রোমিও + জুলিয়েট

রোমিও + জুলিয়েট ১৯৯৬ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত মার্কিন প্রণয়ধর্মী নাট্য চলচ্চিত্র। ইংরেজ নাট্যকার উইলিয়াম শেকসপিয়ারের রোমিও অ্যান্ড জুলিয়েট নাটক অবলম্বনে চলচ্চিত্রটি পরিচালনা করেছেন ব্যাজ লুরমান। এতে নাম চরিত্রে অভিনয় করেন লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিওক্লেয়ার ডেইন্স। এটি শেকসপিয়ারের নাটকের সংক্ষেপিত ও আধুনিক রূপ। শেকসপিয়ারে মূল সংলাপ রয়ে গেলেও মন্টাগুয়ে ও ক্যাপুলেট পরিবারকে যুদ্ধরত মাফিয়া সাম্রাজ্য হিসেবে দেখানো হয় এবং তলোয়ারের পরিবর্তে বন্দুক ব্যবহার করা হয়।

রোমিও + জুলিয়েট
রোমিও + জুলিয়েট পোস্টার.jpg
প্রেক্ষাগৃহে মুক্তির পোস্টার
পরিচালকব্যাজ লুরমান
প্রযোজকব্যাজ লুরমান
গ্যাব্রিয়েলা মার্টিনেলি
চিত্রনাট্যকারক্রেইগ পিয়ার্স
বাজ লুরমান
উৎসউইলিয়াম শেকসপিয়র কর্তৃক 
রোমিও অ্যান্ড জুলিয়েট
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারনেলে হোপার
মারিয়ুস দি ভ্রায়েস
ক্রেইগ আর্মস্ট্রং
চিত্রগ্রাহকডোনাল্ড ম্যাকআলপেইন
সম্পাদকজিল বিলকক
প্রযোজনা
কোম্পানি
পরিবেশকটুয়েন্টিয়েথ সেঞ্চুরি ফক্স
মুক্তি
  • ১ নভেম্বর ১৯৯৬ (1996-11-01) (যুক্তরাষ্ট্র)
দৈর্ঘ্য১২০ মিনিট[১]
দেশযুক্তরাষ্ট্র
ভাষাইংরেজি
নির্মাণব্যয়$১৪.৫ মিলিয়ন
আয়$১৪৭.৫ মিলিয়ন[২]

কিছু চরিত্রের নামও পরিবর্তন করা হয়েছে। লর্ড ও লেডি মন্টাগুয়ে এবং লর্ড ও লেডি ক্যাপুলেটের প্রথম নাম দেওয়া হয় এবং ফ্রিয়ার লরেন্সকে ফাদার লরেন্স ও প্রিন্স এস্কালাসকে ক্যাপ্টেইন প্রিন্স নাম দেওয়া হয়। মূল নাটকে থাকা স্বত্ত্বেও ফ্রিয়ার জন চরিত্র বাদ দেওয়া হয়। আবার কিছু চরিত্র পরিবর্তন করা হয়, যেমন মূল নাটকে গ্রেগরি ও স্যাম্পসন ক্যাপুলেট পরিবারের ছিল কিন্তু এই ছবিতে তাদের মন্টাগুয়ে পরিবারে এবং আব্রা, পেত্রাশিও মন্টাগুয়ে পরিবারে ছিল যাদের ক্যাপুলেট পরিবারে দেখানো হয়েছে। কিছু কাহিনীতেও পরিবর্তন আনা হয়েছে, বিশেষ করে শেষের দিকে।[৩]

১৯৯৭ সালে ৪৭তম বার্লিন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব-এ লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে গোল্ডেন বিয়ার এবং পরিচালক লুরমান আলফ্রেড বাউয়ের পুরস্কার লাভ করেন।[৪] লুরম্যান একই উৎসবে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্রের জন্য গোল্ডেন বিয়ারের জন্যও মনোনয়ন লাভ করেন।[৫] ৬৯তম একাডেমি পুরস্কার-এ ক্যাথরিন মার্টিন ও ব্রিগিট ব্রোচ শ্রেষ্ঠ শিল্প নির্দেশনার জন্য একাডেমি পুরস্কারের জন্য মনোনীত হন।[৫]

কাহিনী সংক্ষেপসম্পাদনা

ভেরোনা বীচে মন্টাগুয়ে ও ক্যাপুলেট পরিবারের মধ্যে পারিবারিকভাবে দ্বন্দ্ব চলে আসছে। পূর্বপুরুষদের মধ্যেকার দ্বন্দ্ব নতুন প্রজন্ম বয়ে বেরাচ্ছে। সেই ধারাবাহিকতায় মন্টাগুয়ে পরিবারের বেনভোলিও আর ক্যাপুলেট পরিবারের তাইবাল্টের মধ্যে শহরে বন্দুকযুদ্ধ হয়। পুলিশ দুজনকেই সতর্ক করে দেয়।

বেনভোলিওর রোমিওর সাথে সৈকতে দেখা হয় এবং সেখানে তারা ক্যাপুলেটদের সান্ধ্য-পার্টির কথা জানতে পারে। তারা দুজন তাদের এক বন্ধুর মাধ্যমে পার্টিতে ঢুকার টিকেট পায়। মদের নেশা চড়ে গেলে সে বিশ্রাম করতে যায়। সেখানে এক অ্যাকুইরিয়ামের প্রশংসা করতে গিয়ে তার জুলিয়েটের সাথে দেখা হয়। প্রথম দেখায় তাদের মধ্যে প্রেম হয়ে যায়। কিন্তু পারিবারিক শত্রুতা এই প্রেমের পথে বাঁধা হয়ে দাড়ায়।

অভিনয়শিল্পীসম্পাদনা

ন্যাটালি পোর্টম্যানকে প্রথমে জুলিয়েট চরিত্রে নেওয়া হয়, কিন্তু কয়েকদিন রিহার্সাল করার পর তাকে বাদ দেওয়া হয়। বাজ লুরমান বলেন পোর্টম্যান তখন খুব ছোট ছিল এবং ডিক্যাপ্রিও সাথে মানানসই হচ্ছিল না। ডিক্যাপ্রিওর তখন ২১ বছর আর পোর্টম্যানের মাত্র ১৪ বছর ছিল। এমনকি জুলিয়েটের বাগদত্তা কাউন্ট প্যারিস চরিত্রে অভিনয় করার রুডের বয়স ছিল তখন ২৬।[৭]

এসময়ে ডিক্যাপ্রিও ঘোষণা দিলেন ডেইন্স জুলিয়েট চরিত্রে অভিনয় করবে কারণ তার ধারণা ডেইন্স সংলাপে দক্ষ এবং তার অভিনয়ে চপলতা নেই।[৮]

সঙ্গীতসম্পাদনা

  1. "নাম্বার ওয়ান ক্রাশ" – গারবেজ
  2. "লোকাল গড" – এভারক্লেয়ার
  3. "অ্যাঞ্জেল" – গেভিন ফ্রাইডে
  4. "প্রিটি পিস অফ ফ্লেশ" – ওয়ান ইঞ্চ পাঞ্চ
  5. "কিসিং ইউ (লাভ থিম) – ডেস'রি
  6. "হোয়াটএভার (আই হ্যাড অ্যা ড্রিম)" – বাটহোল সার্ফারস
  7. "লাভফুল" – দ্য কার্ডিগ্যান
  8. "ইয়ং হার্টস রান ফ্রি" – কিম মেজেল
  9. "এভরিবডি'স ফ্রি (টু ফিল গুড)" – কুইন্ডন টারভার
  10. "টু ইউ আই বেস্টো" – মান্ডি
  11. "টক শো হোস্ট" – রেডিওহেড
  12. "লিটল স্টার" – স্টিনা নর্দেনস্ট্যাম
  13. "ইউ অ্যান্ড মি সং" – দ্য ওয়ানাডাইস
  14. "লেয়ারস অফ ডার্কনেস" - মার্চিং শো কনসেপ্ট'স রেকর্ডিং

পুরস্কারসম্পাদনা

লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও ও ক্লেয়ার ডেইন্স ১৯৯৭ সালে জনপ্রিয় প্রণয়ধর্মী অভিনেতা ও অভিনেত্রী বিভাগে ব্লকবাস্টার এন্টারটেইনমেন্ট পুরস্কার লাভ করেন।[৫] ১৯৯৭ সালে এমটিভি মুভি পুরস্কার-এ ডেইন্স শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে পুরস্কার লাভ করেন এবং ডিক্যাপ্রিও শ্রেষ্ঠ অভিনেতার মনোনয়ন লাভ করেন। এছাড়া তার দুইজন শ্রেষ্ঠ চুম্বন-দৃশ্য ও পর্দা জুটি হিসেবে মনোনীত হন।[৫] ৫১তম বাফটা পুরস্কার-এ ব্যাজ লুরমান শ্রেষ্ঠ পরিচালনা, লুরমান ও মেরি হেইলি শ্রেষ্ঠ ধারকৃত চিত্রনাট্য, নেলে হোপার শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত ও ক্যাথরিন মার্টিন শ্রেষ্ঠ ব্যবস্থাপনার জন্য পুরস্কার লাভ করেন। এছাড়া ছবিটি চিত্রগ্রহণ, সম্পাদনা ও শব্দগ্রহণ বিভাগে মনোনয়ন পায়।[৫]

১৯৯৭ সালে ৪৭তম বার্লিন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব-এ লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে গোল্ডেন বিয়ার এবং পরিচালক লুরমান আলফ্রেড বাউয়ের পুরস্কার লাভ করেন।[৪] লুরমান একই উৎসবে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্রের জন্য গোল্ডেন বিয়ারের জন্যও মনোনয়ন লাভ করেন।[৫] ৬৯তম একাডেমি পুরস্কার-এ ক্যাথরিন মার্টিন ও ব্রিগিট ব্রোচ শ্রেষ্ঠ শিল্প নির্দেশনার জন্য একাডেমি পুরস্কারের জন্য মনোনীত হন।[৫]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "WILLIAM SHAKESPEARE'S ROMEO + JULIET (12)"টুয়েন্টিয়েথ সেঞ্চুরি ফক্স। British Board of Film Classification। ডিসেম্বর ২, ১৯৯৬। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ডিসেম্বর ২০১৬ 
  2. "Romeo + Juliet (1996)"বক্স অফিস মোজো। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ডিসেম্বর ২০১৬ 
  3. Whitington, Paul (নভেম্বর ২১, ২০০৭)। "From stage to screen"Irish Independent। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ডিসেম্বর ২০১৬ 
  4. "Berlinale: 1997 Prize Winners"berlinale.de। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ডিসেম্বর ২০১৬ 
  5. "Romeo + Juliet Awards"ইন্টারনেট মুভি ডেটাবেজ। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ডিসেম্বর ২০১৬ 
  6. Lahr, John (সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৩)। "Where do Claire Danes' Volcanic Performances Come From?"New Yorker Magazine। New Yorker Magazine। পৃষ্ঠা 2। সংগ্রহের তারিখ সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৩ 
  7. James Ryan (ফেব্রুয়ারি ২৫, ১৯৯৬)। "UP AND COMING: Natalie Portman; Natalie Portman (Not Her Real Name)"। The New York Times। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ডিসেম্বর ২০১৬ 
  8. Lahr, John। "Where do Claire Danes' Volcanic Performances Come From?"New Yorker Magazine। The New Yorker। সংগ্রহের তারিখ ৩ মে ২০১৫ 
অন্যান্য

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

টেমপ্লেট:ব্যাজ লুরমান