রাজউক ভবন

রাজউক ভবন রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ রাজউক এর প্রধান কার্যালয় যা বাংলাদেশ সরকার এর রাজধানীর উন্নয়ন বিষয়ক সংস্থা। এই ভবনটি রাজউক এভিনিউ, দিলকুশা, ঢাকা ১০০০ এ অবস্থিত। এটি ঢাকা শহরের একটি অন্যতম উল্লেখযোগ্য ভবন।

ইতিহাসসম্পাদনা

ঢাকা ইমপ্রুভমেন্ট ট্রাস্ট (ডিআইটি) এর প্রধান কার্যালয়রূপে ১৯৫৬ সালে ভবনটি প্রথম প্রতিষ্ঠিত হয়। সেই সময় এটি ডিআইটি ভবন নামে পরিচিত ছিল। পশ্চিম পাকিস্তান এর স্থপতি আবদুল হুসেইন এম. থারিয়ানি এর নকশা করেছিলেন। তৎকালীন পাকিস্তানের মুখ্যমন্ত্রী হোসেন শহীদ সোহ্‌রাওয়ার্দী ১৯৫৬ সালের ১০ ডিসেম্বর এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। ঢাকা ইমপ্রুভমেন্ট ট্রাস্টকে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ দ্বারা প্রতিস্থাপনের পর ১৯৮৭ সালের ৩০ এপ্রিল এর নাম পরিবর্তন করে ‘রাজউক ভবন’ রাখা হয়।

স্থাপত্যশৈলীসম্পাদনা

রাজউক ভবন ঢাকার একটি উল্লেখযোগ্য স্থাপত্য নিদর্শন। এটি পূর্ব পাকিস্তান এর মুখ্য ভবনসমূহের অন্যতম। এটি খুবই জটিল গঠনের ভবন। ভবনের মাঝ বরাবর অনেকগুলো কালো স্তম্ভ রয়েছে; ভবনের স্থাপত্যকলায় এসব স্তম্ভের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে বিভ্রান্তির উদ্রেক হয়। স্থপতি থারিয়ানি নকশা প্রণয়নের সময় জলবায়ু বিবেচনায় আনেন নি। পশ্চিমমুখী এ ভবনের দুটি অংশ বিদ্যমান- একটি রাজউকের মূল ভবন ও আরেকটি সম্প্রসারিত অংশ। ভবনদ্বয় একটি ছোট সেতু দ্বারা সংযুক্ত। এর মূল ভবনে ছয় তলা ও বর্ধিত অংশে আট তলা রয়েছে। ভবনের সম্মুখভাগের ঊর্ধ্বাংশে একটি বড় ঘড়ি রয়েছে যা ভবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ বিশেষত্ব।

সংস্কারসাধনসম্পাদনা

রাজউক ভবন পাকিস্তান আমলের স্থাপত্যকলার নিদর্শন। প্রথমদিকে ভবনটি বেশ সাধারণ ছিল। রাজউকের গুরুত্ব ও স্থাপত্যকলার বিষয়টি চিন্তা করে রাজউক ভবনটি সংস্কারের সিদ্ধান্ত নেয়। ২০০০ সালের পর সংস্কারের প্রধান উদ্যোগ গৃহীত হয় এবং ভবনটিকে একটি অন্যমাত্রার সৌন্দর্যদান করে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা