অনলাইন কেনাকাটা

যার মাধ্যমে ভোক্তারা সরাসরি ওয়েব ব্রাউজার বা মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করে ইন্টারনেটের মাধ্যমে বি

অনলাইন কেনাকাটা (ইংরেজি: Online shopping) হল ই-বাণিজ্যের একটি রুপ যার মাধ্যমে ভোক্তারা সরাসরি ওয়েব ব্রাউজার বা মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করে ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিক্রেতার কাছ থেকে পণ্য বা সেবা কিনতে পারে। ভোক্তারা সরাসরি খুচরা বিক্রেতার ওয়েবসাইটে গিয়ে বা কেনাকাটার অনুসন্ধান ইঞ্জিন ব্যবহার করে বিক্রেতাদের মধ্যে অনুসন্ধান করে আগ্রহের পণ্যটি খুঁজে পান, যা কোনো পণ্যের প্রাপ্যতা এবং বিভিন্ন ই-খুচরা বিক্রেতাদের মূল্য প্রদর্শন করে। ২০২০ সাল পর্যন্ত, গ্রাহকরা ডেস্কটপ কম্পিউটার, ল্যাপটপ, ট্যাবলেট কম্পিউটার এবং স্মার্টফোন সহ বিভিন্ন কম্পিউটার এবং ডিভাইস ব্যবহার করে অনলাইনে কেনাকাটা করতে পারেন।

একটি অনলাইন দোকান একটি নিয়মিত খুচরা বিক্রেতা বা শপিং সেন্টারে পণ্য বা পরিষেবা কেনার শারীরিক সাদৃশ্য প্রকাশ করে; প্রক্রিয়াটিকে বলা হয় ব্যবসা-থেকে-গ্রাহক (বি২সি) অনলাইন কেনাকাটা। যখন অন্য ব্যবসা থেকে ব্যবসা কেনার জন্য একটি অনলাইন দোকান স্থাপন করা হয়, তখন এই প্রক্রিয়াটিকে ব্যবসা-থেকে-ব্যবসা (বি২বি) অনলাইন কেনাকাটা বলা হয়। একটি সাধারণ অনলাইন দোকান নির্দিষ্ট পণ্যের ছবি, প্রাপ্যতার সাথে পণ্যেটির বিবরণ, বৈশিষ্ট্য এবং দাম সম্পর্কে গ্রাহককে অবগত করে।

অনলাইন দোকানগুলি সাধারণত ক্রেতাদের নির্দিষ্ট মডেল, ব্র্যান্ড বা আইটেম খুঁজে পেতে "অনুসন্ধান" বৈশিষ্ট্য ব্যবহার করতে সক্ষম করে। ক্রেডিট কার্ড, একটি ইন্টারেক সক্ষম ডেবিট কার্ড অথবা পেপ্যালের মতো একটি পরিষেবা ব্যবহার করে লেনদেন সম্পন্ন করার জন্য অনলাইন গ্রাহকদের অবশ্যই ইন্টারনেট অ্যাক্সেস এবং অর্থ প্রদানের একটি বৈধ মূল্যপরিশোধ পদ্ধতি থাকতে হবে। অনলাইন খুচরা বিক্রয় কর্পোরেশনগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বড় হল আলিবাবা, অ্যামাজন.কম এবং ইবে[১]

পরিভাষাসম্পাদনা

অনলাইন কেনাকাটার বিকল্প নাম হল "ই-টেইলিং", "ইলেকট্রনিক দোকান" বা "ই-শপিং", যা "ইলেকট্রনিক শপিং" এর সংক্ষিপ্ত রূপ। একটি অনলাইন দোকানকে ই-ওয়েব-স্টোর, ই-শপ, ই-স্টোর, ইন্টারনেট শপ, ওয়েব-শপ, ওয়েব-স্টোর, অনলাইন স্টোর, অনলাইন স্টোরফ্রন্ট এবং ভার্চুয়াল স্টোরও বলা হয়। মোবাইল কমার্স (বা এম-কমার্স) একটি অনলাইন খুচরা বিক্রেতার মোবাইল ডিভাইস-অপ্টিমাইজড ওয়েবসাইট বা এপ্লিকেশন সফটওয়্যার ("অ্যাপ") থেকে ক্রয়ের বর্ণনা দেয়। এই ওয়েবসাইটগুলি বা অ্যাপগুলি গ্রাহকদের ট্যাবলেট কম্পিউটার এবং স্মার্টফোনে একটি কোম্পানির পণ্য এবং পরিষেবার মাধ্যমে ব্রাউজ করতে সক্ষম করার জন্য ডিজাইন করা হয়েছে।

ইতিহাসসম্পাদনা

অনলাইনে পরিচালিত ব্যবসার অন্যতম প্রাথমিক ধরন ছিল আইবিএম-এর অনলাইন লেনদেন প্রক্রিয়াকরণ (ওএলটিপি), যা ১৯৬০-এর দশকে বিকশিত হয়েছিল এবং এটি প্রকৃত সময়ে আর্থিক লেনদেন প্রক্রিয়াকরণের অনুমতি দেয়। আমেরিকান এয়ারলাইন্সের জন্য সেমি-অটোমেটিক বিজনেস রিসার্চ এনভায়রনমেন্ট (এসএবিইআর) নামে যে কম্পিউটারাইজড টিকিট রিজার্ভেশন সিস্টেম তৈরি করা হয়েছিল তা ছিল এর অন্যতম একটি অ্যাপ্লিকেশন। এখানে, বিভিন্ন ভ্রমণ সংস্থাতে অবস্থিত কম্পিউটার টার্মিনালগুলিকে একটি বড় আইবিএম মেইনফ্রেম কম্পিউটারের সাথে সংযুক্ত করা হয়েছিল, যা একই সাথে লেনদেন প্রক্রিয়া করে এবং তাদের সমন্বয় করে যাতে সমস্ত ভ্রমণ প্রতিনিধি একই সময়ে একই তথ্যের প্রবেশাধিকার পায়।[২]

অনলাইন কেনাকাটার উত্থান ইন্টারনেটের উত্থানের সাথে বিকশিত হয়েছে।[৩] প্রাথমিকভাবে, পণ্য সম্পর্কে তথ্য প্রদান করার মাধ্যমে এই প্ল্যাটফর্মটি শুধুমাত্র কোম্পানিগুলির জন্য একটি বিজ্ঞাপন সরঞ্জাম হিসাবে কাজ করে। প্রথমদিকে, অনলাইনে অল্প সংখ্যক ক্রেতা ছিল এবং তারা ছিল একটি সংকীর্ণ অংশ।

গ্রাহকসম্পাদনা

একটি লেনদেন সম্পন্ন করার জন্য অনলাইন গ্রাহকদের অবশ্যই ইন্টারনেট অ্যাক্সেস এবং অর্থ প্রদানের একটি বৈধ পদ্ধতি থাকতে হবে। সাধারণত, উচ্চতর শিক্ষার স্তর এবং ব্যক্তিগত আয় অনলাইনে কেনাকাটার জন্য আরও অনুকূল ধারণার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ। প্রযুক্তির প্রকাশ বৃদ্ধি নতুন শপিং চ্যানেলের প্রতি অনুকূল মনোভাব গড়ে তোলার সম্ভাবনাও বাড়ায়।[৪]

পণ্য নির্বাচনসম্পাদনা

ভোক্তারা সরাসরি খুচরা বিক্রেতার ওয়েবসাইটে গিয়ে বা কেনাকাটার অনুসন্ধান ইঞ্জিন ব্যবহার করে বিক্রেতাদের মধ্যে অনুসন্ধান করে আগ্রহের পণ্য খুঁজে পান। একবার একটি নির্দিষ্ট পণ্য বিক্রেতার ওয়েবসাইটে পাওয়া গেলে, বেশিরভাগ অনলাইন খুচরা বিক্রেতারা শপিং কার্ট সফ্টওয়্যার ব্যবহার করে যা ভোক্তাকে একাধিক পণ্য জমা এবং পরিমাণ সামঞ্জস্য করতে দেয়, যেমনটি একটি প্রচলিত দোকানে গ্রহকগণ একটি বাস্তব শপিং কার্ট বা ঝুড়ি ভর্তি করে। একটি "চেকআউট" প্রক্রিয়া অনুসরণ করে (প্রচলিত দোকানের সাদৃশ্য অব্যাহত রাখা) যেখানে প্রয়োজনীয় অর্থ প্রদান এবং বিতরণের তথ্য সংগ্রহ করা হয়। কিছু অনলাইন দোকান ভোক্তাদের একটি স্থায়ী অনলাইন অ্যাকাউন্টের জন্য সাইন আপ করার অনুমতি দেয় যাতে এইসকল তথ্যগুলির কিছু বা সমস্ত শুধুমাত্র একবার প্রবেশ করার প্রয়োজন পড়ে। লেনদেন সম্পন্ন হলে ভোক্তা প্রায়ই একটি নিশ্চিতকরণ ই-মেইল পায়। কম অত্যাধুনিক দোকান গ্রাহকদের অর্ডার ফোন বা ই-মেইলের মাধ্যমে নিয়ে থাকে (যদিও নিরাপত্তার কারণে সম্পূর্ণ ক্রেডিট কার্ড নম্বর, মেয়াদ শেষ হওয়ার তারিখ ও কার্ডের সিকিউরিটি কোড,[৫] বা ব্যাংক অ্যাকাউন্ট এবং রাউটিং নম্বর ই-মেইলে প্রদান করা উচিত নয়)।

মূল্যপরিশোধসম্পাদনা

অনলাইন ক্রেতারা সাধারণত মূল্যপরিশোধ করার জন্য ক্রেডিট কার্ড বা পেপাল অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে। এছাড়াও, কিছু পদ্ধতি ব্যবহারকারীদের অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে এবং বিকল্প উপায়ে অর্থ প্রদান করতে সক্ষম করে, যেমন:

কিছু অনলাইন দোকান আন্তর্জাতিক ক্রেডিট কার্ড গ্রহণ করে না। ক্রেতার বিলিং এবং পাঠানো ঠিকানা উভয়ই একই দেশের হতে হবে যা অনলাইন দোকানের অপারেশনের ভিত্তি। অন্যান্য অনলাইন দোকানগুলি যে কোনও দেশ থেকে গ্রাহকদের যে কোনও জায়গায় উপহার পাঠানোর অনুমতি দেয়।

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "The Alibaba phenomenon"The Economist। ২০১৩-০৩-২৩। আইএসএসএন 0013-0613। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১০ 
  2. The Internet : a historical encyclopedia। Hilary W. Poole, Laura Lambert, Chris Woodford, Christos J. P. Moschovitis। Santa Barbara, Calif.। ২০০৫। আইএসবিএন 1-85109-664-7ওসিএলসি 62211803 
  3. Managing e-commerce in business। J. A. R. Botha, C. H. Bothma, P. Geldenhuys (2nd ed সংস্করণ)। Cape Town, South Africa: Juta। ২০০৮। আইএসবিএন 978-0-7021-7304-2ওসিএলসি 213861943 
  4. Bigne, Enrique (2005)। "The Impact of Internet User Shopping Patterns and Demographics on Consumer Mobile Buying Behavior" (PDF)Journal of Electronic Commerce Research। ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৪ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১ 
  5. "PCI Data Storage Do's and Don'ts" (PDF) 
  6. "Mopay Now Allows You To Bill Mobile Payments To A Landline Account"TechCrunch (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৯-১০ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা