রথীন্দ্রনাথ বোস

রথীন্দ্রনাথ বোস
রথীন্দ্রনাথ বোস.jpeg
জন্মনড়াইল, বাংলাদেশ
মৃত্যু১১জুলাই, ২০১৫,
যুক্তরাষ্ট্র,
পেশারসায়নবিদ
জাতীয়তাবাংলাদেশী
নাগরিকত্ববাংলাদেশ Flag of Bangladesh.svg
দাম্পত্যসঙ্গীঅনিমা বোস

জন্ম ও মৃত্যু:সম্পাদনা

রথীন্দ্রনাথ বোস নড়াইল সদর উপজেলার কমলাপুর গ্রামের বোস পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম বৈদ্যনাথ বোস এবং মাতার নাম তৃপ্তিলতা বোস। পিতা-মাতার ছয় ছেলে ও চার মেয়ের মধ্যে তিনি দ্বিতীয়। তিনি ২০১৫ সালের ১১জুলাই বাংলাদেশ সময় শনিবার ভোর ছয়টায় যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৩ বছর।[১]

শিক্ষাজীবণ:সম্পাদনা

রথীন্দ্রনাথ বোস মাধ্যমিক পাশ করেন নড়াইল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে। এবং উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করেন সরকারী ভিক্টোরিয়া কলেজ থেকে। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করার পর তিনি ভর্তি হন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগে। রথীন্দ্রনাথ বোস ১৯৭২ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রসায়ন বিভাগে প্রথম শ্রেণিতে প্রথম হয়ে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। এবং এখান থেকেই ১৯৭৩ সালে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি ১৯৭৩-১৯৭৪ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সৈয়দ আমীর আলী হল শাখা ছাত্রসংসদের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ছিলেন। ১৯৮২ সালে ওয়াশিংটনস্থ জর্জটাউন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রসায়ন শাস্ত্রে পি.এইচ.ডি ডিগ্রি অর্জন করেন।[১]

কর্মজীবণ:সম্পাদনা

রথীন্দ্রনাথ বোস ১৯৭৬ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে রসায়ন বিভাগে নবীন শিক্ষক হিসেবে যোগ দেন। এবং সেখানে শিক্ষকতা করেন ১৯৭৮ সাল পর্যন্ত। তিনি ২০০৮ সাল পর্যন্ত ওহিয়ো ইউনিভার্সিটিতে অধ্যাপক হিসেবে ছিলেন। ওহিয়ো ইউনিভার্সিটিতে তিনি ডিন অব দ্য গ্র্যাজুয়েট কলেজ এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট অব রিসার্চ এবং ক্রিয়েটিভ অ্যাকটিভিটি হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ২০১১ সালে তিনি হিউজস্ট ইউনিভার্সিটিতে ভাইস চ্যান্সেলর এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে যোগদান করেন।[২] তিনি "ন্যাশনাল একাডেমিক অব ইনভেন্টার্স" এর ফেলো নির্বাচিত হন ২০১৩ সালে।[৩]

ক্যান্সার চিকিৎসায় অবদান:সম্পাদনা

রথীন্দ্রনাথ বোস সিলিড টিউমার ক্যান্সার প্রতিরোধী ওষুধ উদ্ভাবন করেন। ড. বোস ক্যান্সার চিকিৎসায় বিভিন্ন ড্রাগ এবং প্লাটিনাম ড্রাগের উপর অনেকদিন কাজ করে গেছেন। এসব ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে। ড. বোস এই পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াকে নূন্যতম রেখে একধরনে আরোগ্যকারী ওষুধ প্লাটিনাম-যৌগিক নিয়ে কাজ করেছিলেন। ড. বোসের আবিষ্কৃত এসব ওষুধ তৈরীর জন্য লাইসেন্স পেয়েছিল Phosplatin Therapeutics নামের একটি বায়োটেকনলজি কম্পানি।[৪]

অর্জন:সম্পাদনা

রথীন্দ্রনাথ বোসের ক্যান্সার থিরাপিউটিক্স ও ফুয়েল-সেল ইলেকট্রোক্যাটালিস্ট-এর উপর ১০টি পেটেন্টের অধিকারী। (৪টি অপেক্ষমানসহ) [৫]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা