মারজানা চৌধুরী

মারজানা রাতিয়া আহমেদ চৌধুরী (জন্ম ১০ নভেম্বর, ১৯৯৩) একজন এশিয়ান-আমেরিকান মডেল, অভিনেত্রী, লোকহিতৈষী এবং সৌন্দর্য্য রানী যিনি মিস বাংলাদেশ ২০১৭[১][২] এর বর্তমান শিরোনামধারী এবং ২০১৭[৩] সালের নভেম্বর মাসে ফিলিপাইনে মিস এশিয়া প্রশান্ত আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন। তিনি ইতোপূর্বে ২০১৬ সালে মিস বাংলাদেশ মার্কিন প্রতিযোগিতা জিতেছিলেন, যেখানে তিনি প্রথম কোন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেছিলেন। মারজানা চৌধুরী বর্তমানে নিউইয়র্ক সিটির বিনিয়োগ ব্যবস্থাপনা ফার্মের আইনি বিশ্লেষক হিসেবে কাজ করছেন।

মারজানা চৌধুরী
Marjana Chowdhury.jpg
জন্ম (1993-11-10) ১০ নভেম্বর ১৯৯৩ (বয়স ২৯)
জাতীয়তাবাংলাদেশী
আমেরিকান
শিক্ষাইয়ং উইমেনস লিডারশীপ স্কুল অব ইস্ট হারলেম
মাতৃশিক্ষায়তনকলাম্বিয়া কলেজ, কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়
উপাধিমিস বাংলাদেশ ২০১৭

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

মারজানা চৌধুরী ১৯৯৩ সালে বাংলাদেশের সিলেটে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৯৪ সালে তার পরিবার বাংলাদেশ ত্যাগ তরে এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরে বসবাস শুরু করে। তিনি চার বোনদের মধ্যে দ্বিতীয়।

প্রতিযোগিতাসম্পাদনা

মিস বাংলাদেশ আমেরিকা ২০১৬সম্পাদনা

২০১৬ সালের আগস্ট মাসে, মারজানা চৌধুরী মিস বাংলাদেশ আমেরিকা প্রতিযোগিতায় জিতেছিলেন।[৪] সে বছরই তিনি ফিলিপাইনের মিস এশিয়া প্রশান্ত আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করার জন্য নির্বাচিত হয়েছিলেন কিন্তু বিনয়ী উদ্বেগের কারণে তিনি সেখানে অংশগ্রহণ করতে পারেননি।

মিস ওয়ার্ল্ড আমেরিকা ২০১৭সম্পাদনা

২০১৭ সালের আগস্ট মাসে আমেরিকার মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় অংশ নেন চৌধুরী।[৫] এই প্রতিযোগিতায় তিনি শীর্ষ ১৬ তে ছিলেন এবং ৫০১(সি) প্রতিষ্ঠান দ্য ইয়ং উইমেন লিডারশিপ নেটওয়ার্ক এর সাথে তার কাজের জন্য সৌন্দর্য্য একটি উদ্দেশ্যসহ সৌন্দর্যের শীর্ষ ৫টি স্পট দিয়ে সম্মানিত হন।[৬] এছাড়াও তিনি ড. ফিলিপস চ্যারিটিস এবং শ্রেষ্ঠ বন্ধু প্রোগ্রাম থেকে চ্যারিটি অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন।

মিস বাংলাদেশ ২০১৭সম্পাদনা

২০১৭ সালের আগস্ট মাসে মারজানা চৌধুরীকে মিস বাংলাদেশ ২০১৭ এর খেতাব দিয়ে সম্মানিত করা হয়।

মিস এশিয়া প্রশান্ত আন্তর্জাতিক ২০১৭সম্পাদনা

২০১৭ সালের নভেম্বর মাসে মারজানা চৌধুরী মিস এশিয়া প্রশান্ত আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করেন।[৭]

শিক্ষা এবং অন্যান্য অর্জনসম্পাদনা

মারজানা চৌধুরী ২০০৫ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত নিউ ইয়র্কের ইস্ট হারলেম স্কুলে পড়াশোনা করেন এবং তার ক্লাসের ভ্যালেডিক্টরিয়ান হিসাবে স্নাতক অর্জন করেন। ২০১১১ সালে নিউইয়র্ক সিটি সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ফেয়ারে তিনি প্রথম পুরস্কার পান এবং তার সহকারী মারিয়ামা দেওয়ের সাথে ইন্টেল ইন্টারন্যাশনাল সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ফেয়ারের ফাইনালে নিউইয়র্ককে প্রতিনিধিত্ব করেন।[৮]
তাদের জোড়া বিজয়ী প্রকল্পটি গাম্বুসিয়া হোলব্রুকির প্রজনন সাফল্যের পরিমাপ করেছিল, যা ডার্টার প্রজাতির প্রতিনিধি হিসাবে ব্যবহৃত হয়েছিল। জনসংখ্যার সাফল্যের জন্য যথাযথ প্রবাহ ব্যবস্থায় বিপন্ন প্রজাতির ওকলোলোসা ডার্টারের পুনঃপ্রবর্তনের জন্য এই অনুসন্ধানের ফলাফল গুরুত্বপূর্ণ ছিল।[৯] মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মাছ ও বন্যপ্রাণী পরিসেবা, লয়লা বিশ্ববিদ্যালয়ের জীববিজ্ঞান বিভাগ, ফ্লোরিডা মাছ ও বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ কমিশন এবং ইয়াং উইমেন লিডারশিপ স্কুল অফ ইস্ট হারলেমের অন্যান্য শিক্ষার্থীদের সহযোগিতায় চৌধুরী ও দিওয়ের প্রচেষ্টায় এথোস্টোমা ওকলালোসিকে পুনরায় শ্রেণীবদ্ধ করতে হুমকিপ্রাপ্ত অবস্থা থেকে বিপন্ন প্রজাতির আইনের আওতায় সহায়তা করে।
চৌধুরী ২০১৫ সালে কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের কলম্বিয়া কলেজের আইভি লিগ ইনস্টিটিউট থেকে আর্টস ডিগ্রি অর্জন করেন। ২০১৩ সালে তিনি আন্তর্জাতিক জিনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং ও যন্ত্র প্রতিযোগিতায় অন্যান্য কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয় ও কুপার ইউনিয়ন সদস্যের একটি দলের সাথে অংশ নেন। মুদ্রিত সার্কিট বোর্ডগুলির পুনর্নির্মাণের জন্য তার দলটি ইঞ্চি তামারের সিন্থেটিক জীববিজ্ঞান পদ্ধতিতে তাদের প্রকল্পের জন্য ব্রোঞ্জ পুরস্কার লাভ করে।
মারজানা চৌধুরী গেটস মিলেনিয়াম স্কলার এবং অ্যালবার্ট শঙ্কার স্কলারও ছিলেন। কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে তার অধ্যয়নের চূড়ান্ত বছরে তিনি কিংডম ক্রাউন লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড পেয়েছিলেন।

লোকহিতৈষীসম্পাদনা

মারজানা চৌধুরী ইয়াং উইমেন লিডারশিপ নেটওয়ার্ক (টিওয়াইডব্লিউএন) এবং তার কলেজবাউন্ড ইনিশিয়েটিভ (সিবিআই) এর সদস্য।[১০] তিনি ২০১১ সালে টিওয়াইডব্লিউএন এবং সিবিআই আলম হিসাবে স্নাতক হন এবং তখন থেকেই কলেজের ভর্তি প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে বঞ্চিত মাধ্যমিক ও উচ্চ বিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের পরামর্শদাতা হিসেবে প্রতিষ্ঠানের সাথে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি ওই সংগঠনের জুনিয়র বোর্ডেরও সদস্য।
চৌধুরী রবিন হুড ফাউন্ডেশনের যুব পেশাদারদের নেটওয়ার্ক পিওয়াইটিএর সদস্য। তিনি সম্পদ ব্যবস্থাপনা ফার্মের কর্মসূচির জন্য লিয়াজঁ হিসাবে কাজ করেন এবং বিভিন্ন দাতব্য প্রকল্পের সমন্বয়ে নিউইয়র্কের উল্লেখযোগ্য জনবহুল সংস্থার সাথে স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে সহায়তা করে থাকেন।
কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর জাস্টিস এবং হেইম্যান সেন্টারের সহযোগিতায় ২০১৬ সাল থেকে রিকার স্টোরি বোট সহ রিকার শিক্ষা প্রকল্পতে[১১] মারজানা চৌধুরী সহকারী সাহায্যকারী হিসেবে কাজ করেছেন। এই প্রকল্পটি রিকার দ্বীপে কিশোর-কিশোরীদের কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সদস্যদের পাশাপাশি কাজ করার অনুমতি দেয় এবং শিক্ষার্থীরা প্রোগ্রামিং ভাষা পাইথনের বুনিয়াদি শিখতে, ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা সম্পর্কে টুইট করতে এবং রিকার স্টোরি বোট-এ কোড দিতে সহায়তা করে থাকে।[১২][১৩]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Miss Bangladesh. 1 August 2017. Archived from the original on 10 September 2017.
  2. Lo, Ricky. "Phl brings back the Miss Asia Pacific Int'l". philstar.com. Retrieved 6 February 2018.
  3. "Miss Asia Pacific International - Beauty In Diversity". Miss Asia Pacific. Retrieved 10 September 2017.
  4. "Weekly Bangalee - August 13, 2016". issuu. Retrieved 11 September 2017.
  5. "America's Miss World | 2017 Competition" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১৮ মে ২০১৭ তারিখে. americasmissworld.org. Retrieved 10 September 2017.
  6. "The Young Women's Leadership Network"। ২২ জুলাই ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ মে ২০১৯ 
  7. "Marjana Chowdhury will represent Miss Asia Pacific International" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৯ মে ২০১৮ তারিখে. The Daily Earth. Retrieved 15 September 2017.
  8. "East Harlem Girls Compete in International Science Fair". DNAinfo New York. Archived from the original on 10 September 2017. Retrieved 10 September 2017.
  9. Jr, Ralph Gardner (8 June 2011). "Young in Age Only". Wall Street Journal. ISSN 0099-9660. Retrieved 10 September 2017.
  10. "CollegeBound Initiative"। ৪ আগস্ট ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ মে ২০১৯ 
  11. "Rikers Education Project"। ৫ মে ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ মে ২০১৯ 
  12. "Rikers Education Program - The Center for Justice at Columbia University" ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৫ মে ২০১৯ তারিখে. The Center for Justice at Columbia University. Retrieved 10 September 2017.
  13. "How Rikers Inmates And Columbia Students Built A Twitter Bot–With No Internet". Fast Company. 30 November 2015. Retrieved 10 September 2017.