"উইকিপিডিয়া:উল্লেখযোগ্যতা (উচ্চশিক্ষায়তনিক ব্যক্তিত্ব)" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
* ''আরও দেখুন'': শর্ত-২ এর কিছু পয়েন্ট শর্ত-১ এ প্রযোজ্য হবে।
* শর্ত-১ পূরণের সবচেয়ে সাধারণ নিয়ম হল ঐ একাডেমিক ''[[#উদ্ধৃতির মাপকাঠি|ব্যাপকভাবে উদ্ধৃত]]'' হয়েছে এমন একাডেমিক কর্মের লেখক তা দেখানো। একাডেমিক কর্ম অধিকসংখ্যকবার উদ্ধৃত বেশকিছু পাণ্ডিত্যপূর্ণ প্রকাশনা বা উল্লেখযোগ্য সংখ্যক উদ্ধৃতি লাভকারী নির্দিষ্ট সংখ্যক পাণ্ডিত্যপূর্ণ প্রকাশনা হতে পারে। বাছাইকৃত একাডেমিক প্রকাশনায় প্রকাশিত ব্যক্তির কর্মের পর্যালোচনাকে উদ্ধৃতি লাভের পাশাপাশি বিবেচনায় আনা যাবে। বিভিন্ন একাডেমিক বিষয়ের মধ্যে উদ্ধৃতি প্রদান ও প্রকাশনার হার এবং প্রকাশনা রীতির পার্থক্য বিবেচনায় আনতে হবে।
** শর্ত-১ পূরণের জন্য উদ্ধৃতিকে পিয়ার-রিভিউ বা যৌথ-পর্যালোচনা হয়েছে এমন জার্নাল বা একাডেমিক গ্রন্থে উল্লেখ থাকতে হবে।
** কিছু একাডেমিক বিষয়ে এমন পর্যালোচনা প্রকাশনা আছে যা ভার্চুয়াল পন্থায় ঐ বিষয়ের সকল উল্লেখিত প্রকাশনাকে পর্যালোচনা করে। উদাহরণস্বরূপ, ''ম্যাথসাইনেট'' এবং ''জেনট্রালব্লাট ম্যাথ'' এর মধ্যে পড়ে। মূল কথা হল, কোনো নিবন্ধ বা বই এধরনের প্রকাশনায় পর্যালোচনা হলেই তা শর্ত-১ পূরণে যথেষ্ট নয়। তবে পর্যালোচনায়ের উপাদান এবং তাতে উল্লেখিত কোনো যাচাইমূলক মন্তব্য ব্যবহার করা যেতে পারে।
** সাধারণত, তত্ত্বীয় বিষয়ের চেয়ে পরীক্ষামূলক এবং ফলিত বিষয়ের উপর প্রকাশনা এবং উদ্ধৃতির হার বেশি থাকে। বিজ্ঞানের চেয়ে মানবিকের প্রকাশনা ও উদ্ধৃতি হার সাধারণত কম হয়ে থাকে। এছাড়াও বিজ্ঞানের ক্ষেত্রে অধিকাংশ মৌলিক গবেষণা জার্নাল এবং সন্মেলনে প্রকাশিত হয়, অন্যদিকে মানবিকের ক্ষেত্রে বই প্রকাশ হতে বেশি দেখা যায় যা অফলাইন গ্রন্থাগার ব্যবহার ছাড়া গণনা করা দুরূহ। "যথেষ্ট সংখ্যক প্রকাশনা" এবং "উচ্চ উদ্ধৃতি হার" সেভাবে ব্যাখ্যা করতে হবে যেভাবে প্রধান গবেষণা প্রতিষ্ঠান ব্যাখ্যা করে থাকে।
== উদ্ধৃতির মাপকাঠি ==
অধিকাংশ বিষয়ের ক্ষেত্রে জার্নাল নিবন্ধ অনুসন্ধানের যথার্থ পন্থা হল [[ওয়েব অব নলেজ]] এবং [[স্কোপাস]] ব্যবহার করা। তবে এগুলি খুবই ব্যয়বহুল: স্কোপাস বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয় ও বড় কলেজের লাইব্রেরীতে এবং ওয়েব অব নলেজ প্রধান বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে পাওয়া যাবে। স্কোপাসে বিজ্ঞান ও সামাজিক বিজ্ঞান অন্তর্ভুক্ত থাকে, তবে ১৯৯৬ সালের পূর্বের ক্ষেত্রে তা অসম্পূর্ণ; ওয়েব অব নলেজে ১৯০০ সাল পর্যন্ত বিজ্ঞান, ১৯৫৬ সাল পর্যন্ত সামাজিক বিজ্ঞান ও ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত মানবিক (অপূর্ণাং‌গভাবে) অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে, কিন্তু শুধুমাত্র বৃহৎ বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে তা সম্পূর্ণ সেট পাওয়া যাওয়া সম্ভব। (সৌভাগ্যবশত, সাধারণের ব্যবহারযোগ্য অতিরিক্ত সাইটেশন ইনডেক্স প্রস্তুত হচ্ছে।) অনুন্নত দেশসমূহের জন্য এসব ডাটাবেজ অনেকাংশে অসম্পূর্ণ। এছাড়া তারা শুধু জার্নাল নিবন্ধ থেকে উদ্ধৃতি তালিকাভুক্ত করে - বই বা অন্যান্য প্রকাশনায় প্রকাশিত উদ্ধৃতি অন্তর্ভুক্ত হয় না। একারণে কম্পিউটার বিজ্ঞানের মত বিষয় যেখানে কনফারেন্স বা নন-জার্নাল প্রকাশনা প্রয়োজন বা মানবিকের মত বিষয় যেখানে বইয়ের প্রকাশ বেশি গুরুত্বপূর্ণ, সেসব ক্ষেত্রে এসব ডাটাবেজ সতর্কতার সাথে ব্যবহার করতে হবে। ওয়েব অব নলেজে [http://isihighlycited.com বেশি সংখ্যায় উদ্ধৃত গবেষণার ইনডেক্স বিনামূল্যে] প্রদান করে থাকে যার কিছু উপযোগীতা থাকতে পারে। বিজ্ঞানের আলাদা আলাদা ক্ষেত্রে ম্যাথসাইনেট, সাইফাইন্ডার স্কলার ও অনুরূপ বিষয়ভিত্তিক ইনডেক্সও মূল্যবান উৎস। তবে এদের প্রাপ্যতা বিনামূল্যে না এবং সাধারণত বিশ্ববিদ্যালয় কম্পিউটার একাউন্টের প্রয়োজন হয়।
* [[গুগল স্কলার|গুগল স্কলারের]] বিষয়ে একটি সতর্কতা: সব (বা প্রায় সব) ভেনু অনলাইনে উপস্থিত থাকে এমন বিষয়ের ক্ষেত্রে গুগল স্কলার ভালো মাধ্যম। কম্পিউটার বিজ্ঞানীদের লেখা অধিকাংশ পেপার এখানে দেখা যায়, তবে প্রযুক্তিনির্ভর নয় এমন বিষয়ের ক্ষেত্রে তা নির্ভরযোগ্য না। এমনকি জার্নাল ''[[সায়েন্স (জার্নাল)|সায়েন্স]]'' ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত নিবন্ধ অনলাইনে রাখে। এছাড়া অনেক জার্নাল গুগল স্কলারকে তাদের নিবন্ধ দেখানোর অনুমতি দেয় না। বইয়ের ক্ষেত্রে গুগল স্কলারের ক্ষেত্র আংশিকভাবে গুগল বই অনুসন্ধানের মাধ্যমে হয়ে থাকে এবং প্রকাশকের অনুমতি ও নিয়মকানুন দ্বারা খুব বেশি প্রভাবিত হয়। একারণে গুগল স্কলারে সূত্রের অনুপস্থিতি অনুল্লেখযোগ্যতার কারণ হিসেবে ব্যবহার করা উচিত নয়। অন্যদিকে পিয়ার-পর্যালোচনারিভিউ হয়নি এমন সূত্র গুগল স্কলারে অন্তর্ভুক্ত হয় যেমন একাডেমিক ওয়েমসাইট এবং অন্যান্য স্বপ্রকাশিত উৎস। একারণে, কখনো কখনো সেখানে প্রাপ্ত উদ্ধৃতি সত্যিকার অর্থে নির্ভরযোগ্য গবেষণামূলক প্রমাণাদি থেকে প্রাপ্ত প্রকৃত উদ্ধৃতির চেয়ে অনেক বেশি হতে পারে।
* [[পাবমেড|পাবমেডের]] ব্যাপারে একটি সতর্কতা: [[পাবমেড|পাবমেডের]] অংশ হিসেবে ব্যবহৃত [[মেডলাইন]] ১৯৬৭ সালের পরের ও কিছু ক্ষেত্রে পূর্বের জীববিজ্ঞান এবং চিকিৎসার বিষয়াদি অন্তর্ভুক্ত করে। চিকিৎসার সাথে সম্পর্কিত হলেও সম্পূর্ণ এই বিষয়ের নয় এমন কিছু জার্নাল এর অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এছাড়াও পাবমেডের সকল নিবন্ধ পিয়ার-পর্যালোচনাডরিভিউ জার্নাল থেকে উদ্ধৃত নয়। এতে বিভিন্ন মানের চিকিৎসা সংবাদ সূত্র অন্তর্ভুক্ত করা হয়, এর মধ্যে তাদের অন্তর্ভুক্ত পিয়ার-পর্যালোচনাডরিভিউড জার্নালের উপাদান রয়েছে।
* "সম্পর্কিত নিবন্ধ" বিষয়ে একটি সতর্কতা: পাবমেড ও অন্যান্য অধিকাংশ ডাটাবেজে "সম্পর্কিত নিবন্ধ" ("রিলেটেড আর্টিকেল") বলতে যেখানে মৌলিক উদ্ধৃতি থাকে সর্বদা তেমন নিবন্ধকে বোঝানো হয় না। এসব মূলত একই সাধারণ বিষয়ের উপর লিখিত নিবন্ধ যা সাধারণত শিরোনামের শব্দ বা সাধারণ উদ্ধৃতির মাধ্যমে নির্বাচিত হয়। কিছু ক্ষেত্রে মৌলিক উদ্ধৃতি থাকতে পারে। সে বিষয়ের অতিরিক্ত পেপার অনুসন্ধানের জন্য এসব কার্যকরী। এসব ক্ষেত্রে (যেমন পাবমেড) উদ্ধৃতি গণনার একমাত্র উপায় হল সংশ্লিষ্ট নিবন্ধ প্রকাশের পরবর্তী সময়ে প্রকাশিত সম্পর্কিত নিবন্ধসমূহের প্রত্যেকটিতে দৃষ্টি দেয়া, তাদের "উদ্ধৃতি নিবন্ধ" অংশে অনুসন্ধান করে দেখা যে তা সেখানে রয়েছে কিনা। (বেশ কিছু কারণে কিছু পাবমেড রেকর্ডে উদ্ধৃত নিবন্ধের তালিকা থাকে না।) এধরনের তালিকাভুক্তি সকল উদ্ধৃতি অন্তর্ভুক্ত করে না। – [http://www.ncbi.nlm.nih.gov/entrez/query.fcgi?cmd=Search&db=books&doptcmdl=GenBookHL&term=%22related+articles%22+AND+helppubmed%5Bbook%5D+AND+404127%5Buid%5D&rid=helppubmed.section.pubmedhelp.Searching_PubMed#pubmedhelp.Finding_articles_rel|PubMed "সম্পর্কিত নিবন্ধ" বিষয়ের জন্য সাহায্য (ইংরেজি)]
* শর্ত-১ পূরণ হচ্ছে কিনা তা যাচাইয়ের ক্ষেত্রে উদ্ধৃতি সক্ষমতা যাচাইয়ের মাপকাঠি যেমন [[এইচ-ইনডেক্স]], [[জি-ইনডেক্স]] ইত্যাদির ব্যবহারযোগ্যতা সীমাবদ্ধ থাকে। এক্ষেত্রে সতর্কতার সাথে অগ্রসর হতে হবে কারণ তাদের নির্ভরযোগ্যতা বর্তমানে সম্পূর্ণ গৃহিত নয়, এবং ব্যবহৃত উদ্ধৃতি ডাটাবেজের উপর অনেকাংশে নির্ভরশীল হতে পারে। এসব বিষয় নির্ভর; কিছু বিষয়ের ক্ষেত্রে অন্য বিষয়ের চেয়ে বেশি সংখ্যক উদ্ধৃতি পাওয়া যায়।