অ্যামি ম্যাডিগান

মার্কিন অভিনেত্রী

অ্যামি ম্যারি ম্যাডিগান (ইংরেজি: Amy Marie Madigan; জন্ম: ১১ সেপ্টেম্বর ১৯৫০)[১] হলেন একজন মার্কিন অভিনেত্রী, প্রযোজক ও গায়িকা। তার অভিনীত প্রথম সমাদৃত চলচ্চিত্র হল লাভ চাইল্ড (১৯৮২), যার জন্য তিনি বর্ষসেরা নবীন অভিনেত্রী বিভাগে গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। তিনি ১৯৮৫ সালের টোয়াইস ইন আ লাইফটাইম চলচ্চিত্রে অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে একাডেমি পুরস্কারগোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। তার অভিনীত অন্যান্য উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্র হল প্লেসেস ইন দ্য হার্ট (১৯৮৪), ফিল্ড অব ড্রিমস (১৯৮৯), আঙ্কল বাক (১৯৮৯), দ্য ডার্ক হাফ (১৯৯৩), পোলক (২০০০) এবং গন বেবি গন (২০০৭)।

অ্যামি ম্যাডিগান
Amy Madigan
Amy Madigan at the 41st Emmy Awards cropped and altered.jpg
জন্ম
অ্যামি ম্যারি ম্যাডিগান

(1950-09-11) ১১ সেপ্টেম্বর ১৯৫০ (বয়স ৭০)
মাতৃশিক্ষায়তনমার্কেট বিশ্ববিদ্যালয়
পেশাঅভিনেত্রী, প্রযোজক, গায়িকা
কর্মজীবন১৯৭৭-বর্তমান
দাম্পত্য সঙ্গীএড হ্যারিস (বি. ১৯৮৩)
সন্তান

ম্যাডিগান ১৯৮৯ সালের টেলিভিশন চলচ্চিত্র রো ভার্সাস ওয়েড-এ অভিনয় করে সেরা টিভি পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার অর্জন করেন এবং মিনি ধারাবাহিক বা টিভি চলচ্চিত্র বিভাগে সেরা মুখ্য অভিনেত্রী বিভাগে প্রাইমটাইম এমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। তার অন্যান্য টিভি কাজগুলো হল আ ব্রাইট শাইনিং লাই, জাস্ট আ ড্রিমকার্নিভেল

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

ম্যাডিগান ১৯৫০ সালের ১১ই সেপ্টেম্বর শিকাগো শহরে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা জন জি. ম্যাডিগান (১৯১৮-২০১২) একজন স্বনামধন্য সাংবাদিক ছিলেন, তিনি নিউজউইক ম্যাগাজিনে কাজ করতেন এবং মিট দ্য প্রেসফেস দ্য নেশন অনুষ্ঠানে রাজনৈতিক ভাষ্য প্রদান করতেন। তিনি রিচার্ড নিক্সন থেকে মার্টিন লুথার কিং জুনিয়রসহ একাধিক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের সাক্ষাৎকার গ্রহণ করেছেন এবং তার নিজের অনুষ্ঠান ডব্লিউবিবিএম (এএম) উপস্থাপনা করতেন।[২] তার মাতা দলোরেস (বিবাহপূর্ব হ্যানলন; ১৯২১-১৯৯২) কমিউনিটি থিয়েটারের প্রশাসনিক কাজের সহকারী ও অপেশাদার অভিনেত্রী ছিলেন।[৩] অ্যামির দুই ভাই রয়েছে, তারা হলেন জ্যাক ও জিম।

ম্যাডিগান শিকাগোর অ্যাকুইনাস ডোমিনিকান হাই স্কুলে পড়াশোনা করেন এবং সেখানে তিনি বিদ্যালয়ের মঞ্চনাটকে অভিনয় করতেন। ১৯৬০-এর দশকে তিনি শিকাগো কনজারভেটরি অব মিউজিকে পিয়ানো বাজানো শিখেন এবং মার্কেট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দর্শন বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন।[৪] ১৯৭৪ সালে তিনি লস অ্যাঞ্জেলেসে পাড়ি জমান।[৫] ম্যাডিগান পরবর্তীকালে লি স্ট্রাসবার্গ থিয়েটার অ্যান্ড ফিল্ম ইনস্টিটিউটে অভিনয় নিয়ে পড়াশোনা করেন।[৬]

কর্মজীবনসম্পাদনা

ম্যাডিগান ১৯৮২ সালে লাভ চাইল্ড চলচ্চিত্রে টেরি জিন মুর চরিত্রে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে বড় পর্দায় পদার্পণ করেন।[৭] এই কাজের জন্য তিনি বর্ষসেরা নবীন অভিনেত্রী বিভাগে গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। ১৯৮৩ সালে তিনি টেলিভিশন চলচ্চিত্র দ্য ডে আফটার-এ অ্যালিসন র‍্যানসম চরিত্রে অভিনয় করেন।

১৯৮৪ সালে তিনি স্ট্রিটস অব ফায়ার চলচ্চিত্রে ম্যাকয় চরিত্রে এবং অস্কার মনোনীত প্লেসেস ইন দ্য হার্ট চলচ্চিত্র ভায়োলা কেলসি নামক পার্শ্ব চরিত্রে অভিনয় করেন।[৮] তিনি ১৯৮৫ সালের টোয়াইস ইন আ লাইফটাইম চলচ্চিত্রে সানি ম্যাকেঞ্জি-সোবেল চরিত্রে অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে একাডেমি পুরস্কারগোল্ডেন গ্লোব পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন।

১৯৮৯ সালে ম্যাডিগান ফিল্ড অব ড্রিমস চলচ্চিত্রে কেভিন কসনারের স্ত্রীয়ের ভূমিকায় অভিনয় করেন। চলচ্চিত্রটি শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেছিল।[৯] একই বছর তিনি জন হিউজের আঙ্কল বাক চলচ্চিত্রে চেনিস কবলোভ্‌স্কি চরিত্রে অভিনয় করেন। এছাড়া ১৯৮৯ সালে তিনি টেলিভিশন চলচ্চিত্র রো ভার্সাস ওয়েড-এ সারা ওয়েডিংটন চরিত্রে অভিনয় করে সেরা টিভি পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার অর্জন করেন এবং মিনি ধারাবাহিক বা টিভি চলচ্চিত্র বিভাগে সেরা প্রধান অভিনেত্রী বিভাগে প্রাইমটাইম এমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন।

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

ম্যাডিগান ১৯৮৩ সালের ২১শে নভেম্বর অভিনেতা এড হ্যারিসের সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। তাদের এক কন্যা রয়েছে।[১০] অভিনয় জীবনে ম্যাডিগান ও হ্যারিস একাধিকবার একসাথে কাজ করেছেন।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Amy Madigan Biography (1950?-)"ফিল্ম রেফারেন্স। সংগ্রহের তারিখ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ 
  2. ডিজিকস, সিনথিয়া (মার্চ ৭, ২০১২)। "John Madigan, Chicago newsman, dies at 94"শিকাগো ট্রিবিউন (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১১ নভেম্বর ২০২০ 
  3. হেইস, কেনান (সেপ্টেম্বর ১৫, ১৯৯২)। "Teamsters' Dolores H. Madigan, 70"শিকাগো ট্রিবিউন (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১১ নভেম্বর ২০২০ 
  4. জোন্স, এলিজাবেথ (জুন ২২, ২০১৫)। "Did You Know They Went To Marquette?" (ইংরেজি ভাষায়)। দি অডিসি। সংগ্রহের তারিখ ১১ নভেম্বর ২০২০ 
  5. কিং, সুজান (জুলাই ১১, ২০১৫)। "Amy Madigan, stage lover, directs an L.A. play"লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১১ নভেম্বর ২০২০ 
  6. রোজেনফিল্ড, মেগান (এপ্রিল ২৮, ১৯৮৫)। "Amy Madigan Gets The Right Parts But Glamor Isn't In Her Script"অরল্যান্ডো সেন্টিনেল (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১১ নভেম্বর ২০২০ 
  7. মাসলিন, জ্যানেট (১৫ অক্টোবর ১৯৮২)। "BEAU BRIDGES IN 'LOVE CHILD' (Published 1982)"দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১১ নভেম্বর ২০২০ 
  8. "The 57th Academy Awards | 1985"অস্কার (ইংরেজি ভাষায়)। একাডেমি অব মোশন পিকচার আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেস। সংগ্রহের তারিখ ১১ নভেম্বর ২০২০ 
  9. "The 62nd Academy Awards | 1990"অস্কার (ইংরেজি ভাষায়)। একাডেমি অব মোশন পিকচার আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেস। সংগ্রহের তারিখ ১১ নভেম্বর ২০২০ 
  10. "Biography: Ed Harris"লাইফটাইম। নভেম্বর ১৭, ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ নভেম্বর ২০২০ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা