এডমন্ড হিঙ্কলি

ইংরেজ ক্রিকেটার

এডমন্ড হিঙ্কলি (১২ জানুয়ারী ১৯১৭ - ৮ ডিসেম্বর ১৮৮০) ছিলেন একজন ইংলিশ পেশাদার ক্রিকেটার, তিনি এগারো জনের খেলায় প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে এক ইনিংসে দশটির সবগুলো উইকেট শিকারকারী প্রথম ব্যক্তি হিসাবে খ্যাতিমান। ১৮৪৪ সালে লর্ডসে ইংল্যান্ড একাদশের বিপক্ষে কেন্ট কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাবের হয়ে খেলতে গিয়ে তিনি এই অর্জন করেছিলেন।[১]

হিঙ্কলি ১৮১৭ সালে কেন্টের বেনেনডেনে জন্মগ্রহণ করেছিলেন।[২] তিনি ১৮৪৬ সালে ওভালে সারের বিপক্ষে কেন্টের হয়ে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটের সূচনা করেছিলেন, তখন থেকে ১৮৫৮ সালের মধ্যে ৪৩ টি প্রথম-শ্রেণীর ম্যাচ খেলেছেন।[৩] তিনি ১৮৬২ সালে নর্থম্বেরল্যান্ডের হয়ে পেশাদার খেলোয়াড় ছিলেন এবং পাশাপাশি ও কেন্টের হয়ে খেলে তিনি সারের হয়ে দুটি ম্যাচ খেলেছিলেন এবং কাউন্টির বিপক্ষে ম্যাচে ইংল্যান্ডের হয়ে চারবার হাজির হয়েছিলেন, দুবার ইংল্যান্ডের দক্ষিণে এবং একবার "সারে ক্লাব" -র হয়েছিলেন। ১৮৫২ সালে দ্য ওভালে সারে ভি কেন্টের ম্যাচের জন্য তিনি একজন আম্পায়ারের হয়ে উপস্থিত ছিলেন। তিনি পেশাদার হিসাবে দেশের বিভিন্ন স্থানে বেশ কয়েকটি ক্লাবের হয়ে খেলেছেন।[৪]

তার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য ঘটনাটি ছিল ১৮৪৮ সালে কেন্টের হয়ে একটি ইনিংসে দশ উইকেটের সবগুলো শিকার করা, প্রথমবারের মতো দশটি উইকেট নেওয়ার কীর্তি রেকর্ড করা হয়েছিল।[১] রান রেকর্ড করা হয়নি বলে তাঁর সঠিক বোলিং বিশ্লেষণ অজানা।[ক]

তিনি ১৮৮০ সালে ৬৩ বছর বয়সে ওয়ালওয়ার্থ, লন্ডনে মারা যান।[২]

পাদটীকাসম্পাদনা

  1. Note that surviving match records in the 19th century are not always complete and any statistical compilation of a player's career in that period is based on known data. Match scorecards were not always created, or have been lost, and the matches themselves were not always recorded in the press or other media. Scorecard data was not comprehensive: e.g., bowling analyses lacked balls bowled and runs conceded; bowlers were not credited with wickets when the batsman was caught or stumped; in many matches, the means of dismissal were omitted.

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Cowdrey's crowning glory, CricInfo, 2003-06-11. Retrieved 2017-11-09.
  2. Edmund Hinkly, CricInfo. Retrieved 2017-11-09.
  3. Edmund Hinkly, CricketArchive. Retrieved 2017-11-09.
  4. Pearson H (2013) The Trundlers London: Hachette UK. (Available online. Retrieved 2017-11-09.)

বহিঃসংযোগসম্পাদনা