রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ

রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বা রাজউক বাংলাদেশের গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অধীনে একটি সরকারি সংস্থা যা রাজধানী ঢাকার উন্নয়ন প্রকল্পসমূহের পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন করে থাকে। এর পূর্বনাম ছিল ঢাকা ইমপ্রুভমেন্ট ট্রাস্ট (ডিআইটি)।[১]

রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ
সংস্থার রূপরেখা
গঠিত৩০ এপ্রিল ১৯৮৭
পূর্ববর্তী সংস্থা
  • ঢাকা ইমপ্রুভমেন্ট ট্রাস্ট (ডিআইটি), ১৯৫৬
স্থলাভিষিক্ত সংস্থা
সদর দপ্তররাজউক ভবন, রাজউক অ্যাভিনিউ, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০
সংস্থা নির্বাহী
মূল সংস্থাবাংলাদেশ সরকার
ওয়েবসাইটwww.rajukdhaka.gov.bd
রাজউক ভবন

ইতিহাস সম্পাদনা

১৯৪৭ সালে ভারত বিভক্তির পর ঢাকা পূর্ব পাকিস্তানের প্রাদেশিক আসনে পরিণত হয়। ১৯৫১ সাল থেকে ১৯৭১ সাল পর্যন্ত জনসংখ্যা ০.২৮ মিলিয়ন থেকে বেড়ে ১.২ মিলিয়ন হয়। ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধের পরে ঢাকা বাংলাদেশের রাজধানী হিসেবে আত্বপ্রকাশ করে। দ্রুত বর্ধনশীল শহরগুলোর মধ্যে ঢাকা অন্যতম। বর্তমানে জনসংখ্যা ১০ মিলিয়ন ছাড়িয়ে গেছে। যদিও অতীত পরিকল্পনায় জেলা শহর থেকে বিশ্বের বড় শহরগুলোর একটিতে পরিনত করার চেষ্টা করা হয়, অধিকাংশ-ই ব্যর্থ হয়। ফলে খুব দ্রুত জীবনযাত্রার মানের অবনতি ঘটে । সামাজিক এবং বাহ্যিক অবকাঠামো ভেঙ্গে পরে । এ শহরের পরবর্তী সকল উন্নয়নে শৃংখলা বজায় রাখতে তড়িৎ পদক্ষেপ নেয়া প্রয়োজন। এর প্রেক্ষিতে রাজউক গঠিত হয়।

কার্যক্রম সম্পাদনা

এটি ঢাকা শহরে বিল্ডিং কোড লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে অভিযান চালায় । অবৈধ উন্নয়নের পুলিশিং সীমিত হওয়ায় এটি চ্যালেঞ্জিং।[২] সংস্থাটি শহরের জমি থেকে রাজস্ব আয় করার কথা যা অনেকে এর কৌশলগত এবং পরিকল্পনার কার্যকারিতার সাথে দ্বন্দ্ব বোধ করে।[৩]

রাজউক প্রকল্প সম্পাদনা

তথ্যসূত্র সম্পাদনা

  1. "রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ"বাংলাপিডিয়া। এশিয়াটিক সোসাইটি। সংগ্রহের তারিখ ১২ মার্চ ২০১৯ 
  2. "Rajuk mows down shops in parking garages"The Daily Star। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জানুয়ারি ২০১৬ 
  3. Cashmore, M., Richardson, T. and Axelsson, A. (2014), Seeing power in international development cooperation: environmental policy integration and the World Bank. Transactions of the Institute of British Geographers. 39, 1 155-168