প্রধান মেনু খুলুন

বেঞ্জামিন ডিসরেইলি, বেকন্সফিল্ডের ১ম আর্ল, টেমপ্লেট:Postnominal-GBR, টেমপ্লেট:Postnominal-GBR, টেমপ্লেট:Postnominal-GBR (২১ ডিসেম্বর ১৮০৪ – ১৯ এপ্রিল ১৮৮১) ছিলেন ব্রিটিশ কনজারভেটিভ পার্টির একজন রাষ্ট্রনায়ক, যিনি দুইবার যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী  হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।  তিনি আধুনিক কনজারভেটিভ পার্টি গঠন, তার নীতিগুলির ব্যাখ্যা এবং তার ব্যাপক প্রচারের ক্ষেত্রে একটি মুখ্য ভূমিকা পালন করেন । ডিসরেইলি লিবারেল পার্টি নেতা উইলিয়াম এওয়ারট গ্ল্যাডস্টোন, এবং তাঁর এক জাতির রক্ষণশীলতা বা "টোরি গণতন্ত্রের" বিরুদ্ধে তাঁর রাজনৈতিক যুদ্ধ এবং বৈশ্বিক বিষয়ে তাঁর প্রভাবশালী বক্তব্যের জন্য স্মরনীয়। তিনি কনজারভেটিভ পার্টিকে ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের গৌরব ও শক্তি দিয়ে সর্বোপর চিহ্নিত করেছেন। তিনি ইহুদিজাত একমাত্র ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী এবং একটি জাতিগত সংখ্যালঘু পটভূমির প্রথম ব্যক্তি, যেটি গ্রেট অফস অফ স্টেটস তিনি ছিলেন একজন ঔপন্যাসিক, কল্পকাহিনী রচনাও করেন এমনকি প্রধানমন্ত্রী পদাসীনকালেও।

দা রাইট
বেকসনফিল্ডের আর্ল
KG PC FRS
বৃদ্ধ বয়সে ডিসরেইলি, টাই এবং টুপি সহ একটি ডবল ব্রেস্টেড স্যুট পরা,
১৮৭৮ সালে কর্ণেলিয়াস  জাবজ  হিউজেস দ্বারা ডিজরেইলির আলোকচিত্র
যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী
কাজের মেয়াদ
২০ ফেব্রুয়ারি ১৮৭৪ – ২১ এপ্রিল ১৮৮০
সার্বভৌম শাসকভিক্টোরিয়া
পূর্বসূরীউইলিয়াম এওয়ার্ট গ্ল্যাডস্টোন
উত্তরসূরীউইলিয়াম এওয়ার্ট গ্ল্যাডস্টোন
কাজের মেয়াদ
২৭ ফেব্রুয়ারি ১৮৬৮ – ১ ডিসেম্বর ১৮৬৮
সার্বভৌম শাসকভিক্টোরিয়া
পূর্বসূরীডার্বির আর্ল
উত্তরসূরীউইলিয়াম এওয়ার্ট গ্ল্যাডস্টোন
বিরোধী দলের নেতা
কাজের মেয়াদ
২১ এপ্রিল ১৮৮০ – ১৯ এপ্রিল ১৮৮১
সার্বভৌম শাসকভিক্টোরিয়া
পূর্বসূরীমারকুইস অফ হার্টিংটন
উত্তরসূরীউইলিয়াম এওয়ার্ট গ্ল্যাডস্টোন
কাজের মেয়াদ
১ ডিসেম্বর ১৮৬৮ – ১৭ ফেব্রুয়ারি ১৮৭৪
সার্বভৌম শাসকভিক্টোরিয়া
পূর্বসূরীউইলিয়াম এওয়ার্ট গ্ল্যাডস্টোন
উত্তরসূরীউইলিয়াম এওয়ার্ট গ্ল্যাডস্টোন
ধনাধ্যক্ষ
কাজের মেয়াদ
৬ জুলাই ১৮৬৬ – ২৯ ফেব্রুয়ারী ১৮৬৮
পূর্বসূরীউইলিয়াম এওয়ার্ট গ্ল্যাডস্টোন
উত্তরসূরীজর্জ ওয়ার্ড হান্ট
কাজের মেয়াদ
২৬ ফেব্রুয়ারী ১৮৫৮ – ১১ জুন ১৮৫৯
পূর্বসূরীস্যার জর্জ কর্নওয়াল লুইস
উত্তরসূরীউইলিয়াম এওয়ার্ট গ্ল্যাডস্টোন
কাজের মেয়াদ
২৭ ফেব্রুয়ারি ১৮৫২ – ১৭ ডিসেম্বর ১৮৫২
পূর্বসূরীচার্লস উড
উত্তরসূরীউইলিয়াম এওয়ার্ট গ্ল্যাডস্টোন
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম(১৮০৪-১২-২১)২১ ডিসেম্বর ১৮০৪
Bloomsbury, মিড্ডলসেক্স, England
মৃত্যু১৯ এপ্রিল ১৮৮১(1881-04-19) (বয়স ৭৬)
মেফেয়ার, লন্ডন, ইংল্যান্ড
সমাধিস্থলসেন্ট মাইকেল ও অল এঞ্জেলস চার্চ, হুজেন্ডেন
রাজনৈতিক দলকনজারভেটিভ
দাম্পত্য সঙ্গীমেরি অ্যান লুইস (বি. ১৮৩৯; মৃ. ১৮৭২)
পিতামাতাআইজ্যাক ডিসরায়েলী
মরিয়ম বেসভি
স্বাক্ষরকালির টানা হাতে লিখিত স্বাক্ষর।

ডিসরেইলি ব্লুমসবারিতে জন্মগ্রহণ করেন, যেটি তখন মিডলসেক্সের একটি অংশ ছিল। তাঁর পিতামাতা তাঁদের ধর্ম্মমন্ডলীতে একটি বিতর্কের পর ইহুদীধর্ম ছেড়ে চলে যান; অল্প বয়সী বেঞ্জামিন ১২ বছর বয়সে একজন বিলাতী হয়ে ওঠেন। বেশ কয়েকটি অসফল প্রচেষ্টার পর, ডিসরেইলি ১৮৩৭ সালে হাউস অব কমন্সে প্রবেশ করেন। ১৮৪৬ সালে প্রধানমন্ত্রী স্যার রবার্ট পিল, তাঁর মরসুম আইন বাতিলের প্রস্তাবের ওপর পার্টিকে বিভক্ত করেন। যা আমদানি শস্যের উপর প্রযোজ্য শুল্ক মাফ করে। ডিসরেইলি হাউস অফ কমন্সে পিলের সঙ্গে বিতর্কে লিপ্ত হন। ডিসরেইলি দলের একটি প্রধান চরিত্র হয়ে ওঠেন। যখন দলীয় নেতা লর্ড ডার্বি, ১৮৫০ ও ১৮৬০-এর দশকে তিনবার সরকার গঠন করেন, তখন ডিসরেইলি চ্যান্সেলর হিসাবে কার্যরত থাকেন এবং হাউস অব কমন্সের নেতা ছিলেন।

প্রাথমিক জীবনসম্পাদনা

শৈশবসম্পাদনা

ডিসরেইলি ১৮০৪ খ্রিস্টাব্দের ২১ শে ডিসেম্বর লন্ডনের, বেডফোর্ড রো, ব্লুমসবারিতে, ৬ কিংস রোডের [n ১]  সাহিত্য সমালোচক এবং ইতিহাসবিদ আইজাক ডি'ইসরায়েলি এবং মারিয়া (মরিয়ম) ওরফে বেজভীর দ্বিতীয় সন্তান এবং জ্যেষ্ঠ পুত্ররূপে জন্মগ্রহণ করেন।  পরিবার সেফারডিক ইহুদি ইতালীয় কারবারি পটভূমির মানুষ ছিলেন। ডিসরেইলির সকল পিতামহ, প্রপিতামহরা ইতালিতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন; আইজাকের পিতা, বেঞ্জামিন, ১৭৪৮ সালে ভেনিস থেকে ইংল্যান্ডে চলে আসেন। ডিসরেইলি পরে তার জন্মের রোমান্টিকতা প্রকাশ করেন, দাবি করেন যে তার বাবার পরিবার মহান স্প্যানিশ এবং ভিনিয়িয়ান বংশদ্ভুত; প্রকৃতপক্ষে আইজাকের পরিবারটির কোন বড় স্বাতন্ত্র্য ছিল না, কিন্তু ডিসরেইলির মা এর দিকে ছিল, যেখানে তিনি কোনও আগ্রহই নেননি, অথচ সেদিকে কিছু বিশিষ্ট পূর্বপুরুষ ছিলেন। [৪][n ২] ঐতিহাসিকরা ডিসরেইলির পারিবারিক ইতিহাসের পুনর্বিন্যাসের জন্য তাঁর উদ্দেশ্য নিয়ে ভিন্ন ভিন্ন মত পোষণ করেন: বার্নার্ড গ্লাসম্যান যুক্তি দেন যে, তাকে ইংল্যান্ডের শাসক অভিজাত শ্রেণীর তুলনায় তার অবস্থানের তুলনা করার অভিপ্রায়ে এটি করেছিলেন;[৫] সারাহ ব্র্যাডফোর্ড বিশ্বাস করেন যে, সাধারণভাবে তার এটি "অপছন্দ" ছিল যে তাঁর সম্মান তাঁকে, তাঁর জন্মের ঘটনা অতি মধ্যবিত্ত ও অচমকপ্রদ হিসাবে গ্রহণ করার অনুমতি দেয় না যেমনটি আসলে ছিল "।[৬]

ঐতিহাসিক মাইকেল ডায়মন্ডের প্রতিবেদন যে ১৮৮০ ও ১৮৯০-এর দশকে ব্রিটিশ মিউজিক হলের পৃষ্ঠপোষকতায় "জিনোফোবিয়া ও সাম্রাজ্যে গর্ব" প্রেক্ষাগৃহে প্রতিফলিত হয়েছিল: সমস্ত জনপ্রিয় দেশনেতাগণ রক্ষনশীল ছিলেন এবং ডিসরেইলিই সর্বোত্তম ছিলেন, তাই তাঁর মৃত্যুর পরও দশকের পর দশক ধরে, সবচেয়ে জনপ্রিয় রাজনৈতিক নায়ক হিসাবে তাকে দেখান হয়; যেখানে গ্ল্যাডস্টোন একজন ভিলেন হিসাবে ব্যবহৃত হন। চলচ্চিত্র ইতিহাসবিদ রায় আর্মস যুক্তি দিয়েছেন যে ঐতিহাসিক ছায়াছবিগুলি ১৯২০ ও ১৯৩০-এর দশকে ব্রিটেনের রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখার জন্য একটি প্রতিষ্ঠিত দৃষ্টিভঙ্গি প্রয়োগ করে, যা রাজতন্ত্র, সাম্রাজ্য ও ঐতিহ্যের মহত্ত্বের উপর জোর দেয়। চলচ্চিত্রগুলি "একটি অনুকরণীয় জগৎ তৈরি করেছিল যেখানে বিদ্যমান মূল্যবোধগুলি চলচ্চিত্রের ঘটনাগুলি দ্বারা অস্তিত্বগতভাবে যাচাই করা হতো এবং যেখানে সবরকমের মতভেদ, স্থিরতার স্বীকৃতির মাধ্যমে সমন্বয়ে পরিণত হতে পারে।" স্টিভেন ফিল্ডিং যুক্তি দেন যে ডিসরেইলি একজন বিশেষ জনপ্রিয় হিরো ছিলেন: "ঐতিহাসিক নাটক গ্যালেডস্টোনের থেকে বেশী ডিসরেইলিকে সমর্থন করেছিল এবং আরও সুস্পষ্টভাবে মূলত গণতান্ত্রিক নেতৃত্বের অনস্বীকার্য্য চেহারা ঘোষণা করেছিল।" মঞ্চ ও চলচিত্র অভিনেতা জর্জ আরলিস ১৯২৯ সালের ডিসরেইলি ছবিটিতে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে অস্কার লাভ করেন। তিনি চলচিত্রে ডিসরেইলি'র চরিত্রে অভিনয়ের জন্য সুপরিচিত ছিলেন। ফিল্ডিং বলেছেন আরলস "সিনেমার দর্শকদের মূল অংশের হৃদয়গ্রাহী একজন পিতৃবৎ, সদয়, ঘরোয়া রাষ্ট্রনেতার ব্যক্তিত্ব এমনভাবে মূর্ত করেছিলেন যাতে শ্রমিক যারা লেবার পার্টি মিটিংএ অংশগ্রহণ করছিলেন, তারা তাঁদের নেতৃবৃন্দ যারা উন্নত সামাজিক পটভূমির এবং নিজেরা যত্নশীল বলে দেখাতেন তাঁদের মতবিরোধ করেছেন।"

১৯ শতক ও ২০ শতকের প্রারম্ভে সংস্কৃতিতে চিত্রণসম্পাদনা

ডিসরেইলিকে নিয়ে মুখ্য প্রযোজনাগুলির অন্তর্ভুক্ত:

  • "ডিসরেইলি (১৯১১, ইউ কে থিয়েটার)" - জর্জ আরলিস দ্বারা অভিনীত;
  • "ডিসরেইলি(১৯১৬, ইউকে ফিল্ম)" - ডেনিস এডি দ্বারা অভিনীত;
  • "ডিসরেইলি(১৯২১, মার্কিন ফিল্ম)" - জর্জ আরলিস দ্বারা অভিনীত;
  • "ডিসরেইলি (১৯২৯, মার্কিন ফিল্ম)" - জর্জ আরলিস দ্বারা অভিনীত;
  • "ভিক্টোরিয়া দ্য গ্রেট (ইউকে, ১৯৩৭)" - ডেরিক দে মারনি (যুবা অবস্থা) / হুগ মিলার (বয়স্ক) দ্বারা অভিনীত;
  • "সুয়েজ (মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ১৯৩৮)" - মাইলস মান্ডারের দ্বারা অভিনীত;
  • "প্রধানমন্ত্রী (ইউকে, ১৯৪১)" - স্যার জন গিলগুড দ্বারা অভিনীত;
  • "মিঃ গ্ল্যাডস্টোন (ইউকে-টেলিভিশন, ১৯৪৭)" - সিডনি টাফলারের দ্বারা অভিনীত;
  • "বার্ক্লে স্কোয়ারের ভূত (ইউকে, ১৯৪৭)" - আব্রাহাম সোফার দ্বারা অভিনীত;
  • "দ্য মুডলার্ক (মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ১৯৫০)" - স্যার আলেক গিনেজ দ্বারা অভিনীত।

আরও পড়ুনসম্পাদনা

  1. The street was renamed some time after 1824 as Theobald's Road;[১] a commemorative plaque marks the current 22 Theobald's Road as Disraeli's birthplace.[২][৩]
  2. Disraeli's mother's ancestors included Isaac Aboab, the last Gaon of Castille, the Cardoso family (among whose members were Isaac Cardoso and Miguel Cardoso), the Rothschilds, and other prominent families; Disraeli was described in The Times as having "some of the best blood in Jewry".[৪]
  1. Pierpoint, Robert. "Kingsway" Notes and Queries, 26 August 1916, p. 170
  2. Blake (1967), p. 3
  3. "Disraeli, Benjamin, Earl of Beaconsfield, 1804–1881" English Heritage, accessed 20 August 2013
  4. Wolf, Lucien. "The Disraeli Family", The Times, 21 December 1904, p. 12
  5. Glassman, p. 32
  6. Bradford, p. 1