"বাংলাদেশ বার কাউন্সিল" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

(→‎ইতিহাস: সম্প্রসারণ)
 
== কার্যক্রম ==
আইনজীবীদের বিরুদ্ধে অভিযোগগুলি তদন্ত ও বিচারের জন্য বার কাউন্সিল ট্রাইব্যুনাল প্রতিষ্ঠা করা হয়। ২০১৯ সালে এই জাতীয় পাঁচটি ট্রাইব্যুনাল ছিল। একটি ট্রাইব্যুনাল কোনও আইনজীবীকে তিরস্কার বা স্থগিত করতে বা অনুশীলন থেকে সরিয়ে দিতে পারে। এটি ২০১৪ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত আইনজীবীদের বিরুদ্ধে ৩৭৮টি অভিযোগের সাথেবিষয়ে মোকাবিলাশুনানি করেছে। নয়এসব অভিযোগে ৯ জন আইনজীবী তাদের লাইসেন্স স্থায়ীভাবে হারিয়েছেন এবং ৬ জনকে সীমিত সময়ের জন্য স্থগিত করা হয়েছে। <ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.thedailystar.net/law-our-rights/news/how-does-the-bar-council-tribunal-function-1704235|শিরোনাম=How does the Bar Council Tribunal function|তারিখ=19 February 2019|সংগ্রহের-তারিখ=15 April 2019|প্রকাশক=Daily Star}}</ref>
 
=== কমিটি ===
বার কাউন্সিলের কয়েকটি স্থায়ী কমিটি রয়েছে। এরমধ্যে
 
# প্রশাসন পরিচালনার জন্য নির্বাহী কমিটি
# আইনজীবীদের সদস্যভুক্ত করার জন্য পরীক্ষা পরিচালনা ও নিবন্ধন কমিটি
# কাউন্সিলের অর্থ বা তহবিল নিয়ন্ত্রণ ও ব্যবস্থাপনার জন্য ফাইন্যান্স কমিটি
# আইনজীবীদের আইনগত শিক্ষার মান নির্ধারণের জন্য আইনি শিক্ষা কমিটি।
# অন্যান্য কাজের জন্যে বার কাউন্সিলের সদস্য সমন্বয়ে গঠিত বিভিন্ন সময়ে কর্মসূচি ভিত্তিক কমিটি।<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://www.dailysangram.com/?post=376092-আইনজীবী-তৈরির-কারখানা-বাংলাদেশ-বার-কাউন্সিল|শিরোনাম=আইনজীবী তৈরির কারখানা ‘বাংলাদেশ বার কাউন্সিল’|ওয়েবসাইট=The Daily Sangram|সংগ্রহের-তারিখ=2019-11-13}}</ref>
 
== ইতিহাস ==