মার্শিয়ার এথেলবাল্ড

এথেলবাল্ড (ইংরেজি বানানে: Æthelbald বা Ethelbald বা Aethelbald;[১] মৃত্যু: ৭৫৭) ছিলেন ৭১৬ খ্রিস্টাব্দ থেকে ৭৫৭ খ্রিস্টাব্দে নিহত হওয়ার পূর্বাবধি মার্শিয়ার (অধুনা ইংল্যান্ডের মিডল্যান্ডস) রাজা। তিনি ছিলেন অ্যালেওর পুত্র, এবং সেই সূত্রে রাজা এওয়ার এক পৌত্র। এথেলবাল্ডের জ্ঞাতিভ্রাতা তথা তাঁর পূর্ববর্তী রাজা সিওলরেড তাঁকে নির্বাসিত করেছিলেন। সিওলরেডের মৃত্যুর পর এথেলবাল্ড সিংহাসনে আরোহণ করেন। এথেলবাল্ডের সুদীর্ঘ রাজত্বকালে মার্শিয়া অ্যাংলো-স্যাক্সনদের প্রধান রাজ্যে পরিণত হয়েছিল এবং ইতিপূর্বে (আনুমানিক ৬২৮ থেকে ৬৭৫ খ্রিস্টাব্দের মধ্যবর্তী সময়ে) দুই শক্তিশালী মার্শিয়ান রাজা পেন্ডাউলফহিয়ারের রাজত্বকালে মার্শিয়া যে গুরুত্ব অর্জন করেছিল, তা পুনরুদ্ধার করতে সক্ষম হয়।[২]

এথেলবাল্ড
The Repton Stone- detail.JPG
রেপটন স্টোনে সম্ভবত এথেলবাল্ডের খোদাইচিত্র
মার্শিয়ার রাজা
রাজত্ব৭১৬–৭৫৭
পূর্বসূরিসিওলরেড
উত্তরসূরিবেওর্নরেড
জন্মঅজ্ঞাত
মৃত্যু৭৫৭
সেকিংটন
সমাধি
হাউসইকলিঙ্গাস
পিতাঅ্যালেও

এথেলবাল্ড যখন সিংহাসনে আরোহণ করেন তখন ওয়েসেক্সকেন্ট দুইই ছিল শক্তিশালী শাসকের দ্বারা শাসিত রাজ্য। কিন্তু পনেরো বছরের মধ্যেই সমসাময়িক কালপঞ্জিকার বিড এথেলবাল্ডকে হাম্বার নদীর দক্ষিণভাগের সমগ্র ইংল্যান্ডের শাসক হিসেবে বর্ণনা করেন। অ্যাংলো-স্যাক্সন ক্রনিকল অবশ্য এথেলবাল্ডকে ব্রেটওয়াল্ডা বা "ব্রিটেনের শাসক"দের তালিকাভুক্ত করেনি, যদিও তার কারণ ছিল অ্যাংলো-স্যাক্সন ক্রনিকল-এর পশ্চিম স্যাক্সন উৎস।

সেন্ট বনিফেস ৭৪৫ খ্রিস্টাব্দ নাগাদ এথেলবাল্ডকে পত্রযোগে তাঁকে বিভিন্ন অনৈতিক ও ধর্মবিরোধী আইনের অভিযোগে ভর্ৎসনা করেন।[৩] এর পরেই ৭৪৭ খ্রিস্টাব্দে ক্লোভেশোর সভা এবং ৭৪৯ খ্রিস্টাব্দে গামলেতে জারি করা একটি সনদের মাধ্যমে এথেলবাল্ড চার্চকে তার কয়েকটি বাধ্যবাধকতা থেকে মুক্তি দেন, যা ছিল সম্ভবত বনিফেসের চিঠিরই ফলশ্রুতি।[৪][৫] ৭৫৭ খ্রিস্টাব্দে নিজ দেহরক্ষীদের হাতে এথেলবাল্ড নিহত হন।[৬] তাঁর পরে বেওর্নরেড কিছুকালের জন্য রাজা হয়েছিলেন। বেওর্নরেডের সম্পর্কে বিশেষ কিছু জানা যায় না। তবে এক বছরের মধ্যেই এথেলবাল্ডের জ্ঞাতিভ্রাতা এয়ানউলফের পৌত্র ওফা সম্ভবত একটি স্বল্পকালীন গৃহযুদ্ধের পরে সিংহাসন দখল করেন। ওফার রাজত্বকালে মার্শিয়া সেই রাজ্যের সর্বাপেক্ষা সমৃদ্ধ ও প্রভাবশালী যুগে প্রবেশ করেছিল।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. The spelling "Æthelbald" uses the Anglo-Saxon alphabet, and so can be considered the most authentic; it has occasionally been modernised in secondary sources to "Ethelbald" or "Aethelbald".
  2. Hunter Blair, Roman Britain, p. 168.
  3. Emerton, Letters, p. 105.
  4. "Anglo-Saxons.net: S 92"। সংগ্রহের তারিখ ২৮ এপ্রিল ২০০৭ 
  5. Campbell, The Anglo-Saxons, p. 100.
  6. The "continuation of Bede" is by other hands than Bede's, though the first few entries may be by Bede himself. See "Bede's Ecclesiastical History of England: Christian Classic Ethereal Library"। সংগ্রহের তারিখ ৩ জুন ২০০৭ 

উল্লেখপঞ্জিসম্পাদনা

প্রাথমিক সূত্রসম্পাদনা

অন্যান্য সূত্রসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

শিরোনামের আভিজাত্য
পূর্বসূরী
Ceolred
King of Mercia
716–757
উত্তরসূরী
Beornred

টেমপ্লেট:Bretwalda টেমপ্লেট:Kings of Mercia