প্রধান মেনু খুলুন
Dakshayani.jpg

বৃন্দাবন শক্তিপীঠ হল ৫১ শক্তিপীঠের একটি। এই স্থানে দেবীর আঙটি পতিত হয়।[১][২][৩]

দেবী ও ভৈরবসম্পাদনা

এখানে দেবীর নাম উমা বা কাত্যায়নী । ভৈরবের নাম ভূতেশ।[১] নবদুর্গার ষষ্ঠ রূপ কাত্যায়নী। নবরাত্রি উৎসবের ষষ্ঠ দিনে তাঁর পূজা করা হয়। তিনি আজ্ঞা চক্রের অধিষ্ঠাত্রী দেবী।দেবী কাত্যায়নীর পূজা করলে ভক্ত ধর্ম, অর্থ, কাম ও মোক্ষ–এই চার ফল লাভ করে; তার সমস্ত রোগ-শোক-ভয় দূর হয়; দূর হয় জন্ম-জন্মান্তরের পাপও। ভাগবত পুরাণ এ আছে, ব্রজের গোপীগণ কৃষ্ণকে পতিরূপে পাওয়ার জন্য সারা মাঘ মাস জুড়ে কাত্যায়নী ব্রত পালন করেছিলেন।এই একমাস তাঁরা কেবলমাত্র মশলাবিহীন খিচুড়ি খেতেন এবং সকাল বেলা যমুনায় স্নান করে যমুনাতীরে মাটির কাত্যায়নী মূর্তি গড়ে চন্দন, দীপ, ফল, পান, নবপত্র, মালা ও ধূপ দিয়ে দেবীর পূজা করতেন।[৪]

মন্দিরসম্পাদনা

রঙ্গনাথ মন্দিরের কাছে রাধাবাগে কাত্যায়নী মন্দির অবস্থিত।বর্তমান মন্দিরটি ১৯২৩ সালে যোগীরাজ স্বামী কেশবানন্দ দ্বারা স্থাপিত হয়। এই মন্দিরে একটি বড় তলোয়ার আছে যাকে উচ্ছল চন্দ্রহাস বলে। দেবী উমাকে এখানে যোগমায়া রূপেও পুজো করা হয়।বৃন্দাবনের ভূতেশ্বর রোডের কাছে ভূতেশ্বর মহাদেব মন্দির ।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. বাংলালাইভ (২০১৭-০৯-২১)। "অমরনাথ এবং দন্তেওয়াড়া সতীর ৫১ পীঠের অন্যতম"BanglaLive (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৩-২৮ 
  2. (Translator), F. Max Muller (১ জুন ২০০৪)। The Upanishads, Vol I। Kessinger Publishing, LLC। আইএসবিএন 1-4191-8641-8 
  3. (Translator), F. Max Muller (২৬ জুলাই ২০০৪)। The Upanishads Part II: The Sacred Books of the East Part Fifteen। Kessinger Publishing, LLC। আইএসবিএন 1-4179-3016-0 
  4. "Sri Katyayani Vrata Story"। ১২ জুন ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৪ এপ্রিল ২০১৯ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা