সুসান বিশ্বনাথন

সমাজবিজ্ঞানী

সুসান বিশ্বনাথন (জন্ম ১৯৫৭) হলেন একজন ভারতীয় সমাজবিজ্ঞানী, সামাজিক নৃবিজ্ঞানী এবং একজন কল্পবিজ্ঞান লেখিকা। তিনি তাঁর ধর্মীয় কথাবার্তা এবং ধর্মীয় সমাজবিদ্যার জন্যে সুপরিচিত। তাঁর প্রথম বই: 'খ্রিশ্চিয়ান্স অফ কেরালা: বিলিফ অ্যান্ড রিচুয়াল অ্যামং দ্য ইয়াকোবা' (অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি প্রেস) সমাজবিদ্যা ও ধর্মের ক্ষেত্রে একটা অগ্রণী কাজ।

তিনি সমাজবিদ্যার একজন অধ্যাপক এবং দিল্লির জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয় (জেএনইউ) সেন্টার ফর দ্য স্টাডি অফ সোশ্যাল সিস্টেমসের প্রাক্তন সভানেত্রী।[১]

প্রারম্ভিক জীবন ও পশ্চাৎপটসম্পাদনা

সুসান বিশ্বনাথন দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় এবং দিল্লির জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছেন। জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজবিদ্যায় এমএ সম্পূর্ণ করার পর তিনি তাঁর এমফিল অর্জন করেন। এবং দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের দিল্লি স্কুল অফ ইকনমিক্সের সমাজবিদ্যা বিভাগ থেকে তিনি পিএইচডি উপাধি পান। বিশিষ্ট সমাজবিজ্ঞানী এবং নৃতত্ত্ববিদ বীণা দাসের তত্ত্বাবধানে সুসান তাঁর পিএইচডি সম্পূর্ণ করেছিলেন।

কর্মজীবনসম্পাদনা

সুসান ১৯৮৩ খ্রিস্টাব্দে হিন্দু কলেজ, দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষাঙ্গনে প্রবীণ প্রভাষক হিসেবে তাঁর কর্মজীবন শুরু করেছিলেন। ১৯৮৯ থেকে ১৯৯৭ পর্যন্ত তিনি সেখানে সমাজবিদ্যা বিভাগের প্রধান ছিলেন। তিনি ১৯৯৭ খ্রিস্টাব্দে জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের (জেএনইউ) সেন্টার ফর দ্য স্টাডি অফ সোশ্যাল সিস্টেমসে যোগদান করেন, সেখানে তিনি বর্তমানে একজন প্রফেসর। তিনি ধর্ম সমাজতত্ত্ব, ঐতিহাসিক নৃবিজ্ঞান, ধ্রুপদী সামাজিক তত্ত্ব এবং লিঙ্গ অধ্যয়ন শিক্ষা দেন। ২০১০ থেকে ২০১২ পর্যন্ত তিনি জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অফ সোশ্যাল সায়েন্সেসের সেন্টার ফর দ্য স্টাডি অফ সোশ্যাল সিস্টেমসের সভানেত্রী ছিলেন।[২]

১৯৯০-১৯৯৫ সময়কালে তিনি ইন্ডিয়ান ইন্সটিটিউট অফ অ্যাডভান্সড স্টাডির সম্মানিত ফেলো এবং ১৯৮৯-৯২ খ্রিস্টাব্দে নয়াদিল্লির নেহরু মেমোরিয়াল মিউজিয়াম অ্যান্ড লাইব্রেরির ফেলো ছিলেন। ১৯৯৭ খ্রিস্টাব্দে তিনি কুইন ইউনিভার্সিটি বেলফাস্ট-এ সামাজিক নৃবিজ্ঞানে চার্লস ওয়ালেস ফেলো ছিলেন। তিনি প্যারিসের মেইসন ডেস সায়েন্সেস ডে এল'হোমসে (২০০৪), প্যারিস ১৩ ইউনিভার্সটিতে (২০১১) আমন্ত্রণী প্রফেসর ছিলেন। তিনি ফ্রেই ইউনিভার্সিটি, বার্লিন এবং সান্তা ক্রুজ ও সান দিয়েগোতে ইউনিভার্সিটি অফ ক্যালিফোর্নিয়া, সাউথ এশিয়া নেটওয়র্ক অ্যাট লুন্ড ইউনিভার্সিটি, সুইডেন এবং মোনা ক্যাম্পাসে ইউনিভার্সিটি অফ জামাইকাতে অতিথি অনুষদ হয়েছেন। তিনি ১৯৮৭-৮৯ খ্রিস্টাব্দে জেনেভার ওয়র্ল্ড কাউন্সিল অফ চার্চেস সংস্থায় সম্মানিত পরামর্শদাতা, ১৯৯৪ থেকে ১৯৯৯ এবং ২০০৯ পরবর্তী সময়ে অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি প্রেস, নয়াদিল্লির পরামর্শদাতা এবং ২০১১ খ্রিস্টাব্দে ফ্রেই ইউনিভার্সিটি, বার্লিনের পরামর্শদাতা হয়েছেন। তিনি সেন্ট্রাল ইউরোপিয়ান ইউনিভার্সিটি (সিইইউ), বুদাপেস্টের (২০১৮-২০১৯) গবেষণা উৎকৃষ্টতা ফেলো ছিলেন।

সুসান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শীত এবং গ্রীষ্মাবকাশের ফাঁকে গল্পও লিখতেন এবং তাঁর প্রসারিত জ্ঞানের আধার থেকে প্রাণবন্ত গদ্যে ছোটো গল্প ও উপন্যাসসহ কথাসহিত্য রচনা করেছেন।[৩]

লিখিত বইসম্পাদনা

  • দ্য ক্রিশ্চিয়ান্স অফ কেরালা, বিলিফ অ্যান্ড রিচুয়াল অ্যামং দ্য ইয়াকোবা। অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি প্রেস, ১৯৯৩। ২০১০ খ্রিস্টাব্দে অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি প্রেস থেকে সপ্তম পেপারব্যাক পুনর্মুদ্রণ।
  • মিশনারি স্টাইলস অ্যান্ড দ্য প্রবলেম অফ ডায়ালগ। ইন্ডিয়ান ইন্সটিটিউট অফ অ্যাডভান্সড স্টাডি, শিমলা, ১৯৯৩।
  • অ্যান এথনোগ্রাফি অফ মিস্টিসিজম: দ্য জার্নি অফ আ ফ্রেঞ্চ মংক ইন ইন্ডিয়া। ইন্ডিয়ান ইন্সটিটিউট অফ অ্যাডভান্সড স্টাডি, ১৯৯৮।
  • স্ট্রাকচার অ্যান্ড ট্রান্সফর্মেশন: থিয়োরি অ্যান্ড সোসাইটি ইন ইন্ডিয়া। অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি প্রেস। দিল্লি, ২০০০।
  • ফ্রেন্ডশিপ, ইন্টিরিয়োরিটি অ্যান্ড মিস্টিসিজম: এসেস ইন ডায়ালগ, ওরিয়েন্ট লংম্যান, (ব্ল্যাক ওরিয়েন্ট সোয়ান) ২০০৭।
  • চিল্ড্রেন অফ নেচার: দ্য লাইফ অ্যান্ড লেগাসি অফ রামানা মহর্ষি, (রলি বুকস, ২০১০)।
  • রিডিং মার্কস, ওয়েবার অ্যান্ড দুর্খেইম টুডে, (পাম লিফ পাবলিকেশন্স, ২০১২)।
  • কালচার অ্যান্ড সোসাইটি (রিডিংস ইন ইন্ডিয়ান সোসিয়োলজি, ভলিউম XI), (সেজ, ২০১৪)।
  • আর্ট, পলিটিক্স, সিম্বলস অ্যান্ড রিলিজিয়ন: আ রিডার ফর হিউম্যানিটিজ অ্যান্ড ডিজাইন (উইনশিল্ড, ২০১৯)।
  • স্ট্রাকচার, ইনোভেশন অ্যান্ড অ্যাডাপ্টেশন: কন্সেপ্টস অ্যান্ড এম্পিরিক্যাল পাজলস ইন আ পোস্টমডার্ন মিলিউ (উইনশিল্ড, ২০১৯)।
  • ক্রোনোলজি অ্যান্ড ইভেন্টস: দ্য সোসিয়োলজিক্যাল ল্যান্ডস্কেপ অফ চেঞ্জিং কন্সেপ্টস (উইনশিল্ড, ২০১৯)।

সাহিত্যরচনাসম্পাদনা

  • সামথিং বেয়ারলি রিমেম্বার্ড (ফ্লেমিঙ্গো ২০০০ অ্যান্ড রোলি ইন্ডিয়াইঙ্ক, ২০০০)।
  • দ্য ভিজিটিং মুন (রোলি ইন্ডিয়াইঙ্ক, ২০০২)।
  • ফসফরাস অ্যান্ড স্টোন (পেঙ্গুইন অ্যান্ড জুবান, ২০০৭)।
  • দ্য সেইন অ্যাট নুন (রোলি ইন্ডিয়াইঙ্ক, ২০০৭)।
  • নেলিসিন্ডা অ্যান্ড আদার স্টোরিজ (রোলি বুকস, ২০১২)।
  • আদি শংকরা অ্যান্ড আদার স্টোরিজ (প্যাপিরাস স্ক্রোলস, ২০১৭)।

নির্বাচিত প্রবন্ধাবলি (পত্রিকাসমূহ)সম্পাদনা

  • রিকনস্ট্রাকশন্স অফ দ্য পাস্ট অ্যামং দ্য সিরিয়ান ক্রিশ্চিয়ান্স অফ কেরালা, কন্ট্রিবিউশন্স টু দ্য ইন্ডিয়ান সোসিয়োলজি (ঋষি), জুলাই ১৯৮৬।
  • বিবাহ, জন্ম এবং মৃত্যু: প্রপার্টি রাইটস অ্যান্ড ডোমেস্টিক রিলেসন্সশিপস অফ দ্য অর্থোডক্স/জ্যাকোবাইট সিরিয়ান ক্রিশ্চিয়ান্স অফ কেরালা, ইকনমিক অ্যান্ড পলিটিক্যাল উইকলি, ভলিউম XXIV, নম্বর ২৪, ১৭ জুন ১৯৮৯।
  • ওমেন অ্যান্ড ওয়র্ক - ফ্রম হাউসওয়াইফাইজেশন টু অ্যান্ড্রোজিনি, ইকনমিক অ্যান্ড পলিটিক্যাল উইকলি, ভলিউম XXXI, নম্বর ৪৫ এবং ৪৬ নভেম্বর ৯-১৬, ১৯৯৬।
  • দ্য হোমোজেনেইটি অফ ফান্ডামেন্টালিজম: ব্রিটিশ কলোনিয়ালিজম অ্যান্ড মিশন ইন ইন্ডিয়া ইন দ্য নাইনটিন্থ সেঞ্চুরি, স্টাডিজ ইন হিস্ট্রি (ঋষি), ১৬ (২) ২০০০।
  • এস কে রুদ্র, সি এফ অ্যান্ড্রুজ অ্যান্ড এম কে গান্ধি: ফ্রেন্ডশিপ, ডায়ালগ অ্যান্ড ইন্টিরিয়োরিটি ইন দ্য কোয়েশ্চেন অফ ইন্ডিয়ান ন্যাশনালিজম, ইকনমিক অ্যান্ড পলিটিক্যাল উইকলি, ভলিউম XXXVII, নম্বর ৩৪, ২৪ অগস্ট ২০০২।
  • মিডিইভ্যাল মিউজিক অ্যান্ড শেক্সপিয়ার্স সনেটস, থিঙ্ক ইন্ডিয়া কোয়ার্টারলি, ১২ (২), ২০০৯।
  • Visvanathan, Susan (এপ্রিল ২০০১)। "Hannah Arendt and the Problem of Our Age"। Economic and Political Weekly36 (16): 1307–1309। জেস্টোর 4410510 

নির্বাচিত প্রবন্ধাবলি (সম্পাদিত পুস্তকসমূহ)সম্পাদনা

  • "ইন্টারপ্রিটেশন্স অফ দ্য সিটি", ইন 'স্ট্রাকচার অ্যান্ড ট্রান্সফর্মেশন: থিয়োরি অ্যান্ড সোসাইটি ইন ইন্ডিয়া', সুসান বিশ্বনাথন দ্বারা সম্পাদিত, নয়াদিল্লি: অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি প্রেস, ২০০১।
  • "দ্য ইউক্যারিস্ট ইন আ সিরিয়ান ক্রিশ্চিয়ান চার্চ", ইন 'ইন্ডিয়াজ রিলিজিয়ন্স: পার্সপেক্টিভস ফ্রম সোসিয়োলজি অ্যান্ড হিস্ট্রি', টি এন মদন দ্বারা সম্পাদিত, নয়াদিল্লি: অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি প্রেস, ২০০৪।
  • "রিঙ্গলটাউব ইন দ্য মিডস্ট অফ দ্য নেটিভস - ১৮১৩ অ্যান্ড দ্য ন্যারেটিভ অফ ডিস্ট্রেস", ইন 'হ্যালে অ্যান্ড দ্য বিগিনিং অফ প্রোটেস্ট্যান্ট ক্রিশ্চিয়ানিটি ইন ইন্ডিয়া: ভলিউম ২ - ক্রিশ্চিয়ান মিশন ইন দ্য ইন্ডিয়ান কন্টেক্সট', অ্যান্ড্রুজ গ্রস প্রমুখ দ্বারা সম্পাদিত, হ্যালে: ফ্র্যাঙ্কেস্ক স্টিফটাঙ্গেন, ২০০৬।
  • "রিকনস্ট্রাকশন্স অফ দ্য পাস্ট", ইন 'হিস্টোরিক্যাল অ্যান্থ্রোপোলজি', সৌরভ দুবে সম্পাদিত, নয়াদিল্লি: অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি প্রেস, ২০০৭।
  • "দ্য স্টেটাস অফ ক্রিশ্চিয়ান ওমেন ইন কেরালা", ইন 'ওয়র্ল্ড ক্রিশ্চিয়ানিটি: ক্রিটিক্যাল কনসেপ্টস ইন রিলিজিয়াস স্টাডিজ', এলিজাবেথ কেপলিং দ্বারা সম্পাদিত, লন্ডন: রাউটলেজ, ২০১০।
  • "আ কাস্ট অফ ক্যারেক্টার্স", ইন রিমেম্বার্ড চাইল্ডহুড: এসেজ ইন অনর অফ আন্দ্রে বেটেলে', মালবিকা কার্লেকর সম্পাদিত, নয়াদিল্লি: অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি প্রেস, ২০১০।

সুসান বিশ্বনাথনের সাহিত্যরচনা সম্পর্কে ব্রুস কিংসম্পাদনা

সাহিত্য সমালোচক ব্রুস কিংয়ের 'রিরাইটিং ইন্ডিয়া: সিক্স অথর্স' (অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি প্রেস, ২০১৪) বইতে সুসান বিশ্বনাথনের সাহিত্য এবং গল্প রচনা সম্পর্কে একটা অধ্যায় সন্নিবেশিত হয়েছে। তিনি লিখেছেন, "সুসান বিশ্বনাথনের সাহিত্যরচনা হল প্রয়োজন অনুযায়ী আত্মজীবনী-বিরুদ্ধ এবং তাঁর সমাজবৈজ্ঞানিক গবেষণার ওপর ভিত্তি করে রচিত, তাঁর লেখা সাহিত্যরচনাগুলো তাঁর ভ্রমণকালীন কল্পনা ও অন্যান্য গল্প থেকে নেওয়া। পূর্বানুমান এড়িয়ে সচেতনভাবে ভারতীয় সাহিত্যের সূত্র থেকে বেরিয়ে তিনি সাহিত্যরচনা করেছেন, তাঁর কথায়, জীবন হল পরিবর্তনের এক অনিশ্চিত পদ্ধতি।[৪]
কিং লিখেছেন, "বিশ্বনাথনের সাহিত্যরচনার অকল্পনীয় গুনমান ও কাঠামো, এমনকি ওঠানামা স্তর, তাঁর দূরদৃষ্টি দেখে আকর্ষণীয় হতে পারে। তিনি একজন মজাদার লেখিকা।"[৫]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Prof Susan Visvanathan"। JNU। সংগ্রহের তারিখ ১৪ জানুয়ারি ২০১৪ 
  2. name=jnu
  3. "Bookshelf: Susan Visvanathan"। SAWNET। সংগ্রহের তারিখ ১৪ জানুয়ারি ২০১৪ 
  4. name="ukcatalogue.oup.com">http://ukcatalogue.oup.com/product/9780198099161.do
  5. name="ukcatalogue.oup.com"