৩০০ (চলচ্চিত্র)

৩০০ (ইংরেজি ভাষায়: 300) ২০০৬ সালের একটি মার্কিন রোমাঞ্চকর অ্যাকশন চলচ্চিত্র। ছবিটি পরিচালনা করেছেন জ্যাক স্নাইডার। এটি ১৯৯৮ সালে ফ্রাঙ্ক মিলার রচিত একই নামের কমিক ধারাবাহিক অবলম্বনে নির্মিত। এতে স্পার্টার রাজা লিউনিডাস চরিত্রে অভিনয় করেন জেরার্ড বাটলার, রাণী গর্গো চরিত্রে লিনা হিডি, ও পার্সিয়ার রাজা জার্জেস চরিত্রে রদ্রিগো সান্টোরো

৩০০ (চলচ্চিত্র)
৩০০ (চলচ্চিত্র).jpg
পরিচালকজ্যাক স্নাইডার
প্রযোজক
  • গিয়ানি নুনারি
  • মার্ক ক্যান্টন
  • ব্যারনি গোল্ডম্যান
  • জ্যানিফার সিলভার
চিত্রনাট্যকার
  • জ্যাক স্নাইডার
  • কার্ট জনস্ট্যান্ড
  • মিখাইল বি. গর্ডন
উৎসফ্রাঙ্ক মিলার
লিন ভার্লি কর্তৃক 
৩০০
শ্রেষ্ঠাংশে
বর্ণনাকারীডেভিড ওয়েনাম
সুরকারটেইলর বেইটস
চিত্রগ্রাহকল্যারি ফং
সম্পাদকউইলিয়াম হ
প্রযোজনা
কোম্পানি
লিজেন্ডারি পিকচার্স
ভার্চুয়াল স্টুডিও
ক্রুয়েল অ্যান্ড আনইউজুয়াল ফিল্মস
এটমোস্ফিয়ার পিকচারস
হলিউড গ্যাং
পরিবেশকওয়ার্নার ব্রস. পিকচারস
মুক্তি৯ই ডিসেম্বর, ২০০৬
(বাট-নাম্ব-অ্যা-থন)
৯ই মার্চ, ২০০৭ (যুক্তরাষ্ট্র)
দৈর্ঘ্য১১৭ মিনিট
দেশযুক্তরাষ্ট্র
ভাষাইংরেজি
নির্মাণব্যয়$৬৫ মিলিয়ন[১]
আয়$৪৫৬,০৬৮,১৮১[২]

কাহিনী সংক্ষেপসম্পাদনা

৪৭৯ খ্রিস্টপূর্বাব্দে থার্মোপাইল যুদ্ধের এক বছর পরে, স্পার্টার সেনা ডিলিউস লিউনিডাসের শৈশব থেকে স্পার্টার মতবাদ অনুযায়ী রাজা হওয়ার গল্প করেন। তার গল্প চলতে থাকে। পার্সিয়ার দূতের স্পার্টায় এসে স্পার্টার 'ভূমি ও জল' রাজা জার্জেসের কাছে সমর্পণ করার জন্য বলে। স্পার্টানরা উত্তরে দূতকে হত্যা করে এবং তাকে লাথি দিয়ে কূপে ফেলে দেয়। লিউডিনাস পরে ইফোরসের সাথে দেখা করে এবং সংখ্যায় অধিক পার্সিয়ানদের হট গেইটে আটকে রাখার প্রস্তাব দেয়।

ইফোরস সম্মতি না দিলেও লিউনিডাস স্পার্টার ৩০০ দক্ষ সৈন্য নিয়ে পার্সিয়ানদের পথ রোধ করতে যায়। পথে আর্কাডিয়ানরা তাদের সাথে যোগ দেয়। থার্মোপাইলে তারা পাথর দিয়ে দেয়াল নির্মাণ করে এবং পার্সিয়ান চরদের হত্যা করে। দক্ষ স্পার্টা সেনা স্টেলিউস এক চরকে জার্জেসকে সতর্ক করে দিতে বলে। পথিমধ্যে লিউনিডাসের এফাইল্টসের সাথে দেখা হয়। এফাইল্টস কদাকার স্পার্টান যার বাবা-মা তাকে নিয়ে পালিয়ে গিয়েছিল। সে লিউনিডাসকে তাকে সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়ার অনুমতি চায় এবং গোপন পথের কথা বলে যেখান দিয়ে পার্সিয়ানরা তাদের আক্রমণ করতে পারে এবং ঘিরে ফেলতে পারে। কিন্তু রাজা তার শারীরিক অবস্থার কারণে তাকে মানা করলে এফাইল্টস ক্ষুব্ধ হয়।

স্পার্টানরা অস্ত্র ত্যাগ না করলে যুদ্ধ শুরু হয়। হট গেইটের সাহায্যে তারা সহজেই পার্সিয়ানদের কাবু করে ফেলে। যুদ্ধ চলাকালীন জার্জেস নিজে লিউনিডাসের সাথে কথা বলে এবং তাকে আত্মসমর্পণ করতে বলে। লিউনিডাস অসম্মতি জানায় এবং তার দুর্বল সেনা বাহিনীকে নিয়ে ঠাট্টা করে। উত্তরে সেই রাতে জার্জেস তার সেরা রক্ষীদের প্রেরণ করে। কয়েক জন স্পার্টান সৈন্য মারা গেলেও তারা বীরদর্পে তাদের প্রতিহত করে। দ্বিতীয় দিন জার্জেস যুদ্ধহাতিসহ নতুন সেনাবাহিনী প্রেরন করে স্পার্টানদের পিষে মারার জন্য কিন্তু তাতেও কাজ হয় না। ইতিমধ্যে এফাইল্টস জার্জেসের সাথে দেখা করে এবং তাকে গোপন পথের কথা বলে দেয়। আর্কাডিয়ানরা এফাইল্টসের বিশ্বাসঘতকতার কথা জানতে পেরে সৈন্য প্রত্যাহার করে নেয় কিন্তু স্পার্টানরা যুদ্ধ চালিয়ে যায়। লিউনিডাস যুদ্ধাহত ডিলিউসকে স্পার্টায় ফিরে সেখানে কি হয়েছে তা বলার জন্য পাঠিয়ে দেয়।

অভিনয়শিল্পীসম্পাদনা

  • জেরার্ড বাটলার -রাজা লিউনিডাস (স্পার্টার রাজা)
  • লিনা হিডি - রাণী গর্গো (স্পার্টার রাণী)[৩]
  • ডেভিড ওয়েনাম - ডিলিউস, কাহিনীক ও স্পার্টার সেনা
  • রদ্রিগো সান্টোরো - রাজা জার্জেস, পার্সিয়ার রাজা
  • জোভানি চিমীনো - প্ল্যাইস্টারকাস (লিউডিনাস ও গর্গোর পুত্র, কিন্তু বইয়ে তার চরিত্র ছিল না)[৩]
  • ডমিনিক ওয়েস্ট -থ্যারন (স্পার্টার কাল্পনিক অসাধু রাজনীতিবিদ, কিন্তু বইয়ে তার চরিত্র ছিল না)[৩]
  • ভিনসেন্ট রিগ্যান - ক্যাপ্টেন আরটেমিস (লিওডিনাসের বিশ্বস্ত ক্যাপ্টেন ও বন্ধু)
  • টম উইজডম - এসটিনোস (ক্যাপ্টেন আর্টেমিসের বড় পুত্র)[৩]
  • অ্যান্ড্রু প্লিয়াভিন - ডেক্সস, আর্কাডিয়ান নেতা যে লিওডিনাসের সাতে যোগ দেয়
  • অ্যান্ড্রু তিরনান - এফাইল্টস, স্পার্টা থেকে বিতাড়িত ও বিশ্বাসঘাতক
  • স্টিফেন ম্যাকহাটি - বিশ্বস্ত স্পার্টার রাজনৈতিক
  • মাইকেল ফাসবেন্ডার - স্টেলিউস, দক্ষ স্পার্টা সেনা
  • পিটার মেনসা - পার্সিয়ান দূত, যাকে লিওডিনাস লাথি দিয়ে কূপে ফেলে দেয়
  • কেলি ক্রেইগ - পিথিয়া
  • টেইলর নেইৎজেল - যুবক লিওনিডাস
  • রবার্ট মাইলেট - উবার দৈত্য
  • প্যাট্রিক সাবনগুই - পার্সিয়ার সেনাপ্রধান
  • লিয়ন লেডারেচ - ঘাতক
  • টাইরন বেনস্কিন - পার্সিয়ান দূত

সঙ্গীতসম্পাদনা

বক্স অফিসসম্পাদনা

উত্তর অ্যামেরিকায় ছবিটি মার্চ ৯, ২০০৭ সালে মুক্তি পায়।[৪] উত্তর অ্যামেরিকায় মুক্তির প্রথম দিনেই $২৮,১০৬,৭৩১ এবং সপ্তাহ শেষে $৭০,৮৮৫,৩০১ আয় করে।

সিক্যুয়েলসম্পাদনা

২০০৮ সালের জুনে প্রযোজক মার্ক ক্যান্টন, গিয়ানি নুনারি ও বার্নি গোল্ডম্যান ঘোষণা দেয় ৩০০ ছবির সিক্যুয়েল ৩০০: রাইজ অফ অ্যান এম্পায়ার ছবির কাজ শুরু হয়েছে।[৫] লিজেন্ডারি পিকচার্স ঘোষণা দেয় ফ্রাঙ্ক মিলার লেখার কাজ শুরু করেছেন এবং জ্যাক স্নাইডার পরিচালনা করতে ইচ্ছুক, কিন্তু পরে তিনি সুপারম্যান সিরিজের ম্যান অফ স্টিল ছবি পরিচালনার কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়েন।[৬][৭] ফলে নোয়াম মুরোকে পরিচালনার সুযোগ দেওয়া হলেও জ্যাক স্নাইডার ছবিটির প্রযোজনার সাথে জড়িত ছিলেন। এই চলচ্চিত্রে এথেন্সের সেনাপ্রধান থেমিস্টোকলের চরিত্রে অভিনয় করেন অস্ট্রেলীয় অভিনেতা সুলিভান স্ট্যাপলসন। ছবিটি ২০১৪ সালের ৭ মার্চ মুক্তি পায়।[৮]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Corliss, Richard (মার্চ ১৪, ২০০৭)। "7 Reasons Why 300 Is a Huge Hit"টাইম। ১৫ অক্টোবর ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ 
  2. "300 (2007)"Box Office Mojo। ১৩ মার্চ ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ 
  3. "300 Comic To Movie Comparison ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৭ জুলাই ২০১১ তারিখে." About.com
  4. "Movie '300' to Be Simultaneously Released as IMAX Film"। KEYT-TV। জানুয়ারি ২৫, ২০০৭। ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ 
  5. Frosty (জুন ২৫, ২০০৮)। "Producers Mark Canton, Gianni Nunnari and Bernie Goldmann Exclusive Video Interview"Collider.com। জুন ২৮, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ২৬, ২০০৮ 
  6. Diane Garrett (জুন ২৯, ২০০৮)। "New 300 rallies troops"VarietyReed Business Information। জুলাই ৩, ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ৩০, ২০০৮ 
  7. Mike Fleming (জুন ২৭, ২০১১)। "'Xerxes' Pic Down To Noam Murro And Jaume Collett-Serra For '300' Spinoff"Deadline Hollywood। সংগ্রহের তারিখ জুন ২৭, ২০১১ 
  8. "'300' The Prequel: Meet The New Xerxes"Moviepilot.com। ফেব্রুয়ারি ৮, ২০১২। ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ৯, ২০১২ 

আরও পড়ুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা