মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ

বাংলাদেশ সরকারের একটি বিভাগ

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ (বাংলাদেশ মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ) বাংলাদেশ সরকারের প্রশাসনের জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত এবং বাংলাদেশ মন্ত্রিপরিষদের এর নমনীয় কার্যাবলী পরিচালনা করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। সরকার মন্ত্রণালয়/বিভাগের মধ্যে পার্থক্যকে বিশৃঙ্খলা ও আন্তঃসম্পর্কীয় সমন্বয় নিশ্চিত করার মাধ্যমে সচিবের স্থায়ী/আডহক কমিটিসমূহের মাধ্যমে গঠনমূলক সিদ্ধান্ত গ্রহণে সরকারকে সিদ্ধান্তে সহায়তা করে। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সচিবালয়ে শীর্ষ নীতি-ব্যবস্থাপনা বিভাগ যা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রেখে কাজ করে। এ বিভাগ মন্ত্রিসভায় গৃহীত গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন এবং বিশেষভাবে যেসব বিষয়ে একাধিক মন্ত্রণালয়/বিভাগের সহযোগিতা ও যৌথ কার্যব্যবস্থা গ্রহণের প্রয়োজন, সেসব বিষয়ে আন্তঃমন্ত্রণালয় সমন্বয় কার্যকর করে। মন্ত্রিপরিষদ সচিব মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের আনুষ্ঠানিক প্রধান। তিনি শীর্ষপদের সরকারি কর্মকর্তাদের মধ্য থেকে মনোনীত হন। পদমানক্রমে তার পদমর্যাদা সংসদ সদস্য এবং তিন বাহিনী প্রধানদের উপরে। তিনি আন্তঃমন্ত্রণালয় আলোচনা বিষয়ক কয়েকটি সচিব পর্যায়ের কমিটিরও প্রধান। তিনি প্রশাসন উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটি ও সুপিরিয়র সিলেকশন বোর্ডেরও চেয়ারম্যান। বস্ত্তত মন্ত্রিপরিষদ সচিব প্রধানমন্ত্রী/মন্ত্রিসভার প্রধান উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করেন।[১]

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ
বাংলাদেশ মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ
Government Seal of Bangladesh.svg
বাংলাদেশ সরকারের সীল
সংস্থার রূপরেখা
গঠিত১৯ অক্টোবর ১৯৯১
সদর দপ্তরবিল্ডিং নং ১, রুম নং ৩০১, বাংলাদেশ সচিবালয়, ঢাকা -১০০০
দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী
সংস্থা নির্বাহীগণ
ওয়েবসাইটcabinet.gov.bd

ইতিহাসসম্পাদনা

১৯৭২ সালে বাংলাদেশ সরকারকে সাচিবিক সহায়তা প্রদানের জন্য মন্ত্রিপরিষদ মন্ত্রণালয় গঠিত হয়। ১৯৮৫ সালের পর এটি রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের অধীনে অনুষ্ঠিত হয়। ১৯৯১ সালের পর সংসদের আইন দ্বারা সরকার রাষ্ট্রপতি সরকার বিলুপ্ত হয়ে যায় এবং ১৯৯১ সালের অক্টোবরে পূর্ণাঙ্গ প্রশাসন হিসাবে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ গঠিত হয়।

কার্যাবলীসম্পাদনা

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের প্রধান কাজগুলি হলো:

  • মন্ত্রিসভা ও বিভিন্ন কমিটির বৈঠক আহবান এবং প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী এসব বৈঠকের আলোচ্যসূচি প্রণয়ন করা;
  • বিভিন্ন মন্ত্রণালয়/বিভাগ কর্তৃক মন্ত্রিসভা/কমিটির কাছে প্রয়োজনীয় নীতিপত্র ও আনুষঙ্গিক তথ্য যথাযথভাবে উপস্থাপনের বিষয় নিশ্চিত করা;
  • মন্ত্রিসভা/কমিটির বৈঠকের কার্যবিবরণী ও সিদ্ধান্তসমূহ লিপিবদ্ধ করা এবং সেগুলি সংশ্লিষ্ট সকলের মধ্যে বিলি করা;
  • সিদ্ধান্ত ও নীতিনির্দেশনার বাস্তবায়ন পর্যায়ে দায়িত্ব পালন করা এবং এ সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রিসভা ও মন্ত্রিসভার কমিটিগুলির নিকট প্রতিবেদন উপস্থাপন করা;
  • ভিন্ন মন্ত্রণালয়/বিভাগ এবং তৎসংশ্লিষ্ট অধিদপ্তর/কার্যালয়ের কার্যাবলির ওপর নির্দিষ্ট সময় অন্তর প্রতিবেদন গ্রহণ এবং সেগুলি যাচাই ও পরীক্ষা করে প্রাসঙ্গিক তথ্যাদি প্রধানমন্ত্রী/মন্ত্রিসভা সমীপে উপস্থাপন করা। তদুপরি, প্রধানমন্ত্রী/মন্ত্রিপরিষদ কর্তৃক মাঝে মাঝে গঠিত কমিটিসহ মন্ত্রিপরিষদ বিভাগই রাষ্ট্রপতি প্রধানমন্ত্রী ও অপরাপর মন্ত্রীর জন্য সাচিবিক কাজ সম্পন্ন করে। রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রীদের বেতন ও সুযোগ-সুবিধাদি সম্পর্কিত কাজও এ বিভাগ সম্পাদন করে থাকে। কার্যবিধি প্রণয়ন এবং বিভিন্ন মন্ত্রণালয়/বিভাগের মধ্যে কার্যবণ্টনের দায়িত্বও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ পালন করে।

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ"। বাংলাপিডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ৪ আগস্ট ২০১৭ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা