আলাপ:শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকাণ্ড

সক্রিয় আলোচনা
উইকিপ্রকল্প বাংলাদেশ (মূল্যায়ন - মান অমূল্যায়িত, গুরুত্ব উচ্চ)
এই নিবন্ধটি উইকিপ্রকল্প বাংলাদেশের অংশ, যা উইকিপিডিয়ায় বাংলাদেশ সম্পর্কিত বিষয়ের উন্নতির একটি সম্মিলিত প্রচেষ্টা। আপনি যদি প্রকল্পে অংশগ্রহণ করতে চান, তাহলে প্রকল্প পৃষ্ঠায় যান, যেখানে আপনি প্রকল্পের আলোচনায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন এবং করনীয় কাজসমূহের একটি তালিকা দেখতে পাবেন।
 ???  এই নিবন্ধটি প্রকল্পের মানের মাপনী অনুযায়ী অমূল্যায়িত-শ্রেণী হিসাবে মূল্যায়িত হয়েছে।
 উচ্চ  এই নিবন্ধটি গুরুত্বের মাপনী অনুযায়ী উচ্চ-গুরুত্ব হিসাবে মূল্যায়িত হয়েছে।

ধ্বংসপ্রবণতাসম্পাদনা

এই সম্পাদনাটি ধ্বংসপ্রবণতা হিসেবে সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। @আফতাবুজ্জামান এবং Meghmollar2017: 43.245.121.90 (আলাপ) ১০:৪৫, ১১ নভেম্বর ২০২০ (ইউটিসি)[]

রক্ষীবাহিনী প্রসঙ্গেসম্পাদনা

শুভেচ্ছা রইল। নিবন্ধটিতে কিছু তথ্যের ব্যপারে দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। বলা হয়েছে, ‘রক্ষীবাহিনী মুজিব সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত হওয়া থেকে রক্ষা করে’, আমি মনে করি এ তথ্য সত্যনিষ্ঠ নয়। আবার ‘এর ৩০০০০ কর্মী আওয়ামীলীগ বিরোধীদের ভয় দেখাতো ও নির্যাতন করতো।’ - এর কর্মী সংখ্যা ৩০০০০ ছিলো না। সূত্রমতে, তা সর্বসাকুল্যে ২০০০০। আবার ‘এটি আওয়ামীলীগের মুখপাত্র হিসেবে কাজ করে’ - বস্তুত, এর সদস্যগণ মুক্তিযোদ্ধা হওয়ায় মুজিবের প্রতি স্বভাবতই অনুগত ছিলো। Symoum Syfullah Priyo (আলাপ) ০৫:৪৫, ২২ জানুয়ারি ২০২১ (ইউটিসি)[]

আপনি উল্লেখযোগ্য তথ্যসূত্রসহ আপনার তথ্যগুলো "অথবা/মতান্তরে" হিসেবে যুক্ত করুন তবে যে তথ্য আছে সেগুলো মুছে দেবেন না কারণ সেগুলোতে উল্লেখযোগ্য তথ্যসূত্র আছে, যেমন মুক্তিযুদ্ধ নিবন্ধে নৃশংসতা অনুচ্ছেদে নিহতের সংখ্যায় সবগুলো উল্লেখযোগ্য মতকেই উল্লেখ করা হয়েছে, কোন মতকেই প্রাধান্য বা বাদ দেওয়া হয় নি।116.58.201.237 (আলাপ) ০৫:৫৭, ২২ জানুয়ারি ২০২১ (ইউটিসি)[]

অপ্রাসঙ্গিকতাসম্পাদনা

নিবন্ধে বেশ কিছু অপ্রাসঙ্গিক বিষয়ে বিস্তারিত বর্ণনা দেয়া হয়েছে বলে মনে হয়। Symoum Syfullah Priyo (আলাপ) ১৭:০৪, ১ মার্চ ২০২১ (ইউটিসি)[]

@Symoum Syfullah Priyo: অপ্রাসঙ্গিক বিষয়গুলো কি কি উল্লেখ করুন, আর @আফতাবুজ্জামান: ভাই, আপনার কথামত সুখরঞ্জন দাসগুপ্তের উক্তিগুলো বাংলা করা হয়েছে। অমীমাংসিত সম্পাদনাগুলো যাচাই করে পরীক্ষিত করে দিন। 103.230.106.41 (আলাপ) ১২:৪৬, ১০ মার্চ ২০২১ (ইউটিসি)[]

ধন্যবাদ। জনাব, আপনি লক্ষ্য করে থাকবেন যে নিবন্ধটিতে "সিরাজ সিকদারের উত্থান ও হত্যা" বিষয়টি পটভূমি পরিচ্ছেদে অনেকটাই বিচ্ছিন্নভাবে যুক্ত হয়েছে যেটি কিনা অন্য কোন নিবন্ধে স্থান করে নিতে পারতো। নারী নির্যাতন ও হত্যার ব্যাপারে ফারুকের বর্ণিত একটি ঘটনাকে শেষ মুহূর্তের প্রভাবক বলে উল্লেখ করা হয়েছে। অত্যন্ত সুপরিকল্পিত হত্যাকাণ্ডের কোন শেষ মুহূর্তের প্রভাবক থাকাটা বিভ্রান্তিকর। তবুও এন্থনি ম্যাসকারেনহাসের বরাত দিয়ে বিষয়টি নিবন্ধে স্থান করে নিয়েছে। লক্ষণীয় যে, এন্থনি'র বাংলাদেশ:রক্তের ঋণ বই থেকে উদ্ধৃতি প্রদানের ক্ষেত্রে মাথায় রাখা উচিত যে এন্থনি বিভিন্ন ঘটনার বর্ণনা দিয়েছেন খুনি সদস্যদের উক্তি ও বর্ণনার ভিত্তিতে। মুজিবের আত্নীয়দের স্বজনপ্রীতির অভিযোগটি অবশ্যই প্রাসঙ্গিক। তবে আমার মতে মুজিব তনয়ের দুর্নীতির ঘটনাটি অপ্রাসঙ্গিকতার অবতারণা করে (হত্যাকাণ্ডের সাথে সম্পর্ক বিবেচনায়)। ডালিম-মোস্তফা সংঘর্ষের ঘটনাটিরও পরিমার্জন প্রয়োজন। তবে হ্যাঁ, এ বিষয়ে লোকমত যে আমার মতের সীমারেখায় চলে না সে বিষয়ে আমি পরিপূর্ণ সচেতন। ভুল করে থাকলে আমি ক্ষমাপ্রার্থী। আবারো ধন্যবাদ; এবং শুভেচ্ছা রইল।:) Symoum Syfullah Priyo (আলাপ) ০৯:৩৮, ১১ মার্চ ২০২১ (ইউটিসি)[]

ডালিম মোস্তফা সংঘর্ষকে অনেক একাদেমিক কাগজপত্রেই মুজিব হত্যার পেছনের অনুমিত একটি অপ্রধান ও পরোক্ষ সম্পর্কিত কারণ বলে উল্লেখ করেছেন বলে আমি পেয়েছি, এই মুহূর্তে এই তথ্যসূত্রটি দেখুন। [১] আর ধর্ষণ হত্যার ঘটনাটিকে মাসকারেনহাস অনেক বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন তার বইয়ে, একটি অনুচ্ছেদে (মূল ইংরেজি সংস্করণ পৃষ্ঠা ৪৯) তো ম্যাস্কারেনহাস সরাসরি বলেই দিয়েছেন যে, টঙ্গির এই ঘটনা ফারুককে বিদ্রোহী করে তুলেছিল এবং এই ঘটনার ফলেই তিনি নিজের চাকরি পদোন্নতি সবকিছু ভুলে গিয়ে চলমান সরকার উৎখাতকেই নিজের একমাত্র করনীয় কাজ হিসেবে স্থির করেছিলেন, তাই এই ঘটনাটি এড়িয়ে যাওয়ার কোন সুযোগই নেই। আর সিরাজ শিকদার হত্যা সরাসরি সম্পর্কিত না হলেও সেইসময়ের মুজিব হত্যার জন্য বৈরি পরিস্থিতি তৈরির পেছনে সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের সঙ্গে সঙ্গে সিরাজ শিকদারের উত্থান ও হত্যার চাক্ষুষ প্রভাব ছিল বলেই মুজিব হত্যা সম্পর্কিত বেশ কিছু বই ও নথিপত্রে এই বিষয়টি উল্লেখ করা হয়েছে, যদিও কোন বইয়ে সরাসরি মুজিব হত্যার সঙ্গে এর সম্পর্ক উল্লেখ করা হয় নি, তবে ম্যাস্কারেনহাস সহ আরও অনেকেই মুজিব হত্যার পূর্ব রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট উত্তেজিত হওয়ার অন্যতম একটি কারণ হিসেবে এই বিষয়টিকে গুরুত্ব সহকারে উপস্থাপন করেছেন, এটা অনেকটা মুজিব হত্যায় সংবাদপত্রের ভূমিকার প্রায় সমমানের একটি বিষয়, যা মুজিব হত্যায় প্রত্যক্ষ না হলেও পরোক্ষ ভূমিকা রাখে। আর ম্যাস্কারেনহাসের বইটি যেহেতু আন্তর্জাতিকভাবে বহুল পরিচিত ও স্বীকৃত একটি বই, তাই এই বইকে উইকিপিডিয়ায় তথ্যসূত্র হিসেবে কোন নির্দিষ্ট পক্ষের জন্য সুবিধাজনকভাবে একপাক্ষিক ব্যবহার না করে সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ দৃষ্টিভঙ্গি অনুসারে ব্যবহার করা উচিৎ। 103.230.107.13 (আলাপ) ০৭:১১, ১২ মার্চ ২০২১ (ইউটিসি)[]
  1. Mamoon, Muntassir; Ray, Jayanta Kumar (১৯৯৬)। Civil Society in Bangladesh: Resilience and Retreat (ইংরেজি ভাষায়)। Firma KLM under the auspices of University of Calcutta। পৃষ্ঠা 127। আইএসবিএন 978-81-7102-047-8। সংগ্রহের তারিখ ১২ মার্চ ২০২১The immediate cause behind Mujib's murder has been traced to an altercation involving the wife of Major Dalim and the followers of an Awami League leader, Ghazi Gholam Mustafa , and Mujib's failure to bring about a just settlement of this matter. It is However, hardly credible that a petty dispute can give birth to an event as big as the one occurring on 15 August 1975. 

ধন্যবাদ আপনাকে:) Symoum Syfullah Priyo (আলাপ) ১৬:১২, ১২ মার্চ ২০২১ (ইউটিসি)[]

আরো কিছু বিষয়বস্তুসম্পাদনা

হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের বিষয়গুলো নিবন্ধটিতে অবিলম্বে যোগ করা উচিত। Symoum Syfullah Priyo (আলাপ) ০৫:৪২, ১২ মার্চ ২০২১ (ইউটিসি)[]

তাজউদ্দীনের সাক্ষ্য অনুচ্ছেদে তাজউদ্দীনের নিজ জবানিতে কিছু গুরুত্বপূর্ণ ধারণা দেওয়া আছে। 103.230.105.17 (আলাপ) ০৭:৩২, ১২ মার্চ ২০২১ (ইউটিসি)[]
@Symoum Syfullah Priyo: আপনার কাছে এ বিষয়ে উপযুক্ত তথ্যসূত্র থাকলে যোগ করে দিন। পরে পর্যালোচনার পর পরীক্ষিত করা হবে। ধন্যবাদ। ~সাজিদ(আলাপ) ১১:১৯, ১২ মার্চ ২০২১ (ইউটিসি)[]

তাজউদ্দিনের সাক্ষ্যটি অবশ্যই সহায়ক হবে। ধন্যবাদ :) Symoum Syfullah Priyo (আলাপ) ১৬:১৫, ১২ মার্চ ২০২১ (ইউটিসি)[]

মোজাম্মেল প্রসঙ্গেসম্পাদনা

এই ফেসবুক পোষ্টগুলোতে বিএনপির বিভিন্ন নেতাকর্মী ও এই ভিডিওটিতে একুশে টিভির প্রাক্তন সাংবাদিক ইলিয়াস হোসেন বলছেন যে, এন্থনি মাস্কারেনহাস বর্ণিত মুজিব হত্যায় প্রভাব সৃষ্টিকারী ধর্ষণ হত্যা মামালার আসামি মোজাম্মেল আর বাংলাদেশের বর্তমান মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী মোজাম্মেল একই ব্যক্তি। কাকতালীয়ভাবে দুজনেই গাজীপুর জেলায় সেসময় কাছাকাছি দুটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছিলেন, একজন টঙ্গিতে, আরেকজন জয়দেবপুরে। 103.230.107.48 (আলাপ) ২০:৫১, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ (ইউটিসি)[]

"শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকাণ্ড" পাতায় ফেরত যান।