হল প্রভাব বলতে যখন কোনো তড়িৎবাহী পরিবাহীকে চৌম্বক ক্ষেত্রে স্থাপন করা হয়, তখন পরিবাহীতে প্রবাহ এবং চৌম্বকক্ষেত্র উভয়ের দিকের সাথে সমকোণে একটি বিভব পার্থক্য সৃষ্টি হয়, এ অবস্থাকে বোঝান হয়। মার্কিন বিজ্ঞানী এডুইন হল (Edwin hall, 1855-1938) ১৮৭৯ সালে সর্ব প্রথম এই ঘটনা পর্যবেক্ষণ করেন বলে তাঁর নাম অনুসারে একে হল প্রভাব (Hall effect) এবং উৎপন্ন বিভব পার্থক্যকে হল বিভব বা হল ভোল্টেজ (Hall voltage) বলা হয়।[১]

তড়িচ্চুম্বকত্ব
VFPt Solenoid correct2.svg
তড়িৎ · চুম্বকত্ব
Diagram of Hall effect current transducer integrated into ferrite ring.

সংজ্ঞাসম্পাদনা

কোনো তড়িৎবাহী পরিবাহীকে চৌম্বকক্ষেত্রে স্থাপন করলে তড়িৎপ্রবাহ ও চৌম্বকক্ষেত্র উভয়ের সমকোণে একটি বিভব পার্থক্য সৃষ্টি হয়। এই ঘটনাকে হল ক্রিয়া বলে।

বৈশিষ্ট্যসম্পাদনা

হল প্রভাবের বৈশিষ্ট্য হল বায়ু বা শূন্যস্থানে গতিশীল আধান যেমন বল অনুভব করে, কোনো পরিবাহীতে আধানের গতির কারণে ও আধানগুলোর উপর সেরুপ বল প্রযুক্ত হয়। ফলে তড়িৎবাহী কোনো পরিবাহীতে চৌম্বকক্ষেত্র প্রয়োগ করলে গতিশীল আধানগুলো তাদের উপর প্রযুক্ত বলের কারণে স্বাভাবিক গতিপথ হতে বিচ্যুত হয়ে পরিবাহীর এক প্রান্তের দিকে চলে যায়। অন্যপ্রান্তে বিপরীত আধানের আধিক্য ঘটে। ফলে দুই প্রান্তের মধ্যে একটি বিভব পার্থক্য সৃষ্টি হয়। হল প্রভাবের সাহায্যে আধান বাহকের প্রকৃতি, ঘনত্ব, এবং প্রযুক্ত চৌম্বকক্ষেত্রের মান নির্ণয় করা যায়।

আরোও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Edwin Hall (১৮৭৯)। "On a New Action of the Magnet on Electric Currents"American Journal of Mathematics। American Journal of Mathematics, Vol. 2, No. 3। 2 (3): 287–92। জেস্টোর 2369245ডিওআই:10.2307/2369245। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০২-২৮ 

আরোও পড়ুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

পেটেন্ট
সাধারণ