"হামাদ বিন ঈসা আল খলিফা" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
 
==সার্বভৌম কর্তৃত্ব==
[[File:HamadDefense.gov inNews 2003Photo 030204-D-9880W-074.jpg|thumb|left|ডোনাল্ড রমেস ফিল্ডের সাথে হামাদ]]
পিতা ঈসা বিন সালমান আল খলিফার মৃত্যুর পরে ১৯৯৯<ref name="acrli"/> সালের ৬ ই মার্চ হামাদ বাহরাইনের আমির নিযুক্ত হন। আমির হিসাবে হামাদ বাহরাইনে বহু রাজনৈতিক পরিবর্তন সাধন করেন ।
এর মধ্যে রয়েছে সকল রাজবন্ধিদের মুক্তি প্রদান, রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা আদালত বিলুপ্তি এবং রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা বিয়ক ১৯৭৪ সালে জারী করা নির্বাহী আদেশ বাতিল করা। এর পাশাপাশি তিনি বহু রাজ্যবিতাড়িত বাহরাইনি নাগরীককে স্বদেশে প্রত্যাবর্তনের সুযোগ করে দেন।<ref name="AI_Bahr_promising">{{সাময়িকী উদ্ধৃতি|শিরোনাম =Bahrain: Promising human rights reform must continue|প্রকাশক=[[Amnesty International]]|তারিখ=13 March 2001|ইউআরএল =http://www.amnesty.org/en/library/asset/MDE11/005/2001/en/d76b504c-f84c-11dd-a0a9-2bd73ca4d38a/mde110052001en.pdf|বিন্যাস=[[Portable Document Format|pdf]]|সংগ্রহের-তারিখ=9 February 2011|আর্কাইভের-ইউআরএল=http://www.webcitation.org/5wNVoYKJs|আর্কাইভের-তারিখ=9 February 2011|অকার্যকর-ইউআরএল=no}}</ref> তিনি নিজেকে ২০০২ সালে বাদশাহ ঘোষণা করেন। তার বাস্তবায়ন করা ব্যাপক নির্বাহীকর্তৃত্ত্বের মধ্যে রয়েছে প্রধানমন্ত্রী ও অন্যান্য মন্ত্রীদের নিয়োগ প্রদান, সেনাবাহিনীর নেতৃত্বদান, উচ্চ বিচারিক আদালতের প্রধান নির্বাহীর দায়িত্ব পালন, এবং নির্বাচিত নিম্ন কক্ষের সদস্যদের উপর উচ্চ কক্ষের সংসদ সদস্যগের নিয়োগদান।<ref name="Fr 15.2.2011">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://files.bici.org.bh/BICIreportEN.pdf|শিরোনাম=(Report). Bahrain Independent Commission of Inquiry. 23 November 2011|প্রকাশক=[[Bahrain Independent Commission of Inquiry|BICI]]|তারিখ=23 November 2011|সংগ্রহের-তারিখ=23 November 2011}}</ref>
৪১টি

সম্পাদনা