লা গ্রান্দে গুয়েররা

লা গ্রান্দে গুয়েররা ১৯৫৯ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত একটি ইতালীয় হাস্যরসাত্মক নাট্য যুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্র। মারিও মোনিচেল্লি ছবিটি পরিচালনা করেছেন। প্রথম বিশ্বযুদ্ধে সৈনিক বন্ধুদের আখ্যান এ চলচ্চিত্রের উপজীব্য। হাস্যরসাত্মক প্রেক্ষাপটে ছবিটি নির্মিত হলেও দর্শকরা যুদ্ধের ভয়াবহতা ও বিভীষিকা অনায়াসেই উপলব্ধি করতে পারেন। আলবার্তো সোর্দিভিত্তোরিও গাসম্যান ছবিটির শ্রেষ্ঠাংশে রয়েছেন। দিনো দি লরেন্তিস ছবিটি পরিচালনা করেছেন। ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসবে এটি স্বর্ণসিংহ লাভ করে। দানিলো দোনাতিমারিও গার্বুগলিয়া-ও এ ছবিতে কাজ করেছেন।

লা গ্রান্দে গুয়েররা
লা গ্রান্দে গুয়েররা পোস্টার.jpg
Italian film poster
পরিচালকমারিও মোনিচেল্লি
প্রযোজকদিনো দি লরেন্তিস
রচয়িতাঅ্যাগেনোর ইনক্রোচ্চি,
মারিও মোনিচেল্লি,
ফুরিও স্কারপেল্লি,
লুচিয়ানো ভিনসেনজোনি
শ্রেষ্ঠাংশেআলবার্তো সোর্দি
ভিত্তোরিও গাসম্যান
সিলভানা মানগানো
রোমোলো ভাল্লি
সুরকারনিনো রোতা
চিত্রগ্রাহকজুসেপ্পে রোতুন্নো,
লিওনিদা বার্বোনি,
রোবার্তো জেরার্দি,
জুসেপ্পে সেররান্দি
সম্পাদকআদ্রিয়ানা নোভেল্লি
মুক্তি
দৈর্ঘ্য১৩৫ মিনিট
দেশইতালি
ফ্রান্স
ভাষাইতালীয়

সেরা বিদেশি চলচ্চিত্রের জন্য এটি একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করে। [১] ১৯৯৯ সালে চিয়াক সাময়িকীর সম্পাদকরা একে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ১০০ চলচ্চিত্রের একটি স্বীকৃতি দেয়। এটি সংরক্ষণযোগ্য ১০০ ইতালীয় চলচ্চিত্রের তালিকায়ও স্থান পেয়েছিল। ইতালির বাইরেও, বিশেষত ফ্রান্সে এটি প্রভূত সাফল্য পায়।

কাহিনীসংক্ষেপসম্পাদনা

১৯১৬ সাল। রোমান ওরেস্তে জাকোভাচ্চি ও জিওভান্নি বুসাচ্চা একটি সামরিক এলাকায় মিলিত হয়। টাকার পরিবর্তে জাকোভাচ্চি বুসাচ্চার সাথে প্রতারণা করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। একসময় ফ্রন্টে যাওয়ার সময় রেলগাড়িতে তাদের দুজনের দেখা হয়। প্রথমে জিওভান্নি সংক্ষুব্ধ আচরণ করলেও তারা পরস্পর সহানুভূতিশীল ও বন্ধুত্বপূর্ণ আচরণ শুরু করে। তাদের মধ্যে চরিত্রগত পার্থক্য থাকলেও আদর্শহীনতা ও যুদ্ধে সম্পূর্ণরূপে অক্ষত থাকার তাড়নাই তাদের পারস্পরিক মৈত্রীতে আবদ্ধ করে। প্রশিক্ষণকালে তারা দুজন নানারকম উত্থান-পতনের মধ্য দিয়ে যায়। কিন্তু কাপোরেত্তোতে পরাজিত হওয়ার পর তাদেরকে "রিলে রানার"-এর দায়িত্ব প্রদান করা হয়। এটি একটি বিপজ্জনক কাজ। তারা সবচেয়ে কম দক্ষতা প্রদর্শন করায় তাদের শাস্তিস্বরূপ এ কাজের দায়িত্ব দেওয়া হয়।

এক সন্ধ্যায় তারা ফ্রন্টরেখা হতে দূরে একটি রণশিবিরের আস্তাবলে ঘুমাচ্ছিল। কিন্তু অস্ট্রিয়ানদের আগমনে পালিয়ে তারা দুইজন শত্রুসীমানায় চলে যায়। পালিয়ে যাওয়ার উদ্দেশ্যে তারা অস্ট্রো-হাঙ্গেরীয় বাহিনীর কোট পরিধান করে। কিন্তু তাদের সে চেষ্টা ব্যর্থ হয়। তাদেরকে আটক করা হয়; গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করা হয় এবং গুলি করে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়। নিজেদের বাঁচাতে তারা বলে, পিয়াভে প্রতি-আক্রমণের বিষয়ে তাদের কাছে তথ্য রয়েছে। কিন্তু একজন অস্ট্রীয় সেনার ঔদ্ধত্য এবং ইতালীয়দের নিয়ে ঘৃণাসূচক রসিকতার শিকার হয়ে তারা আত্মসম্মান ফিরে পায়। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তারা সত্য প্রকাশ করে না। তাদের মধ্যে একজন শত্রুদের সেনাধ্যক্ষকে সাহসিকতার সাথে অপমান করে। আরেকজন তার সাথী গুলিবিদ্ধ হওয়ার পর বলে, পিয়াভে প্রতি-আক্রমণের বিষয়ে তাদের কাছে কোনো তথ্য নেই। তারপর তাকেও অস্ট্রীয়রা গুলি করে হত্যা করে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "The 32nd Academy Awards | 1960"Oscars.org | Academy of Motion Picture Arts and Sciences 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা