আল বাসার আন্তর্জাতিক ফাউন্ডেশন

আল বাসার আন্তর্জাতিক ফাউন্ডেশন مؤسسة البصر الخيرية العالمية (সৌদি আরবে নির্বাহী অফিস) একটি অ-লাভজনক, অ-রাজনৈতিক, আন্তর্জাতিক এনজিও, যা বিশ্বের অনেক দেশে নিবন্ধিত। অন্ধত্ব প্রতিরোধ/নির্মূল ও অন্ধকারাচ্ছন্ন রোগ নিয়ন্ত্রণের জন্য ১৯৮৯ সালে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়।[১]

আল বাসার আন্তর্জাতিক ফাউন্ডেশন
প্রতিষ্ঠাকাল১৯৮৯; ৩১ বছর আগে (1989)
আলোকপাতছানি
অবস্থান
উৎপত্তিসৌদি আরব
এলাকাগত সেবা
এশিয়া এবং আফ্রিকা
পণ্যঅপথ্যালমোলজি
পদ্ধতিবিনামূল্যে চক্ষু চিকিৎসা, চক্ষু হাসপাতাল এবং চক্ষু গবেষণা প্রতিষ্ঠান
মূল ব্যক্তিত্ব
আদেল আল রুশুদ
ওয়েবসাইটhttp://www.al-basar.org/

নিজস্ব 'অন্ধত্ব নিয়ন্ত্রণ প্রোগ্রাম' থাকার কারণে, আল-বাসার ইন্টারন্যাশনাল আফ্রিকা ও এশিয়ার অভাবগ্রস্ত দেশগুলোর মধ্যে 'আল বাসার কারভান' (ঐতিহ্যগতভাবে বিনামূল্যে চক্ষু শিবির) নামক মোবাইল আউট-অ্যাক্সেস প্রোগ্রাম সংগঠিত করছে এবং অন্ধত্বের স্বীকার দরিদ্র মানুষদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান করে আসছে[২][৩]। সেবা গ্রহণকারী দেশগুলো পরীক্ষামূলক গবেষণা এবং পরিসংখ্যানগত তথ্যের ভিত্তিতে নির্বাচিত করা হয়।

ফাউন্ডেশনটি ভৌগোলিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চলে বিশেষজ্ঞ হাসপাতাল স্থাপন শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, যেসব এলাকায় চক্ষু রোগের উচ্চ হার রয়েছে এবং চোখের চিকিৎসা শিবিরগুলোর অবস্থান যেখানে বেশি সেখানেও হাসপাতাল স্থাপন করে চিকিৎসা সেবা চালিয়ে যাচ্ছে।

অত্যাধুনিক চিকিৎসা প্রযুক্তির সাথে সজ্জিত হাসপাতালগুলো বিপুল সংখ্যক রোগীকে আকৃষ্ট করেছে এবং শিবিরগুলোতে যাদের চিকিৎসা করা সম্ভব হয়নি হাসপাতালগুলোতে তাদের চিকিৎসা করা হচ্ছে।

ফাউন্ডেশনটি চক্ষুবিদ্যা চিকিৎসার ক্ষেত্রে চিকিৎসক/প্রযুক্তিবিদ চিকিৎসা ও অস্ত্রোপচার প্রশিক্ষণ প্রদানের জন্য ইনস্টিটিউট স্থাপন করছে।

চক্ষু চিকিৎসা শিবিরসম্পাদনা

ফাউন্ডেশনটি নির্বাচিত প্রতিটি স্থানে ৭ থেকে ১০ দিনের জন্য মোবাইল আই ক্যাম্প (আল-বাসার কারভান) পাঠায়। এই সময়কালে প্রায় ৪০০০-৫০০০ রোগীকে পরীক্ষা, রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসা করা হয় এবং প্রায় ৪০০-৫০০ রোগীর সর্বোচ্চ সম্ভাব্য মান ও মান নিয়ন্ত্রণ অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে চোখের অপারেশন পরিচালনা করেন।

বেশিরভাগ ছানি-সার্জারিগুলো ছোট চশমা এবং ফ্যাকো-ইমালসিফিকেশনসহ ইনট্র-ওকুলার লেন্স ইমপ্লান্টেশন দিয়ে সম্পন্ন হয়। চিকিৎসা শেষে রোগীদের ১,০০০টির বেশি জোড়া চশমা বিতরণ করা হয়।

গত ২৫ বছর ধরে, সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানটি নিম্নলিখিত মাইলফলক অর্জন করেছে (এপ্রিল ২০১৫ পর্যন্ত):

  • এশিয়াআফ্রিকার মোট ৪৫টি দেশে সেবা প্রদান করে আসছে।
  • ১২৩৩ বিনামূল্যে চক্ষু সেবা শিবির।
  • ৪.২৬৮ মিলিয়নেরও বেশি রোগীর পরীক্ষা ও চিকিৎসা করা হয়েছে।
  • ৩৬৪,৮৮৫টির বেশি অপারেশন (বেশিরভাগ ছানিকাটা)।
  • ১.০৫৭ মিলিয়ন জুড়া চশমা বিতরণ।

হাসপাতালসম্পাদনা

আল বাসার ইন্টারন্যাশনাল ফাউন্ডেশনের দ্বিতীয় লক্ষ্য ছিল রোগীদের যথাযথ চিকিৎসা সেবা প্রদান করার জন্য বিশেষজ্ঞ চোখের হাসপাতাল স্থাপন এবং এ ক্ষেত্রে তারা সফলও হয়েছে। হাসপাতালগুলো চিকিৎসা কর্মীদের জন্য প্রশিক্ষণ কেন্দ্র হিসেবেও ব্যবহার করা হয়। এর পাশাপাশি, এই হাসপাতালগুলো চক্ষু সেবা শিবিরের জন্য মেডিক্যাল টিম পাঠানোর কেন্দ্র হিসেবে কাজ করে।[৪]

ফাউন্ডেশনটি এশিয়া ও আফ্রিকা জুড়ে বেশ কয়েকটি হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করেছে।

প্রশিক্ষণ কেন্দ্রসম্পাদনা

নেপথমলজির নেপথমোলজি যোগ্য প্রযুক্তিগত কর্মীদের অভাবের কারণে, ফাউন্ডেশন চিকিৎসা কর্মীদের প্রশিক্ষণ ও বিকাশের জন্য প্রযুক্তিগত প্রতিষ্ঠান স্থাপন শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এই প্রতিষ্ঠানগুলো হাসপাতালের পাশাপাশি মোবাইল ক্যাম্পগুলোতে প্রচলিত চিকিৎসা সেবা ও উভয় ক্ষেত্রে সহায়তা করার যোগ্য প্রযুক্তিবিদ তৈরি করে।

এই জন্য গ্র্যাজুয়েটদের প্রচুর সংখ্যক রোগীর সাথে মোকাবিলা করতে এবং প্রতিস্থাপিত চিকিৎসা যত্নের জন্য উপযুক্ত অবস্থান হিসেবে শিবির স্থাপন করে যাচ্ছে।

ফাউন্ডেশনটি পাকিস্তানের আল-ইব্রাহীম চক্ষু হাসপাতালের অধীন করাচীতে ইস্রা ইনস্টিটিউট অব ওফথমোলজি এবং সুদান মক্কা আই কমপ্লেক্সের অধীনে খার্তুম মক্কা ওফথ্যালিক টেকনিক্যাল কলেজ এবং ইয়েমেন ও কিছু আফ্রিকার কিছু দেশে আরও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট তৈরির পরিকল্পনা করছে।

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

১৫°৩৪′৩৭.৪৬″ উত্তর ৩২°৩৪′০.৪৯″ পূর্ব / ১৫.৫৭৭০৭২২° উত্তর ৩২.৫৬৬৮০২৮° পূর্ব / 15.5770722; 32.5668028 (Mekka Eye Complex and Hospitals - Khartoum)

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Basar International Foundation"arab.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৫-১২ 
  2. "নড়াইলে চক্ষু ক্যাম্পে ৫ সহস্রাধিক রোগীর বিনামূল্যে চিকিৎসা!"দৈনিক যুগান্তর। সংগ্রহের তারিখ ১১ মে ২০২০ 
  3. "জয়পুরহাটে চক্ষু ক্যাম্পে ৫ হাজার রোগীর চিকিৎসা"বনিক বার্তা। সংগ্রহের তারিখ ১১ মে ২০২০ 
  4. * Al Basar International Foundation website ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১০ আগস্ট ২০১৮ তারিখে
  5. "Al Basar International Foundation - Sudan"। ১৭ এপ্রিল ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ জুন ২০১৯ 
  6. "রাজশাহীতে চক্ষুশিবির উদ্বোধন: বিনামূল্যে চিকিৎসা পাবে ৫০০ রোগী"। সংগ্রহের তারিখ ৪ জুন ২০১৯