"বিদ্যাময়ী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
ট্যাগ: ২০১৭ উৎস সম্পাদনা
 
== প্রতিষ্ঠা, নামকরণ, ইতিহাস ==
জেলায় শিক্ষার প্রসার ঘটানোর জন্য ১৮৩৫ সালে জনশিক্ষা কমিটির প্রেসিডেন্ট লর্ড মেকলে ইংরেজি শিক্ষা প্রবর্তনের সুপারিশ করেন। তার সুপারিশে গভর্নর জেনারেল লর্ড উইলিয়াম বেন্টিঙ্কের হাত ধরে ধীরে ধীরে শিক্ষাক্ষেত্রে একটা পরিবর্তন এল।এর জন্যই বিদ্যাময়ী সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ১৮৭৩ সালে আলেকজান্ডার উচ্চ ইংরেজি বিদ্যালয় নামে নারী শিক্ষা প্রসারে [[ময়মনসিংহ]] শহরের কেন্দ্রস্থলে স্থাপিত হয়।<ref>{{cite web
বিদ্যাময়ী সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ১৮৭৩ সালে আলেকজান্ডার উচ্চ ইংরেজি বিদ্যালয় নামে নারী শিক্ষা প্রসারে [[ময়মনসিংহ]] শহরের কেন্দ্রস্থলে স্থাপিত হয়। [[মুক্তাগাছা]], [[গৌরীপুর উপজেলা|গৌরীপুর]] এবং কৃষ্ণনগরের জমিদারগণের উদার অর্থানুকূল্যে পরবর্তী সময়ে বিদ্যালয়টির নবরূপায়ন ঘটে। এদের মধ্যে মুক্তাগাছার জমিদার [[জগৎকিশোর আচার্য চৌধুরী|রাজা জগৎকিশোর আচার্য চৌধুরীর]] বিপুল অর্থদানে এবং ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় বিদ্যালয়টির সম্পূর্ণ নতুন পটভূমি রচিত হয়। তাঁর পূণ্যময়ী জননী বিদ্যাময়ী দেবীর নামে আলেকজান্ডার বিদ্যালয়টি বিদ্যাময়ী নাম ধারণ করে এখন সেই থেকে স্বমহিমায় বিরাজমান।<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি | ইউআরএল=http://www.vidyamayee.com/view.php?route=message | শিরোনাম=প্রতিষ্ঠা ও নামকরণ }}{{অকার্যকর সংযোগ|তারিখ=মার্চ ২০১৯ |bot=InternetArchiveBot |ঠিক করার প্রচেষ্টা=yes }}</ref>
|url= https://www.prothomalo.com/special-supplement/article/1623063/%E0%A6%B8%E0%A6%AC%E0%A6%95%E0%A6%BF%E0%A6%9B%E0%A7%81%E0%A6%A4%E0%A7%87-%E0%A6%8F%E0%A6%97%E0%A6%BF%E0%A7%9F%E0%A7%87-%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%A6%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%AE%E0%A7%9F%E0%A7%80?fbclid=IwAR1r4z6KHIdqi_3I-720uEHmUFPwbzVhzkunlFn2pCYbCKUXPHYJ8lOzsUQ
|title=সবকিছুতে এগিয়ে বিদ্যাময়ী
|last=শেখ সাবিহা
|first=আলম
|date=7 November 2019
|website=prothomalo.com
|access-date=1 June 2020
বিদ্যাময়ী সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ১৮৭৩ সালে আলেকজান্ডার উচ্চ ইংরেজি বিদ্যালয় নামে নারী শিক্ষা প্রসারে [[ময়মনসিংহ]] শহরের কেন্দ্রস্থলে স্থাপিত হয়।}}</ref> [[মুক্তাগাছা]], [[গৌরীপুর উপজেলা|গৌরীপুর]] এবং কৃষ্ণনগরের জমিদারগণের উদার অর্থানুকূল্যে পরবর্তী সময়ে বিদ্যালয়টির নবরূপায়ন ঘটে। এদের মধ্যে মুক্তাগাছার জমিদার [[জগৎকিশোর আচার্য চৌধুরী|রাজা জগৎকিশোর আচার্য চৌধুরীর]] বিপুল অর্থদানে এবং ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় বিদ্যালয়টির সম্পূর্ণ নতুন পটভূমি রচিত হয়। তাঁর পূণ্যময়ী জননী বিদ্যাময়ী দেবীর নামে আলেকজান্ডার বিদ্যালয়টি বিদ্যাময়ী নাম ধারণ করে এখন সেই থেকে স্বমহিমায় বিরাজমান।<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি | ইউআরএল=http://www.vidyamayee.com/view.php?route=message | শিরোনাম=প্রতিষ্ঠা ও নামকরণ }}{{অকার্যকর সংযোগ|তারিখ=মার্চ ২০১৯ |bot=InternetArchiveBot |ঠিক করার প্রচেষ্টা=yes }}</ref>
 
স্থাপনের সুদীর্ঘ একষট্টি বছর পর বিদ্যালয়টি জাতীয়করণ হয় ১৯১২ খ্রিস্টাব্দে। বিদ্যালয়ের প্রাথমিক পর্বে প্রধান শিক্ষকের দায়িত্বে ছিলেন নবকুমার সমাদ্দার। বিদ্যালয়টি বিদ্যাময়ী নামকরণ করার সময় দায়িত্বে ছিলেন শ্রীমতী ঘোষ।