"হেন্ড্রিক আন্টোন লোরেন্‌ৎস" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
| image_width = 150px
| caption = হেন্ড্রিক আন্টোন লোরেন্‌ৎস
| birth_date = [[জুলাই ১৮]], [[১৮৫৩]]
| birth_place = [[আর্নহেম]], [[নেদারল্যান্ড]]
| death_date = [[ফেব্রুয়ারি ৪]], [[১৯২৮]]
| death_place = [[হারলেম]], [[নেদারল্যান্ড]]
| residence = [[চিত্র:Flag of the Netherlands.svg|20px]] [[নেদারল্যান্ড]]
== জীবনী ==
=== প্রাথমিক জীবন ===
লোরেন্‌ৎস নেদারল্যান্ডের [[গেল্ডারল্যান্ড|গেল্ডারল্যান্ডের]] [[আর্নহেম|আর্নহেমে]] [[১৮৬৩]] সালের ১৮ই জুলাই জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবার নাম ''গেরিট ফ্রেডেরিক লোরেন্‌ৎস'' (১৮২২ - ১৮৯৩) (Gerrit Frederik Lorentz) যিনি একজন দোকানদার ছিলেন। মা'র নাম ''গিরটুইডা ভ্যান গিনকেল'' (Geertruida van Ginkel)। [[১৮৬২]] সালে মা মারা যাওয়ার পর তার বাবা ''লুবারটা হাপকিসকে'' বিয়ে করেন। ১৮৬৬ - ১৮৬৯ সাল পর্যন্ত তিনি আর্নহেমের নব্য প্রতিষ্ঠিত একটপ উচ্চ বিদ্যালয়ে অধ্যয়ন করেন। [[১৮৭০]] সালে তিনি [[চিরায়ত ভাষা]] বিষয়ের পরীক্ষাগুলোতে উত্তীর্ণ হন। সে সময় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য এই পরীক্ষায় পাশ করতে হতো। লোরেন্‌ৎস [[লিডেন বিশ্ববিদ্যালয়|লিডেন বিশ্ববিদ্যালয়ে]] [[পদার্থবিজ্ঞান]] এবং [[গণিত]] বিষয়ে পড়াশোনা করেন। সে সময় তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের জ্যোতির্বিজ্ঞানের অধ্যাপক [[ফ্রেডেরিক কাইসার]] কর্তৃক ব্যাপক প্রভাবিত হন। তার উৎসাহেই তিনি একজন পদার্থবিজ্ঞানী হওয়ার স্বপ্ন দেখতে শুরু করেন। [[স্নাতক ডিগ্রী]] অর্জনের পর [[১৮৭২]] সালে আর্নহামে ফিরে গিয়ে উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে গণিত পড়ানো শুরু করেন। এর পাশাপাশি তিনি লিডেনে তার পড়াশোনাও চালিয়ে যেতে থাকেন। [[১৮৭৫]] সালে লোরেন্‌ৎস অধ্যাপক [[পিটার রাইক|পিটার রাইকের]] অধীনে [[পিএইচডি]] ডিগ্রী লাভ করেন। তার পিএইচডি থিসিসের বিষয় ছিলো ''"Over de theorie der terugkaatsing en breking van het licht"'' (আলোর প্রতিফলন এবং প্রতিসরণের উপর গবেষণা)। এই গবেষণাপত্রেই তিনি [[জেমস ক্লার্ক ম্যাক্সওয়েল|জেমস ক্লার্ক ম্যাক্সওয়েলের]] [[তড়িৎ-চৌম্বক তত্ত্ব]] সংশোধন করে তাকে নতুন রূপ দান করেন।
 
[[১৮৮১]] সালে ''আলেটা ক্যাথারিনা কাইসারকে'' বিয়ে করার মাধ্যমে তার পারিবারিক জীবনের সূচনা হয়। ক্যাথারিনা ফ্রেডেরিক কাইসারের ভাতিজি ছিলো। তার বাবার নাম [[ইয়োহান ভিলহেল্‌ম কাইসার]] যিনি [[আমস্টারডাম|আমস্টারডামের]] এনগ্রেভিং স্কুলের পরিচালক, [[চারু কলা|চারু কলার]] অধ্যাপক এবং [[১৮৫২]] সালে নেদারল্যান্ডে প্রচলিত ডাচ [[ডাক স্ট্যাম্প|ডাক স্ট্যাম্পের]] নকশাকার। এরপর কাইসার আমস্টারডামের ''ন্যাশনাল গ্যালারি'' হিসেবে পরিচিত [[রাইক্‌স জাদুঘর|রাইক্‌স জাদুঘরের]] পরিচালকও ছিলেন। হেনড্রিক এবং আলেটার বড় মেয়েও একজন পদার্থবিজ্ঞানী হিসেবে প্রতিষ্ঠা পেয়েছিলো। তার নাম [[গিরট্রুইডা দ্য হ্যাস-লরেঞ্জ]] (Geertruida de Haas-Lorentz)।
 
=== লিডেনের অধ্যাপক ===
[[১৮৭৮]] সালে লোরেন্‌ৎস লিডেন বিশ্ববিদ্যালয়ের তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞান বিভাগে প্রতিষ্ঠিত নতুন পদে একজন অধ্যাপক হিসেবে নিয়োগ পান। [[১৮৭৮]] সালের [[জানুয়ারি ২৫|২৫ জানুয়ারিতে]] লোরেন্‌ৎস বিশ্ববিদ্যালয়ে তার প্রথম লেকচার দেন যার বিষয় ছিলো ''"De moleculaire theoriën in de natuurkunde"'' (পদার্থবিজ্ঞানের আণবিক তত্ত্বসমূহ)।
 
লিডেনে অধ্যাপনার প্রথম বিশ বছর লোরেন্‌ৎস তাড়িতচৌম্বক তত্ত্ব এবং তড়িৎ, চুম্বক ও আলোর সম্পর্ক নিয়ে গবেষণায় উৎসাহী ছিলেন। এরপর তার কর্মক্ষেত্র আরও অনেক প্রসারিত করেন যদিও সেসব ক্ষেত্রও তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞানের সাথেই সম্পর্কিত ছিল। তার প্রকাশিত নিবন্ধ ও অন্যান্য রচনা থেকে জানা যায় যে তিনি [[বলবিজ্ঞান]], [[তাপগতিবিজ্ঞান]], [[গতিবিজ্ঞান]], কঠিন অবস্থা তত্ত্ব, আলো এবং প্রোপাগেশন বিষয়ে অবদান রেখেছেন। তার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান ছিলো তড়িৎচুম্বকত্ব, ইলেক্ট্রন তত্ত্ব এবং আপেক্ষিকতা বিষয়ে।
১,৮২,৩৮১টি

সম্পাদনা