মায়াপুর

পশ্চিমবঙ্গের একটি অঞ্চল

ইস্কন দ্বারা নবনির্মিত মায়াপুর (পূর্বে যাহা শ্রীমন্মহাপ্রভুর দ্বারা দণ্ডিত এবং শরণাপন্নিত চাঁন্দকাজীর কবর স্থলীর কারণে মিয়াপুর নামে পরিচিত ছিল) পশ্চিমবঙ্গের নদিয়া জনপদে অবস্থিত একটি ইস্কন দ্বারা নবনির্মিত নগরী যা ইস্কনের প্রমুখ কার্যালয় ও পশ্চিমবঙ্গের একটি নবীন অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র৷ মায়াপুর ভাগীরথী নদীর পূর্বপাশে অবস্থিত। নবীন মায়াপুরের কাছেই জলঙ্গী নদী ভাগীরথী নদীতে মিশেছে।

মায়াপুর
প্রাচীন মিয়াপুর
অঞ্চল
মিয়াপুর
মায়াপুর পশ্চিমবঙ্গ-এ অবস্থিত
মায়াপুর
মায়াপুর
মায়াপুর (নদিয়া, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত)
স্থানাঙ্ক: ২৩°২৩′ উত্তর ৮৮°২৩′ পূর্ব / ২৩.৩৮° উত্তর ৮৮.৩৮° পূর্ব / 23.38; 88.38
মায়াপুরে জলঙ্গী নদীতে পারাপার

নামব্যুৎপত্তিসম্পাদনা

মায়াপুরের প্রাচীন নাম মিয়াপুর (Miyapur) ছিল। মুসলিম অধ্যুষিত এই স্থানটি বিশেষত চাঁন্দকাজ়ীর মজ়ার(কবর) স্থলী এবং মুসলিম ইসলাম অনুগামী মৎস্যজীবী দের বসতির জন্য পরিচিত ছিল।[১][২] মিঞাপুর নামটির উল্লেখ বিভিন্ন আধিকারিক সরকারি মানচিত্র এবং জরিপের প্রতিবেদনে পাওয়া যায়।[১] নদিয়া কালেক্টরির জরিপি নকশায়(১৮৪০ খ্রি.)[৩], ১৮৫৪ খ্রিস্টাব্দের রেভিনিউ সার্ভে মানচিত্রে, ১৮৮৬ খ্রিস্টাব্দের Village Directory of Nadia ( পোষ্টমাষ্টার জেনারেল কর্তৃক মুদ্রিত )-এ, ১৯২০ ও ১৯২৯ খ্রিস্টাব্দের সার্ভিয়ার জেনারেল রাইডারের মানচিত্রে স্থানটিকে মিয়াপুর হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।[৪] পরবর্তীকালে বিংশ শতাব্দীতে ভক্তিবিনোদ ঠাকুর এবং পরবর্তীতে ইস্কোন দ্বারা এই স্থান কে মায়াপুর নামে প্রচারিত করা হয়। দুই স্থানের নাম একরুপতার পরিনাম স্বরুপ শ্রীমন্মহাপ্রভু চৈতন্যদেব এর মুল জন্মস্থালী শ্রীনবদ্বীপ ধাম অতর্গত প্রাচীন মায়াপুর নামক স্থল এবং নবনির্মিত মায়াপুর(প্রাচীন মিয়াপুর)এর মধ্যে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়। বহু ইস্কোন অনুগামী যেহেতু নবীন মায়াপুর কে শ্রীনবদ্বীপ ধাম অতর্গত প্রাচীন মায়াপুর(মহাপ্রভু)জন্মস্থান একটাই এমন ভ্রম হয় কিন্তু মুল স্থানীয় বাসীন্দারা এবং পরম্পরাগত শ্রীচৈতন্য অনুগামী গণ শ্রীনবদ্বীপ ধাম অতর্গত প্রাচীন মায়াপুর স্থলী কেই শ্রীমন্মহাপ্রভু জন্মস্থান হিসেবে গণ্য করে ।[৫]

ইসকন মন্দিরসম্পাদনা

এখানে ইসকন (আন্তর্জাতিক কৃষ্ণভাবনামৃত সংঘ) প্রতিষ্ঠিত এবং নির্মাণাধীন চন্দ্রোদয় মন্দির আছে। এই মন্দিরের অধিকাংশ সেবক পাশ্চাত্যদেশ হয়তে আগত , যারা ইউরোপ ও আমেরিকার নানা দেশ থেকে এসে সনাতন ধর্ম গ্রহণ করেছেন[৬]

মায়াপুর কলকাতার সাথে সড়কপথে যুক্ত। নিকটবর্তী রেলস্টেশন গঙ্গার অপর পাড়ে শ্রীনবদ্বীপ ধাম রেলওয়ে স্টেশন। এছাড়া কলকাতার শিয়ালদহ রেলওয়ে স্টেশন থেকে ট্রেনে কৃষ্ণনগর এসে সেখান থেকে বাসে মায়াপুর পৌঁছনো যায়। মায়াপুরের প্রধান উৎসবগুলি হল চন্দনযাত্রা, স্নানযাত্রা,রথযাত্রা , ঝুলনযাত্রা ,জন্মাষ্টমী , রাধাষ্টমী, রাসযাত্রা, শ্রীল প্রভুপাদের ব‍্যাসপূজা, দোলযাত্রা প্রভৃতি।

 
চন্দ্রোদয় মন্দিরে শ্রীল প্রভুপাদের পুষ্পসমাধির সম্মুখভাগ
 
চন্দ্রোদয় মন্দিরে শ্রীল প্রভুপাদের পুষ্পসমাধি

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Bhatia, Varuni (২০১৭)। Unforgetting Chaitanya: Vaishnavism and Cultures of Devotion in Colonial Bengal (ইংরেজি ভাষায়)। Oxford University Press। পৃষ্ঠা ১৯০। আইএসবিএন 978-0-19-068624-6 
  2. মণ্ডল, মৃত্যুঞ্জয়। "চৈতন্যদেব"Internet Archive (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৮-১৬ 
  3. বসু, শ্রীসত্যেন্দ্রনাথ। "শ্রীগৌরাঙ্গদেবের জন্মস্থান" (PDF)উইকিসংকলন। পৃষ্ঠা ২৯। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৮-১৬ 
  4. বসু, শ্রীসত্যেন্দ্রনাথ। "শ্রীগৌরাঙ্গদেবের জন্মস্থান" (PDF)উইকিসংকলন। পৃষ্ঠা ৩০। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৮-১৬ 
  5. রাঢ়ি, কান্তিচন্দ্র। "নবদ্বীপতত্ত্ব - ২য় সংস্করণ"Internet Archive (ইংরেজি ভাষায়)। পৃষ্ঠা ৬। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৮-১৬ 
  6. "ইসকন"। সংগ্রহের তারিখ ২২.০১.১৭  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)

বহিঃসংযোগসম্পাদনা