সংস্কৃতে বিসর্গ শব্দের অর্থ নির্গমন বা বিসর্জন। সংস্কৃত ধ্বনিতত্ত্ব অনুযায়ী বিসর্গ (বা পূর্বের কিছু ব্যকরণবিদদের ভাষ্যে "বিসর্জনীয়") একটি ধ্বনির নাম। এই ধ্বনিটি অঘোষ কণ্ঠনালীয় ঊষ্মধ্বনি ("হ্‌‌‌‌‌‌", /h/)। এটি বিভিন্ন সংস্কৃত-প্রভাবিত ভাষা বা ব্রাহ্মী-উদ্ভূত লিপিতে বৈশিষ্ট্যসূচক বা ধ্বনিনির্দেশক চিহ্ন হিসেবে ব্যবহৃত হয়।

বিসর্গ
বৈশিষ্ট্যসূচক
স্বরাঘাত
acute( ´ )
double acute( ˝ )
grave( ` )
double grave(  ̏ )
breve( ˘ )
inverted breve(  ̑ )
caron, háček( ˇ )
cedilla( ¸ )
circumflex( ˆ )
diaeresis, umlaut( ¨ )
dot( · )
hook, hook above(   ̡   ̢  ̉ )
horn(  ̛ )
macron( ¯ )
ogonek( ˛ )
ring( ˚, ˳ )
rough breathing( )
smooth breathing( ᾿ )
মাঝে মাঝে বৈশিষ্ট্যসূচক হিসাবে ব্যবহৃত চিহ্ন
apostrophe( )
bar( ◌̸ )
colon( : )
কমা( , )
hyphen( ˗ )
tilde( ~ )
অন্যান্য লিপিতে ডায়াক্রিটিক্যাল চিহ্ন
Arabic diacritics
Early Cyrillic diacritics
titlo(  ҃ )
Hebrew diacritics
বাংলার বৈশিষ্ট্যসূচক চিহ্ন
অনুস্বার( )
বিসর্গ( )
চন্দ্রবিন্দু( )
হসন্ত( )
আ-ধ্ব-ব বৈশিষ্ট্যসূচক চিহ্ন
জাপানি বৈশিষ্ট্যসূচক চিহ্ন
দাকুতেন( )
হান্দাকুতেন( )
সম্পর্কিত
বিন্দুর বৃত্ত
বিরাম চিহ্ন
যুক্তিবিজ্ঞান চিহ্ন
লিপি/ভাষা চিহ্ন
দেবনাগরী
বাংলা লিপি
বর্মী লিপি ◌း

বাচন অন্তে বিসর্গ ঘোষ দন্তমূলীয় কম্পনজাতধ্বনি ("র্", /r/) ও অঘোষ দন্তমূলীয় ঊষ্মধ্বনির ("স্", /s/) সহধ্বনি। সংস্কৃত ধ্বনির গতানুগতিক ধারায় বিসর্গ এবং অনুস্বার স্বরবর্ণস্পর্শ ব্যঞ্জনবর্ণের-এর মাঝে আসে।

ধরণসম্পাদনা

বিসর্গ মুলত কোলন (:) চিহ্নের সাদৃশ্য - দেবনাগরীতে বিন্দু (.) এবং বাংলা লিপিতে শুন্য (o) দিয়ে ফুটকিগুলো দেয়া হয়। সংস্কৃত ধ্বনিতত্ত্ব অনুযায়ী বিসর্গের দুটি সহধ্বনি আছে: "জিহ্বামূলীয়" (কন্ঠ্য বিসর্গ) এবং "উপধ্মানীয়" (উষ্ম বিসর্গ)। প্রথমটি "ক", "খ"-এর আগে এবং দ্বিতীয়টি "প", "ফ"-এর আগে উচ্চারিত হয়, যেমন - তব পিতামহঃ কঃ (তোমার দাদা কে?), পক্ষিনঃ খে উড্ডয়ন্তে (পাখিরা আকাশে উড়ে), ভোঃ পাহি (মহাশয়, আমাকে বাঁচান) এবং তপঃফলম্ (প্রায়শ্চিত্তের ফল)।