এফএম সম্প্রচার

টেলিযোগাযোগ এবং সিগনাল প্রোসেসিং এ কোন তরঙ্গের তাৎক্ষণিক কম্পাঙ্কের পরিবর্তনের সাথে সাথে বাহক তরঙ্গের পরিবর্তনের মাধ্যমে তথ্য এনকোড করার প্রক্রিয়াকে ফ্রিকোয়েন্সি মডুলেশন(এফএম) বলে।

পাসব্যান্ড মড্যুলেশন টেকনিক্স
অ্যানালগ মড্যুলেশন
এএম · এসএসবি  · কিউএএম  · এফএম · পিএম · এসএম
ডিজিটাল মড্যুলেশন
এফএসকে · এমএফএসকে  · এএসকে · ওওকে · পিএসকে · কিউএএম
এমএসকে · সিপিএম · পিপিএম · টিসিএম
ওএফডিএম · এসসি-এফডিই
স্প্রেড স্পেকট্রাম
সিএসএস  · ডিএসএসএস  · এফএইচএসএস  · টিএইচএসএস
আরও দেখুন: ডিমড্যুলেশন, মডেম,

লাইন কোড, পিএএম, পিডব্লিউএম, পিসিএম

অডিও অ্যানিমেশন, এএম and এফএম সিগনাল
সিগনালকে এএম বা এফএম এর মাধ্যমে পাঠানো যায়।
এফএম এএম এর চেয়ে বেশি নয়েজ (RFI) বাদ দিতে পারে, যেমনটি ১৯৪০ সালে জেনারেল ইলেকট্রিক দ্বারা নিউইয়র্কে প্রদর্শিত হয়েছিল। রেডিওটির এএম এবং এফএম দুইধরণের রিসিভার রয়েছে। মিলিয়ন ভোল্ট আর্ক যেটি ইন্টারফেয়ারেন্সের উৎস, তার সামনে এএম শুধু একটি গর্জন তৈরি করতে পেরেছিল, যেখানে এফএম রিসিভার নিউ জার্সিতে আর্মস্ট্রং এর এফএম ট্রান্সমিটার W2XMN এর পরীক্ষামূলক সংগীতানুষ্ঠান প্রচার করে।

কন্ঠ বা সঙ্গীতের মত শ্রাব্য সিগনালকে এফএম রেডিওতে সম্প্রচারের সময় এনালগ ফ্রিকোয়েন্সি মডুলেশন ব্যবহৃত হয়। এসময় শ্রাব্য সিগনালের কম্পাঙ্ক বিচ্যুতি অর্থাৎ বাহক কম্পাঙ্ক এবং এর কেন্দ্রীয় কম্পাঙ্কের পার্থক্য মডুলেটিং সিগনালের সমানুপাতিক হয়।

ডিজিটাল ডাটাকেও এফএম এর মাধ্যমে এনকোড করা এবং পাঠানো যায়। এক্ষেত্রে আগে থেকে ডিজিটাল ডাটার ডিজিট গুলোকে আগে থেকে সেট করা কম্পাঙ্ক দিয়ে বাহক তরঙ্গের কম্পাঙ্ক নির্দিষ্ট করে দেয়া হয়। যেমন বাইনারি ১ এর জন্য একটি কম্পাঙ্ক এবং বাইনারি ০ এর জন্য আরেকটি কম্পাঙ্ক দিয়ে দেয়া হয়। এ ধরনের মডুলেশন কৌশলকে ফ্রিকোয়েন্সি শিফট কিয়িং(এফএসকে) বলে। মডেম এবং ফ্যাক্স মডেম এ = ফ্রিকোয়েন্সি শিফট কিয়িং বহুল ব্যবহৃত হয়। এছাড়া মোর্স কোড এ এর ব্যবহৃত হয়।[১]রেডিওটেলিটাইপ এ এর ব্যবহার আছে [২]

এফএম রেডিও সম্প্রচারে ফ্রিকোয়েন্সি মড্যুলেশন বহুল ব্যবহৃত হয়। এছাড়া টেলিমেট্রি, রাডার, সিজমিক অনুমান এবং ইইজি এর মাধ্যমে নবজাতক এর অবস্থা পর্যবেক্ষণের কাজেও এটি ব্যবহার করা হয়।[৩] দ্বি-পথ রেডিও সিস্টেমে, সংগীত সংশ্লেষণ, এবং কিছু ভিডিও আদান প্রদানেও এফএমের ব্যবহার আছে। বেতার আদান-প্রদানের ক্ষেত্রে এর সুবিধা হল সিগনাল ও নয়েজের অনুপাত বেশি হওয়ায় সম-ক্ষমতার অ্যাম্প্লিচ্যুড মড্যুলেশন এর চেয়ে রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি ইন্টারফেয়ারেন্স উপেক্ষা করার ক্ষমতা বেশি হয়। এ কারণে সঙ্গীত সম্প্রচারে এফএম রেডিও ব্যবহৃত হয়।

ফ্রিকোয়েন্সি মড্যুলেশন ও দশা মড্যুলেশন, কৌণিক মড্যুলেশন এর দুইটি পরিপূরক উপায়। ফ্রিকোয়েন্সি মড্যুলেশন তৈরির ক্ষেত্রে অনেক সময় দশা মড্যুলেশন ব্যবহার করা হয়। অ্যাম্প্লিচ্যুড মড্যুলেশনের সাথে এদের পার্থক্য হল অ্যাম্প্লিচ্যুড মড্যুলেশনে বাহক তরঙ্গের বিস্তার সিগনালের বিস্তারের সাথে উঠানামা করে এবং কম্পাঙ্ক ও দশা স্থির থাকে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Stan Gibilisco (২০০২)। Teach yourself electricity and electronics। McGraw-Hill Professional। পৃষ্ঠা 477। আইএসবিএন 978-0-07-137730-0 
  2. David B. Rutledge (১৯৯৯)। The Electronics of Radio। Cambridge University Press। পৃষ্ঠা 310। আইএসবিএন 978-0-521-64645-1 
  3. B. Boashash, editor, "Time-Frequency Signal Analysis and Processing – A Comprehensive Reference", Elsevier Science, Oxford, 2003; আইএসবিএন ০-০৮-০৪৪৩৩৫-৪