এন্নোর দক্ষিণ ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের চেন্নাই জেলার একটি অঞ্চল৷ পূর্বে এটি তিরুভেলুর জেলা দক্ষিণতর শহর হলেও ২০১১ খ্রিস্টাব্দের সেপ্টেম্বর মাসে এটি আনুষ্ঠানিকভাবে চেন্নাই জেলার অন্তর্ভুক্ত হয়৷ এন্নোরের অবস্থান উপদ্বীপীয়, এর তিন দিকে রয়েছে কোশস্থলা নদী, এন্নোর খাঁড়ি এবং বঙ্গোপসাগর৷ খাঁড়ি উত্তর ও দক্ষিণ এন্নোরকে পৃথক করেছে, এই পথেই রয়েছে উত্তর চেন্নাই তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রএন্নোর বন্দর৷ এই লোকালয়ে রয়েছে এন্নোর রেলওয়ে স্টেশন৷ বছর প্রতি এন্নোরে বহু অর্থনৈতিক কেন্দ্র তৈরি হয়েছে৷ এছাড়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র, বন্দর, সার শিল্প ও কয়লাখনি ভিত্তিক বহু শিল্পোন্নতি হয়েছে৷

এন্নোর
எண்ணூர்
চেন্নাইয়ের অঞ্চল
এন্নোর চেন্নাই-এ অবস্থিত
এন্নোর
এন্নোর
এন্নোর তামিলনাড়ু-এ অবস্থিত
এন্নোর
এন্নোর
এন্নোরের অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ১৩°১৩′০৩″ উত্তর ৮০°১৯′১৮″ পূর্ব / ১৩.২১৭৫° উত্তর ৮০.৩২১৫৫° পূর্ব / 13.2175; 80.32155
রাষ্ট্র ভারত
রাজ্যতামিলনাড়ু
জেলাচেন্নাইতিরুভেলুর জেলাদ্বয়
তালুকতিরুবোত্রিয়ুরপোন্নেরি
স্থানীয় প্রশাসনওয়ার্ড ১ চেন্নাই পুর নিগম ও অতিপট্টু গ্রাম পঞ্চায়েত
মহানগর এলাকাচেন্নাই
সরকার
 • শাসকসিএমডিএ
ভাষা
 • দাপ্তরিকতামিল
সময় অঞ্চলভারতীয় প্রমাণ সময় (ইউটিসি+৫:৩০)
পিন৬০০০৫৭ ও ৬০০১২০
যানবাহন নিবন্ধনTN-18 (টিএন-১৮)
লোকসভা নির্বাচন কেন্দ্রচেন্নাই উত্তর
নগর পরিকল্পনাসিএমডিএ
এন্নোরে কয়লা ভিত্তিক দূষণকারী তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র ও তৎসহ অন্যান্য শিল্পোন্নতি

ইতিহাসসম্পাদনা

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শেষে হওয়া পর পরই চেন্নাই শহরে অটোমোবাইল শিল্পের প্রসার ঘটলে উত্তর ও পশ্চিম প্রান্তে অটো পরিষেবা চালু হয়৷ লোকালয়টি আবাড়িঅম্বাত্তুরসেম্বিয়ামতিরুবোত্রিয়ুর–এন্নোর "অটো বলয়"-এর অন্তর্গত৷[১] ১৭০৮ খ্রিস্টাব্দে ব্রিটিশ মাদ্রাজ শহরের অন্তর্ভুক্ত হওয়া পাঁচটি নতুন গ্রামের মধ্যে একটি ছিল এন্নোর৷[১]

এন্নোর খাঁড়িসম্পাদনা

তিরুভেলুর জেলায় অবস্থিত এন্নোর খাঁড়ি একটি কয়াল৷ এর উত্তর দিকে রয়েছে পুলিকট হ্রদ এবং দক্ষিণে রয়েছে মানালি জলাভূমি৷ খাঁড়ির উত্তর দিকে পুলিকটের দক্ষিণ প্রান্ত দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে আরণি নদী৷ এর দক্ষিণ দিকে প্রবাহিত হয়েছে কোশস্থলা নদী এবং পুড়ল হ্রদের বর্ধিতাংশ৷ মুগত্বলকুপ্পমের অভয়ারণ্যের পথে এই সমস্ত জলাশয় ও জলপথের জল বঙ্গোপসাগরে পতিত হয়৷ এই খাঁড়ির চারিদিকে রয়েছে ছয়টি গ্রাম, যথা কাতিবক্কম, এন্নোর, পুলুদিবক্কম, অতিপট্টু পুদুনগর, কাট্টুপল্লীকালাঞ্জি৷

পরিবেশ ও অর্থনৈতিক গুরুত্বসম্পাদনা

এন্নোর খাঁড়ি, বাকিংহাম খাল এবং পুলিকট হ্রদ এর দক্ষিণাংশ একত্রিত হয়ে যে জল পরিবহন তন্ত্রের গঠন করেছে তা প্রাকৃতিক ভাবে এবং স্থানীয় জেলেদের জন্য বেশ গুরুত্বপূর্ণ। এন্নোর খাঁড়িতে রয়েছে পরিপুষ্ট জলজ বাস্তুতন্ত্র যা একসময় জৈব বৈচিত্রে পরিপূর্ণ ছিল। এই খাঁড়ি মূলত উপহ্রদ বাস্তুতন্ত্রের অন্তর্গত যা সমুদ্র উপকূলবর্তী অঞ্চলের জৈব বৈচিত্র সংরক্ষণে ভূমিকা পালন করে। বাস্তুতান্ত্রিক ভাবে এই অঞ্চলে রয়েছে জলে অর্ধনিমজ্জিত লবণাম্বুজ অরণ্য, যা মাছ সহ অন্যান্য জলজ প্রাণীর আনাগোনার পরিপন্থী আমার সাথে সাথে বন্যা জলোচ্ছ্বাস ও সাইক্লোনরোধী। কুপ্পম ও শিবনপাড়াথবীথিকুপ্পম পুরোপুরিভাবে নদী পরিবহন এবং খাঁড়ির ওপর নির্ভরশীল।[২]

স্থানীয়দের উপর অর্থনৈতিক প্রভাবসম্পাদনা

এন্নোর ও তার পার্শ্ববর্তী অঞ্চলের স্থানীয়রা বহুবছর ধরে এই খাঁড়ি ও খালের ওপর ভিত্তি করে তাদের মৎসজীবীর জীবিকা নির্বাহ করে আসছেন৷ বেশ কিছু বছর ধরে অতিরিক্ত শিল্প আগ্রাসনের ফলে মাছ আনাগোনার পরিমাণ যেমন উল্লেখযোগ্যভাবে কমেছে তেমনি কমেছে মৎসজীবীও৷ এর জন্য তারা কারখানার বর্জ্য ও ছাইকে দায়ী করে থাকেন৷ ইন্ডিয়ান অ্যাকোয়াকালচার ফাউন্ডেশনের প্রকল্প অনুযায়ী আন্না বিশ্ববিদ্যালয় সহ আরো তিনটি প্রতিষ্ঠান জলে পারদ, ক্যাডমিয়াম ও ক্রোমিয়ামের মতো ভারী ধাতুর পরিমাণ বৃদ্ধিতে মদত দেওয়ায় জলদূষণ বৃৃৃদ্ধি পাচ্ছে৷ বছরের পর বছর এরূপ চলায় বহু মূল্যবান ও অর্থকরী মাছ ও চিংড়ি খাঁড়ি থেকে প্রায় বিলুপ্ত হতে চলেছে৷ কিছু জায়গায় নদীর নাব্যতা হ্রাস পাওয়ায় ছোট ডিঙি নৌকা চলাচলে অসুবিধা তৈরি হচ্ছে৷ অন্তিমে বহু মৎসজীবী তাদের উপার্জনের অৎস হারিয়েছেন৷[৩]

 
পলি জমার ফলে নদীর নাব্যতা হ্রাস ও মৎসশিল্পের অবনতি

বায়ু দূষণ ও স্বাস্থ্যহানিসম্পাদনা

এন্নোরে অবস্থিত বিভিন্ন কল-কারখানা শিল্প প্রতিষ্ঠান ও বিশেষ করে কয়লা খনি গুলি বায়ু দূষণের অন্যতম উৎস। কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ বিভাগের থেকে পাওয়া তথ্য অনুসারে এখানকার বায়ু 'অস্বাস্থ্যকর' এবং 'অত্যধিক অস্বাস্থ্যকর' দুটি পর্যায়ে থাকে। পরিবেশ বন ও আবহাওয়া মন্ত্রণালয় নির্ধারিত বায়ুদূষণ সূচকের তুলনায় এখানকার বায়ু ৩.৭ গুন অধিক দূষিত। সিপিসিবি-র তথ্য বিশ্লেষণ করলে দূষণের পরিমাণ স্পষ্ট হয়।[৪] এত পরিমাণ বায়ু দূষণের ফলে সাধারণের মধ্যে অ্যাজমা, ফুসফুসে ক্যান্সার এমনকি হার্টঅ্যাটাক পর্যন্ত হতে পারে।[৫] এন্নোরে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্যা প্রায়ই দেখা যায়। বয়োজ্যেষ্ঠদের মধ্যেই এই ধরনের অস্বাস্থ্যকর অবস্থা কিছু দর্শক পূর্বেও ছিল না।

এন্নোর তেল দুর্ঘটনাসম্পাদনা

২০১৭ খ্রিস্টাব্দের ২৮শে জানুয়ারি এন্নোরের নিকট এর্নাবুরের কামরাজ বন্দরে তেল দুর্ঘটনা হয়। তামিলনাড়ুর এন্নোর বন্দরের কাছে দুই পণ্যবাহী জাহাজ একে অপরকে ধাক্কা মারে। এই দুর্ঘটনায় জাহাজের তেলের ট্যাঙ্কারে ফুটো হয়ে যায়। ফলে সমুদ্রে ছড়িয়ে পড়ে তেল। এই দুর্ঘটনার ফলে সমুদ্রে আনুমানিক ২০ টন তেল ছড়িয়ে পড়ে। তেল সরানোর কাজে উপকূলরক্ষী বাহিনী ও সরকারি কর্মীরা ছাড়াও মৎস্যজীবী, স্থানীয়রাও সাহায্য করেছেন। তেলের প্রভাবে কোনও কোনও জায়গায় কচ্ছপ ও মাছের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে।.[৬]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Muthiah, S. (২০১৪)। Madras Rediscovered। Chennai: EastWest। পৃষ্ঠা 144। আইএসবিএন 978-93-84030-28-5 
  2. "Ennore Creek – Ecology and Violations"। The Coastal Resource Centre। 
  3. "At the City's Margins: Coal, Land and Livelihoods in Chennai" (PDF)। The Hindu Centre for Politics and Public Policy। সংগ্রহের তারিখ ২৩ জুন ২০১৭ 
  4. "CPCB: Continuous Ambient Air quality"। Central Pollution Control Board। সংগ্রহের তারিখ ২৩ জুন ২০১৭ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  5. "Did TN govt falsify air pollution data in Ennore to set up a coal plant? Activists point fingers"। The News Minute। সংগ্রহের তারিখ ২৩ জুন ২০১৭ 
  6. "Ennore Oil Spill-Chennai Coast The Ecological Footprint - An Assessment" (PDF)। Integrated Coastal and Marine Area Management (ICMAM) Project Directorate Ministry of Earth Sciences, Government of India। মার্চ ২০১৭। ৩০ জুন ২০১৭ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৩ জুন ২০১৭