চিত্র

মুঘল সম্রাট শাহজাহানের (১৫৯২-১৬৬৬) শাসনামলে কোরানের একটি ভাষ্য লিখছেন একজন পণ্ডিত

ইসলামি বিজ্ঞান ( আরবি: علوم الدين, প্রতিবর্ণীকৃত: ʿulūm al-dīn, অনুবাদ'the sciences of religion') হলো ঐতিহ্যগতভাবে সংজ্ঞায়িত ধর্মীয় বিজ্ঞানের একটি উপস্থাপনা, যা ইসলামি পন্ডিতদের দ্বারা অনুশীলন ও বিশ্লেষণ করা হয়, যার লক্ষ্য ইসলামী ধর্মীয় জ্ঞানের নির্মাণ এবং ব্যাখ্যা।[১]

বিভিন্ন বিজ্ঞান

সম্পাদনা

অন্তর্ভুক্ত বিজ্ঞান:

শিয়া ইসলাম

সম্পাদনা

শিয়া ইসলাম[২][৩] বলতে কোন বিষয়ের অনেকগুলো সেমিনার, যেখানে শিয়ারা অধ্যয়ন করে থাকে (যা হাওজা নামে পরিচিত), তবে কিছু পার্থক্য রয়েছে:

আবু হামিদ আল-গাজ্জালীর মতে

সম্পাদনা

বিখ্যাত ইসলামিক পণ্ডিত আবু হামিদ আল-গাজালি তার সুপরিচিত গ্রন্থখানা দ্য রিভাইভাল অফ রিলিজিয়াস সায়েন্সেস ( ইহইয়া উলুম আল-দিন ) ইসলামি বিজ্ঞানের উপর লিখেছেন। তিনি তাঁর লেখায় যুক্তি দিয়েছেন যে, একজন মুসলমানের ধর্মীয় বাধ্যবাধকতা ( ওয়াজিব ) রয়েছে, তারা যে কাজই করুক না কেন শরীয়াহ মেনে চলার জন্য ধর্মীয় বিজ্ঞানের প্রয়োজনীয় দিকগুলো জানা আবশ্যক। যেমন পশুপালনে কর্মরত সকলেরই যাকাত সংক্রান্ত নিয়মাবলি জানা উচিত; একজন বণিক "সুদখোর পরিবেশে ব্যবসা করছেন", রিবা বা সূদ সম্পর্কে জানতে হবে, যাতে "কার্যকরভাবে সে সূদমুক্ত থাকতে পারে "।[৪] বিজ্ঞানের জ্ঞান জানা ওয়াজিব কিফা'ই (সমাজের কিছু লোক অবশ্যই জানে, যদিও একবার যথেষ্ট লোক বাধ্যবাধকতা পূরণ করে, বাকি জনসংখ্যা এ থেকে মুক্তি পায়)।

আল-গাজালি ওয়াজিব কিফা'ই ধর্মীয় বিজ্ঞানকে চারটি দলে শ্রেণীবদ্ধ করেছেন:

  1. উসূল (নীতি; অর্থাৎ কুরআন, সুন্নাহ, ইজমা বা ঐকমত্য এবং নবীর সাহাবীদের ঐতিহ্য)
  2. ফুরু' (গৌণ বিষয়; যেমন আইনশাস্ত্র, নীতিশাস্ত্র এবং রহস্যময় অভিজ্ঞতার সমস্যা)
  3. পরিচায়ক অধ্যয়ন (আরবি ব্যাকরণ, বাক্য গঠন, ইত্যাদি। )
  4. পরিপূরক অধ্যয়ন (কোরআনের তেলাওয়াত ও ব্যাখ্যা, আইনশাস্ত্রের নীতি অধ্যয়ন, ইলম আল-রিজাল বা ইসলামী ঐতিহ্যের বর্ণনাকারীদের সম্পর্কে জীবনী গবেষণা ইত্যাদি। )[৪]

আল-গাজ্জালি দাবি করেছেন যে, সমস্ত ধর্মীয় বিজ্ঞান "প্রশংসনীয়" (মাহমুদ) নয়, কারণ কোন ক্ষেত্রে অনুমানভিত্তিক,যা "শরিয়াহর দিকে অভিমুখী কিন্তু প্রকৃত শিক্ষা থেকে বিচ্যুত"। এগুলো "অবাঞ্ছিত" (মধ্যম) নামে পরিচিত।[৪]

আরও দেখুন

সম্পাদনা

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. Gilliot এবং অন্যান্য Lin.
  2. "Hawza - Advanced Islamic Studies"। Ahlul Bayt Digital Islamic Library Project। ৮ মার্চ ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  3. Thinkin ahead: Shi'ite Islam in Iraq and its seminaries ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১০ অক্টোবর ২০১৭ তারিখে, Christoph Marcinkowsi, Nayang Technological University, Singapore
  4. Golshani, Mehdi (১২ মার্চ ২০১৩)। "Introduction"। Science and the Muslim Ummah। Al-Islam.org। সংগ্রহের তারিখ ৮ আগস্ট ২০২২ 

কাজ উদ্ধৃত

সম্পাদনা
  • Campo, Juan E. (২০০৯)। "Ethics and morality"Encyclopedia of Islam। পৃষ্ঠা 214–216। আইএসবিএন 9781438126968। সংগ্রহের তারিখ ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২২ 
  • Encyclopaedia of Islam, Second Edition 
  • Encyclopaedia of Islam, Second Edition 
  • Schmidtke, Sabine (২০১৬)। "Introduction"। The Oxford Handbook of Islamic Theology। Oxford University Press। পৃষ্ঠা 1–26। ডিওআই:10.1093/oxfordhb/9780199696703.013.48