স্বাস্থ্যকর শহর

স্বাস্থ্যকর শহর শব্দটি জনস্বাস্থ্য এবং নগর নকশা এই দুটি বিষয় এ ব্যবহৃত হয় যা মানব স্বাস্থ্য নীতির প্রভাবকে বুঝায়। এটি একটি পৌরসভা যা ক্রমাগত শারীরিক এবং সামাজিক স্তরে উন্নত হয় যেন পরিবেশগত এবং রোগগত অবস্থায় ভুক্ত জনসংখ্যার জন্য একটি গ্রহণযোগ্য মাত্রায় অসুস্থতার হার প্রতিষ্ঠা করা যায়।[১] এর আধুনিক ধারণাটি ১৯৮৬ সালে স্বাস্থ্যকর শহর ও গ্রামে একটি অনুষ্ঠিত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডাব্লুএইচও) এর একটি উদ্যোগ থেকে প্রাপ্ত, তবে ১৯ শতকের মাঝামাঝি সময়েও এই ধারণা ব্যবহার এর ইতিহাস রয়েছে। [২] শব্দটি ইউরোপীয় ইউনিয়ন এর সাথে মিলে তৈরি করা হয়েছিল, তবে স্বাস্থ্য প্রচার এর মাধ্যমে স্থানীয় পর্যায়ে স্বাস্থ্যকর জননীতি প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে দ্রুত আন্তর্জাতিক হয়ে ওঠে। [৩] এটি ডব্লুএইচওর সংবিধানে বর্ণিত স্বাস্থ্য এর বহু-মাত্রিকতার উপর জোর দিয়েছে এবং আরও সম্প্রতি, স্বাস্থ্য উন্নয়নের জন্য অটোয়া সনদ প্রদানের ওপর দিয়েছে।[৪] স্বাস্থ্যকর শহর শব্দটির বিকল্প শব্দটি হল স্বাস্থ্যকর সম্প্রদায়, বা লাতিন আমেরিকার কিছু অংশে পৌরসভা সালিউডেবল হিসেবে পরিচিত।

কোপেনহেগেনে ছুটে যাওয়ার সময়, যেখানে ৬২% জন লোক সাইকেল চালিয়ে প্রতিদিন তাদের কাজ বা পড়াশোনার জায়গায় যান

পন্থাসম্পাদনা

অনেকগুলি এখতিয়ারে বলা হয়েছে যে যাদের স্বাস্থ্যকর সম্প্রদায়ভিত্তিক সংস্থা রয়েছে, তাদের ঐ সংস্থা এবং শহরগুলো, ডব্লিউএইচও- এর মনোনীত "স্বাস্থ্যকর শহর" হওয়ার জন্য আবেদন করতে পারে। "স্বাস্থ্যকর শহর" বলতে ডব্লিউএইচও যা বুঝিয়েছে তা হলো:[৫]

" এটি একটি এমন শহর যা ক্রমাগত শারীরিক এবং সামাজিক পরিবেশ তৈরি ও উন্নত করে চলেছে এবং সেই শহরের সাম্প্রদায়িক সংস্থানগুলিকে প্রসারিত করে যেন লোকেরা জীবনের সমস্ত কাজ সম্পাদনে একে অপরকে সমর্থন করতে পারে এবং তাদের সর্বাধিক সম্ভাবনাময় বিকাশ সক্ষম হয়"।

প্রয়োজনীয় সূচকগুলি পরিমাপ করা, মান প্রতিষ্ঠা করা, এবং স্বাস্থ্যের উপর প্রতিটি উপাদানের প্রভাব নির্ধারণ করা কঠিন। ইউরোপের মতো কিছু অঞ্চলে, জন নীতি বিকাশের জন্য স্বাস্থ্যের ওপর প্রভাব মূল্যায়ন করা হল অতীব প্রয়োজনীয় একটি কাজ। [৬][৭]

ইউরোপ সহ স্বাস্থ্যকর শহরগুলির অনেকগুলি নেটওয়ার্ক রয়েছে [৮] এবং আন্তর্জাতিকভাবে, যেমন স্বাস্থ্যকর শহরগুলির জন্য জোট এমনই একটি। নগর নকশা এবং নগর প্রশাসনের কাজে স্বাস্থ্যের সামাজিক নির্ধারককে বিবেচনা করা হয়। একটি মূল বৈশিষ্ট্য নিশ্চিত করা হয় এই বিবেচনার বিষয়ে। উদাহরণস্বরূপ, "নগরায়ণ এবং স্বাস্থ্য" ছিল ২০১০ বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস এর থিম।[৯] স্বাস্থ্যকর শহরগুলির বিকাশের একটি সরঞ্জাম হল সামাজিক উদ্যোগ[১০]

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Caves, R. W. (২০০৪)। Encyclopedia of the City। Routledge। পৃষ্ঠা 336। 
  2. Niyi Awofeso. The Healthy Cities approach — reflections on a framework for improving global health. Bull World Health Organ 2003; 81(3).
  3. O'Neill M, Simard P. Choosing indicators to evaluate Healthy Cities projects: a political task? Health Promotion International 2006; 21(2): 145-152.
  4. World Health Organization.Healthy Cities and urban governance. Copenhagen: WHO Europe.
  5. World Health Organization. Health Promotion Glossary 1998.
  6. WHO Europe. Health impact assessment methods and strategies.
  7. Erica Ison. The introduction of health impact assessment in the WHO European Healthy Cities Network. Health Promotion International 2009; 24(Supplement 1):i64-i71.
  8. WHO Europe. WHO European Healthy Cities Network. ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২০১৩-০৫-২১ তারিখে
  9. World Health Organization.World Health Day 2010. ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২০১০-০৪-০৭ তারিখে
  10. Evelyne de Leeuw. Healthy Cities: urban social entrepreneurship for health. Health Promotion International 1999; 14(3): 261-270.

আরও পড়ুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা