আউফবাউ নীতি

শক্তিক্রম অনুসারে ইলেক্ট্রন বিন্যাস রীতি

আউফবাউ নীতি কোনো পরমাণু বা আয়নের ইলেকট্রনের বিন্যাস বা কনফিগারেশন নির্ধারণে ব্যবহৃত হয়। এটি 3d ও 4s অরবিটালদ্বয়ের ইলেকট্রন ধারণক্ষমতার ধারাবাহিকতা প্রকাশ করে। আউফবাউ (aufbau) একটি জার্মান শব্দ, যার অর্থ নির্মাণ করা বা উপরে যাওয়া। এ নীতি হলো:

কোনো অরবিটালে ইলেকট্রন প্রবেশের ক্ষেত্রে আউফবাউ নীতি অনুসরণ

"কোনো পরমাণুর ইলেক্ট্রনসমূহ তাদের শক্তির উচ্চক্রম অনুসারে প্রবেশ করবে। " [১]

ব্যাখ্যাসম্পাদনা

নীতি অনুযায়ী,

দুটি অরবিটালের মধ্যে কোনটির শক্তি কম বা বেশি, তা অরবিটালদ্বয়ের প্রধান কোয়ান্টাম সংখ্যা ও সহকারী কোয়ান্টাম সংখ্যা দ্বারা নির্ণীত হয়।

প্রধান কোয়ান্টাম সংখ্যা (n) ও সহকারী কোয়ান্টার সংখ্যা্য (l) যোগফল (n+l) এর মাধ্যমে কোনো অরবিটালের শক্তি নির্ণয় করা হয়।

যেমন: 3d ও 4s অরবিটালের মধ্যে – 3d এর জন্য n=3 এবং l=2 সুতরাং n+l = 3+2=5 4s এর জন্য n=4 এবং l=0 সুতরাং n+l = 4+0=4

4s অরবিটালের শক্তি কম। সুতরাং 4s অরবিটালে আগে ইলেকট্রন প্রবেশ করবে,পরে 3d অরটিলে ইলেকট্রন প্রবেশ করবে।

1s < 2s < 2p < 3s < 3p < 4s < 3d < 4p < 5s < 4d < 5p < 6s < 4f < 5d < 6p < 7s

তবে d এবং f উপস্তরের বিন্যাস একটু ভিন্ন রকমের।

যদি d উপস্তর পূর্ণ বা অর্ধ পূর্ণ হওয়ার জন্য ১টি ইলেকট্রন কম থাকে অর্থাৎ ৯টি বা ৪টি ইলেকট্রন থাকে, তাহলে পরবর্তী উপস্তর থেকে একটি ইলেকট্রন d উপস্তরে স্থানান্তরিত হয় । উদাহরণ: ক্রোমিয়াম Cr(24), তামা Cu(29), মলিবডেনাম Mo (42), রূপা Ag (47) এর ইলেকট্রন বিন্যাস ।

আর Ra (88) এর উপস্তর 7s পূর্ণ হওয়ার পর বর্ণিত ধারা অনুযায়ী Ac(89) এ বাড়তি ইলেকট্রন 5f এ প্রবেশ না করে 6d তে প্রবেশ করে। অবশ্য এর পর ইলেকট্রন গুলো Pa(91) থেকে Lr(103) পর্যন্ত মৌলগুলোতে এক এক করে 5f এ প্রবেশ করে । Lr(103) মৌলে 5f পূর্ণ হওয়ার পর নিয়মানুযায়ী 6d উপস্তর ইলেকট্রন প্রবেশ করতে থাকে ।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. হাজারী, সরোজ কান্তি সিংহ এবং নাগ, হারাধন ২০১৯. রসায়ন প্রথম পত্র: একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণি. (চতুর্থ সংস্করণ). হাসান বুক হাউস, ঢাকা.

Banerjee book house India kolkata Sodepur

আরো পড়ুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা