৃতিক দৃশ্য নির্মাণ করার।[৯][১০]

পরিবহন কেন্দ্রসম্পাদনা

কলম্বো মোনোরেল যা কলম্বোতে প্রস্তাবিত মোনোরেল ব্যবস্থা ছিল এবং বিআরটি ব্যবস্থাটি লোটাস টাওয়ারের কাছাকাছি অবস্থিত একটি সাধারণ 'বহুমুখী কেন্দ্র'য়ে একত্রিত হয়, যার ফলে টাওয়ারটি শহরের একটি প্রধান পরিবহন কেন্দ্র পরিণত হয়। ২০১৬ সালে মোনোরেল প্রকল্প বাতিল করা হয়েছিল এবং এর পরিবর্তে কলম্বোতে একটি হালকা রেল নির্মাণ করা হবে।

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Lotus Tower - The Skyscraper Center"www.skyscrapercenter.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১২-১৫ 
  2. "Foundation stone laid for Lotus Tower"। ৯ মার্চ ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৭ 
  3. "Colombo to get 350 m high multifunctional communication tower soon"। Sunday Times। সংগ্রহের তারিখ ১৫ ডিসেম্বর ২০১১ 
  4. "Sri Lankan version of Rs. 11bn Eiffel tower mooted"। Asian Tribune News। ১৯ এপ্রিল ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ নভেম্বর ২০১০ 
  5. CEIEC Signed the Contract of Colombo Lotus Tower Project, CEIEC.com News. Retrieved 3 January 2012
  6. Colombo Lotus Tower – Minister Basil Rajapakse Lays Foundation Stone, TRCSL Press. Retrieved 20 January 2012
  7. "Lotus Tower in Colombo"। Akathy। সংগ্রহের তারিখ ২০ জানুয়ারি ২০১২ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  8. "Chinese contractor puts India at ease; Dispute over Colombo Lotus Tower"। The Island। ২০ এপ্রিল ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২৯ এপ্রিল ২০১৭ 
  9. "Tallest in South Asia"। Development LK। ২৮ জুলাই ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ জানুয়ারি ২০১২ 
  10. "Colombo Lotus Tower Project Contract Signing Ceremony"। TRCSL Press। সংগ্রহের তারিখ ২০ জানুয়ারি ২০১২