আব্দুল হক আজমি

ভারতীয় দেওবন্দি ইসলামি পণ্ডিত

আবদুল হক আজমি (১৯২৮ - ৩০ ডিসেম্বর ২০১৬) একজন ভারতীয় সুন্নি ইসলামী পণ্ডিত ছিলেন। তিনি দারুল উলূম দেওবন্দের প্রাক্তন শায়খুল হাদীস ছিলেন। তিনি তার অনুসারীদের কছে শায়খে সানী নামেও পরিচিত।[১][২]

মুহাম্মদ আব্দুল হক আজমী
উপাধিশাইখুল হাদীস, শাইখে সানী, হজরত, মাওলানা
ব্যক্তিগত
জন্ম
আব্দুল হক

১৯২৮
জগদীশপুর, আজমগড়, ভারত
মৃত্যু৩০ ডিসেম্বর ২০১৬(2016-12-30) (বয়স ৮৭–৮৮)
সমাধিস্থলকাসেমী গোরস্তান, দারুল উলূম দেওবন্দ
ধর্মইসলাম
জাতীয়তাভারতীয়
আখ্যাসুন্নি
শিক্ষালয়দারুল উলূম মাউ
সম্প্রদায়ইসলামি শিক্ষা
ব্যবহারশাস্ত্রহানাফি
ধর্মীয় মতবিশ্বাসমাতুরিদী
আন্দোলনদেওবন্দি
প্রধান আগ্রহহাদিস
উল্লেখযোগ্য কাজমুহাদ্দিস
শিক্ষামাওলানা, মূফতি
অন্য নামআজমী,শাইখুল হাদীস,শাইখে সানী
কাজমুহাদ্দিছ
মুসলিম নেতা
শিক্ষকহুসাইন আহমদ মাদানি, ইবরাহীম বালিয়াভী, ইজাজ আলী আমরুহী

প্রাথমিক জীবনসম্পাদনা

আবদুল হক আজমির জন্ম ১৯৮৮ সালে আজমগড়ের জগদীশপুর এলাকায়।[৩] তিনি স্থানীয় স্কুল এবং তারপরে আজমগড়ের সরাই মীরের মাদ্রাসা বাইতুল উলুমে ভর্তি। পরে তিনি আরবি সপ্তম শ্রেণি পর্যন্ত দারুল উলূম মাউ-এ পড়াশোনা করেন এবং পরে ১৯৪৮ সালে দারুল উলূম দেওবন্দে প্রবেশ করেন এবং হুসাইন আহমদ মাদানী, ইজাজ আলী আমরূহি এবং ইব্রাহিম বালিয়াভীর অধীনে স্নাতক অর্জন করেন। তিনি মজিদ আলী জৌনপুরীর শিষ্য তার সৎ পিতা মুসলিম জৌনপুরীর সাথে যুক্তিবিদ্যার অধ্যয়ন করেন।[৩][৪][৫]

কর্মজীবনসম্পাদনা

তিনি ষোল বছরেরও বেশি সময় ধরে বেনারসের মা'আতুল উলূমে বিভিন্ন ইসলামী জ্ঞান শিখিয়েছিলেন। তের বছর ধরে দারুল উলূম মাউ-এ মুফতী হিসাবে তিনি প্রায় ১৩,০০০ ফতোয়া জারি করেছিলেন।[১] পরে তিনি ১৯৮২ সালে দারুল উলূম দেওবন্দের হাদীস শিক্ষক হিসাবে নিযুক্ত হন যেখানে তিনি সহিহ বুখারী এবং মিশকাত আল-মাসাবিহ-এর দ্বিতীয় খণ্ডটি পড়ান। তিনি ৩৪ বছর ধরে দারুল উলূম দেওবন্দে সহিহ বুখারী পড়িয়েছিলেন। তার ছাত্রদের মধ্যে রয়েছে মোহাম্মদ নজিব কাসেমি, মাহমুদ মাদানী, নূর আলম খলিল আমিনী এবং সালমান মনসুরপুরী।[১][৩][৪]

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

তিনি ভারতীয় সাংবাদিক রানা আইয়ুব-এর পিতা মুহাম্মদ আইয়ুব ওয়াকিফের মামাতো বোনকে বিয়ে করেছিলেন।[৬]

মৃত্যুসম্পাদনা

আব্দুল হক আজমী ৩০ ডিসেম্বর ২০১৬ (৩০ রাবিউল আওয়াল ১৪৩৮ হিজরী) মারা যান এবং দারুল উলূম দেওবন্দের কাসেমি কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। তার জানাজার নামাজ পরিচালনা করেন আরশাদ মাদানী। তিনি তার স্ত্রী এবং বারো সন্তান রেখে গেছেন। তার ছেলে আবদুল বার আজমী আজমগড়ের মাদ্রাসা বায়তুল উলুম সরাই মীরের হাদীসের অধ্যাপক।[১][৩][৫]

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Obituary: Hadhrat Maulana Shaikh Abdul Haq Azami (1928-2016)"Deoband.net। সংগ্রহের তারিখ ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 
  2. মাদানী, মুহাম্মদ শাকির নিসার (সম্পাদক)। "দারুল উলূম দেওবন্দ, কে শায়খ সানী রচিত নূর আলম খলিল আমিনী"। তাধকিরাহ কুতুব-ই-জামান (উর্দু ভাষায়) (জুলাই ২০১৮ সংস্করণ)। ইদারা পাসবান ইলম-ও-আদাব। 
  3. মোহাম্মদ নাজিব কাসমি"Ah! Sheikh-ul-Hadith of Darul Uloom Deoband, Maulana Abdul Haq Azmi is no more in this world"NajeebQasmi.com। ১৩ জুলাই ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 
  4. "Rich tributes paid to Maulana Azmi"SaudiGazette.com। সংগ্রহের তারিখ ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 
  5. "Shaykh Abdul Haq Ahwal-o-Aasar"darululoom-deoband.com। সংগ্রহের তারিখ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 
  6. মুহাম্মদ আইয়ুব ওয়াকিফ। ইয়াদ-এ-আইয়াম (উর্দু ভাষায়) (2017 সংস্করণ)। Tehreer-e-Nau Publications। পৃষ্ঠা 41।