বিশেষ:পার্থক্য/7100722 সম্পাদনা

সম্পাদনা পূর্বাবস্থায় নেওয়ার সময় সারাংশে কারণ উল্লেখ করা উচিত ছিল। (نقاش) عبد الله ০১:৩০, ২১ ডিসেম্বর ২০২৩ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]

অমীমাংসিত পরিবর্তন থেকে নিতে গিয়ে ভুলে রোলব্যাক করেছিলাম। আমি দুঃখিত, কিন্তু মূলত ব্যবহারের পার্থক্য বলা হয়েছে। মুসলিমরা স্বাগত জানাতে আসসালামু আলাইকুম বলেন আর হিন্দুরা নমস্কার বলেন। মৌলিক অর্থগত সাংঘর্ষিকতা বা আকিদাগত বিরোধের বিষয় উভয় ধর্মের নিবন্ধগুলো থেকে জানা যেতে পারে; বাংলা ভাষার নিবন্ধতে এটা মুখ্য না বলেই মনে করি। ― 💬 кคקย๔คภ קครђค (কাপুদান পাশা)  ☪  ০৮:৪৩, ২১ ডিসেম্বর ২০২৩ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
@খাত্তাব হাসান অর্থগত দিক থেকে অবশ্যই সাংঘর্ষিকতা রয়েছে। না হলে নামাজ আর পূজাকে একে অপরের সমর্থক বলা যেত! তবে আমি মনে করি এখানে বিভ্রান্তি এড়ানোর জন্য টীকা ব্যবহার করা উচিত। (نقاش) عبد الله ০৩:১৬, ১৯ জানুয়ারি ২০২৪ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
@Abazizfahad যদি নামাজ আর পূজা (উভয়টার অর্থ একই) ধর্মীয় বিষয় ব্যতীত অন্য বিষয়ে আসে তাহলে অবশ্যই উভয়টাকে সামনেই দাঁড় করানো হবে; যেভাবে আপনি সামনে আনলেন! এটা সালাম বা নমস্কার সংক্রান্ত বিষয়ে নয়, বরঞ্চ বাংলা ভাষা নিবন্ধ; তাই এটি এখানে কোনো বিভ্রান্তি সৃষ্টি করবেনা। ―  ☪  কাপুদান পাশা () ০৪:৩২, ১৯ জানুয়ারি ২০২৪ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
@খাত্তাব হাসান নামাজ আর পূজার সংজ্ঞা বা অর্থ ভিন্ন, এগুলো কখনোই সমার্থক হতে পারে না। ধর্মীয় তুলনামূলক অর্থে হিসেবে বলা যেতে পারে। (نقاش) عبد الله ০৪:৪৬, ১৯ জানুয়ারি ২০২৪ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
@Abazizfahad এখানে বলা হচ্ছিল যে, মুসলিমরা ও হিন্দুরা ভাষার ক্ষেত্রে ভিন্ন পরিভাষা ব্যবহার করে। তাহলে বলুন, মুসলিমরা অভিবাদন জানাতে কী বলে? আর হিন্দুরা কী বলে?
প্রসঙ্গতঃ নামাজ মূলত পারসিক ধর্মের ইবাদতের নাম ছিল। এটা ইসলামের নিজস্ব কিছু নয়। অর্থগত দিক থেকে উভয়ের অর্থই এক। আপনি সংজ্ঞার কথা বলছেন, এখানে সংজ্ঞামূলক কিছুই আসেনি। অনুগ্রহ করে পুরো প্যারা পড়ে দেখুন। ―  ☪  কাপুদান পাশা () ০৮:০৪, ১৯ জানুয়ারি ২০২৪ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
@খাত্তাব হাসান আমি বলেছি যে ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে সালাম আর নমস্কারের মধ্যে পার্থক্য আছে, দুইটার অর্থ ও তাৎপর্য ভিন্ন। দুইটাকে আপনি তুলনা করতে পারবেন কিন্তু সমার্থক বলতে পারবেননা। আর নামাজ দিয়ে মূলত সালাতকেই বোঝানো হয় (এটা নিয়ে আবার প্রসঙ্গ তোলার কি আছে)। যেমন: সিয়াম কে রোজা বলি আমরা। ইসলামের নিজস্ব পরিভাষায় সালাতের যে সংজ্ঞা সেটাই নামাজ হিসেবে পরিচিত ও প্রচলিত। আমি সংজ্ঞা বলতে সালাম ও নমস্কারের অর্থগত পার্থক্যকে বুঝিয়েছি। নিবন্ধে সংজ্ঞা রয়েছে এরকম কিছু বলিনি।‌‌ তাই আমার মতে টীকা উল্লেখ করা দরকার। (نقاش) عبد الله ০৮:২২, ১৯ জানুয়ারি ২০২৪ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
@Abazizfahad টীকায় কী লেখা হবে? "এটির অর্থ এই এই?" আমার প্রশ্ন হচ্ছে ঐ প্যারাটা পড়ে দেখুন; অর্থের প্রসঙ্গ আসতে পারে কিনা- তারপর বলবেন। ―  ☪  কাপুদান পাশা () ০৮:২৪, ১৯ জানুয়ারি ২০২৪ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]
@খাত্তাব হাসান ভিন্ন অর্থ প্রকাশ করে এমন দুটি শব্দ তালিকায় পাশাপাশি রাখলে টীকায় আলাদা আলাদা ভাবে অর্থ উল্লেখ করতে হবে কেন? টীকায় বলা যেতে পারে, "আসসালামু আলাইকুম" এবং "নমস্কার" ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে দুটি ভিন্ন পরিভাষা, পরস্পরকে সম্বোধন করতে মুসলমানরা "আসসালামু আলাইকুম" ও হিন্দুরা "নমস্কার" বলে থাকে। ব্যাস। আপনি লক্ষ্য করলে দেখবেন তালিকার অন্যান্য শব্দগুলো একে অপরের সমার্থক যেমন: জল-পানি, অতিথি-মেহমান ইত্যাদি। (نقاش) عبد الله ০৯:০০, ১৯ জানুয়ারি ২০২৪ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]

অমর একুশে নিবন্ধ প্রতিযোগিতায় আমন্ত্রণ সম্পাদনা

 

সুপ্রিয় খাত্তাব হাসান,
আপনি জেনে আনন্দিত হবেন যে, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে বাংলা উইকিপিডিয়ায় শুরু হয়েছে অমর একুশে নিবন্ধ প্রতিযোগিতা ২০২৪। এ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে বাংলা উইকিপিডিয়ায় ইংরেজি থেকে অনুবাদের মাধ্যমে নতুন নিবন্ধ তৈরি করা হবে। ১ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া এ প্রতিযোগিতা চলবে আগামী ২৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। অংশগ্রহণকারীদের জন্য থাকছে বিশেষ পুরস্কার। প্রতিযোগিতায় অংশ নিন ও পুরস্কার জিতুন। আয়োজক দলের পক্ষে, —শাকিল (আলাপ) ২০:০৯, ৩১ জানুয়ারি ২০২৪ (ইউটিসি)উত্তর দিন[উত্তর দিন]