"ক্লাইভ র‍্যাডলি" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে আটটি টেস্ট ও চারটি [[একদিনের আন্তর্জাতিক|একদিনের আন্তর্জাতিকে]] অংশগ্রহণ করেছিলেন। [[প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট|প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে]] সংগৃহীত ৩৫.৪৪ ব্যাটিংয়ের গড়ের তুলনায় টেস্টের ৪৮.১০ গড় তুলনান্তে অনেক বেশি। তবে, বেশ বয়স নিয়ে তেত্রিশ বছর বয়সে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটেছিল ৫ ফুট ১০ ইঞ্চি উচ্চতার অধিকারী ক্লাইভ র‍্যাডলি’র।<ref name="Cap"/> ১ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭৮ তারিখে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে [[টেস্ট ক্রিকেট|টেস্ট ক্রিকেটে]] অভিষেক ঘটে ক্লাইভ র‍্যাডলি’র।
 
অকল্যান্ডে অনুষ্ঠিত নিজস্ব দ্বিতীয় টেস্টে দীর্ঘ ১১ ঘন্টাঘণ্টা ক্রিজে অবস্থান করে ১৫৮ রানের ইনিংস খেলেছিলেন। এরপর পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টেও ১১৫ রান তুলেন। শেষ দুই টেস্টে ৫৯ ও ৭৭ রানের [[ইনিংস]] খেলেন। ফলশ্রুতিতে শীতকালে অস্ট্রেলিয়া গমনের জন্যে ইংরেজ দলের সদস্যরূপে মনোনীত হন।
 
বেশ দূর্ভাগ্যজনকভাবে ক্লাইভ র‍্যাডলি’র টেস্ট খেলোয়াড়ী জীবন স্বল্প সময়েই শেষ হয়ে যায়। ১৯৭৮-৭৯ মৌসুমে [[অস্ট্রেলিয়া জাতীয় ক্রিকেট দল|অস্ট্রেলিয়া]] গমন করেন। সিরিজের প্রথম টেস্টে মাথায় গুরুতর আঘাত পেলে এ ঘটনা ঘটে। স্বল্প কয়েকজন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটারের অন্যতম হিসেবে সর্বশেষ একদিনের আন্তর্জাতিকে [[শতক (ক্রিকেট)|শতরান]] করার গৌরব অর্জন করেছিলেন। ১৯৭৮ সালে [[নিউজিল্যান্ড জাতীয় ক্রিকেট দল|নিউজিল্যান্ডের]] বিপক্ষে এ শতরানটি করেছিলেন।
১,৭৪,২৯৯টি

সম্পাদনা