"মহাসাগর" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
 
== পরিচিতি ==
প্রচলিতভাবে আমরা বিভিন্ন ধরণেরধরনের মহাসাগরের নাম দেখতে পাই। একসময় বর্তমানকালের মহাসাগরগুলোর আন্তঃসংযোগকৃত লবণাক্ত জলরাশি ‘বৈশ্বিক মহাসাগর’ হিসেবে নির্দেশ করতো। মহাসাগর মূলতঃ একটি। এ ধারণাটি অবিচ্ছেদ্য ও পারস্পরিক সম্পর্কযুক্ত এবং মুক্ত জলরাশির আন্তঃসংযোগে [[মহাসাগরীয়বিদ্যা|মহাসাগরীয়বিদ্যার]] মৌলিক গুরুত্বকেই তুলে ধরে।
[[ভূগোলবিদ|পাশ্চাত্ত্য ভূগোলবিদরা]] তাদের নিজেদের সুবিধার্থে মহাসাগরকে ৫টি অংশে বিভক্ত করেছেন। মহাসাগরীয় বিভাজনসমূহ সংজ্ঞায়িত এবং মূল্যায়িত হয়েছে - মহাদেশ, মাটির স্তর এবং অন্যান্য শর্তাবলীর আলোকে।
সেগুলো হলোঃ-
 
== মহাসাগর এবং জীবনধারা ==
[[ভূ-মণ্ডল|ভূ-মণ্ডলে]] মহাসাগরের বিপুল প্রভাব লক্ষ করা যায়। মহাসাগরীয় বাষ্পীভবন যা [[পানিচক্র|পানিচক্রের]] একটি ধাপ, তা অনেক [[বৃষ্টি|বৃষ্টিপাতের]] উৎসস্থল হিসেবে চিহ্নিত তা মহাসাগরীয় [[তাপমাত্রা]] [[জলবায়ু]] ও বাতাসের গতিপথের উপর অনেকাংশেই নির্ভরশীল। এটি ভূ-স্থিত জীবন ও জীবনধারায় বিরাট প্রভাব বিস্তার করে। মহাসাগর গঠনের ৩ বিলিয়ন বছরের মধ্যে ভূ-স্থিত জীবন গড়ে উঠে। [[উপকূল|উপকূলের]] গভীরতা এবং দূরত্ব উভয়ই বিরাটভাবে প্রভাবান্বিত করেছে বলেই সাগর উপকূলীয় এলাকায় প্রচুর পরিমাণে বিভিন্ন ধরণেরধরনের [[গাছ|গাছপালা]] জন্মেছে এবং সংশ্লিষ্ট প্রাণীকূল বসবাস করছে।
 
== দৃষ্টিগ্রাহ্য বিষয়সমূহ ==
১,৭৮,৫৭৪টি

সম্পাদনা