বার্নাট মেত্‌জে ( কাতালান: Bernat Metge, কাতালান উচ্চারণ: [bərˈnat ˈmedʒə]; আনু. ১৩৪০ – ১৪১৩) একজন কাতালান মানবতাবাদী লেখক এবং অনুবাদক। তার লেখা লো সোম্‌নির (১৩৯৯) এর জন্য তিনি সর্বাধিক পরিচিত ও জনপ্রিয়। তিনি কাতালান সাহিত্যজগতের প্রথম মানবতাবাদী লেখক। চৌদ্দ শতকের শ্রেষ্ঠ কাতালান গদ্যকার তিনি।[১] তার বুদ্ধিমত্তাপূর্ণ এবং বিদ্রুপাত্মক লেখনী প্রকারান্তরে কাতালান নবজাগরণের সূচনা করে।[১]

আরাগনের প্রথম জেমসের সভায় তার এক বিশেষ স্থান ছিল এবং কিছু সমস্যার সম্মুখীন হলেও আরাগনের মার্টির পক্ষেও তিনি কাজও করেন।[২]

প্রভেন্স, পেট্র্যার্খ এবং দে ভেতুলা প্রভৃতি কর্তৃক তিনি প্রভাবিত ছিলেন। ওভিড এবং রিচার্ড দে ফার্নিভাল - এদের কর্তৃকও তিনি প্রভাবিত ছিলেন।[৩]

সাহিত্যজীবনসম্পাদনা

তিনি কাতালান সাহিত্যে নবজাগরণের সূত্রপাত করেন। তার বহুমুখী লেখা অনেকটা পঞ্চদশ শতক ছাপিয়ে গিয়েছিল, চৌদ্দ শতকের লেখনীর ধাঁচ থেকে যা ছিল সম্পূর্ণ ভিন্ন। এই কারণে তাকে উদ্ভাবকও বলা হয়। লাল, ভিসেন্টে ফেরের, অ্যান্টনিও ক্যানালেস বা এইক্সিমিনিস প্রমুখ সমসাময়িকদের সাথে লেখার উপাদানের আদান-প্রদান সত্ত্বেও তার লেখনী যেন এক অন্য ধরাণার ছিল।[১]

প্রথমদিককার সাহিত্য এবং অনুবাদসম্পাদনা

তার প্রথমদিকের কাজগুলোর মধ্যে আছে বুক অব ফরচুন অ্যান্ড প্রুডেন্স (১৩৮১), সার্মন হিউমোরাস প্যারোডি এবং ওভিডের দ্বিতীয় লাতিন কবিতার বই দ্য ভেতুলার অনুবাদ।

১৩৮১ সালে বার্নাট মেত্‌জে দ্য বুক অব ফরচুন অ্যান্ড উইসডম বইটি রচনা করেন। এটি এক ধরনের রূপক কবিতা ছিল যার প্রথম আট পদ্যাংশ মধ্যযুগীয় অনুবাদের মতন করে ঐশ্বরিক দূরদর্শিতার উপর প্রশ্ন করে। এখানে রূপকভাবেই ভাগ্য নামের দ্বীপে গিয়ে তিনি জানতে পারেন যে সৃষ্টিকর্তা দুর্ভাগ্যকে পাঠান এক ধরনের পরীক্ষা হিসেবে, যা মানুষের নিরীহতা এবং গুণাবলীকে বের করে আনে।

তিনি ডেকামেরনের শেষ উপন্যাস ওয়াল্টার অ্যান্ড গ্রীসিল্ডার অনুবাদও করেছিলেন। এটি ছিল মধ্যযুগীয় সাহিত্যের অন্যতম সেরা কাজ, যদিও বার্নাট মেত্‌জে দ্য গ্রীসিল্ডার লাতিন অনুবাদ পেট্র্যার্খ থেকে অনুবাদ করেছিলেন। তিনিই প্রথম কাতালান হিসেবে এর অনুবাদ করেন।[১]

সাহিত্যকর্মসম্পাদনা

 
লো সোমনি (১৮৯১) গ্রন্থের প্রচ্ছদ।
  • লিব্রে দে ফর্চুনা ই প্রুডেন্সিয়া (১৩৮১)
  • ওভিডি এনামোরাট
  • ভ্যাল্টার ই গ্রিসিল্ডা (১৩৮৮)
  • অ্যাপোলোজিয়া (১৩৯৫)
  • লো সোম্‌নি (১৩৯৯)

লো সোম্‌নিসম্পাদনা

তার শ্রেষ্ঠ কাজ ছিল ১৩৯৯ সালে লেখা লো সোম্‌নি (বাংলা ভাষায় অর্থঃ স্বপ্ন)।[১] জেল থেকে ছাড়া পাবার অল্পকিছুকাল পরেই তিনি এর রচনা করেন।[১] এখানে প্রথম জনের প্রায়শ্চিত্তমূলক কাহিনী বিধৃত হয়েছে।[১]

এখানে স্বপ্নের মধ্যেই একজন চিকিৎসক লেখক এবং প্রথম জনের ভূতের মধ্যে কথা বলেন। মূলত উত্তম পুরুষে লেখা এই গ্রন্থে চিকিৎসক প্রথম কাতালান ধর্মনিরপেক্ষ বুদ্ধিজীবীদের প্রতিনিধিত্ব করেন যারা ব্যক্তিগত সম্মানরক্ষার জন্য লিখে থাকেন।[১]

অপরাধজগতের বর্ণনায় এখানে দান্তের বিবরণ ব্যবহৃত হয়েছে এবং সেইসাথে পশ্চিমা বিভেদের প্রতি উদ্বিগ্ন চিন্তা প্রকাশিত হয়েছেন। কারণ এখানে বলা হয় যে ক্রিস্টেন্ডমের রাজারা বিভেদের শুরু থেকে এই বিষয়ে কোন প্রকার ভাবনা-চিন্তা করেননি। তাই পরবর্তীকালে আরাগনের প্রথম জেমস এবং পিটারকে এই সমস্যার শেষ পর্যন্ত প্রায়শ্চিত্ত করে যেতে হয়েছে।[১]

টীকাসম্পাদনা

  1. "Bernat Metge"। সংগ্রহের তারিখ ২০ মে ২০১৩ 
  2. Associació d'Escriptors en Llengua Catalana (n.d.); Molla (n.d.)
  3. গিলাবার্ট ১৯৯৩: ১০৮৩.

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  • Associació d'Escriptors en Llengua Catalana (n.d.)। "Bernat Metge [Biografia]"Autors i autores (কাতালান ভাষায়)। Barcelona: AELC। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৯-২৮ 
  • Gilabert, Joan (১৯৯৩)। "Bernat Metge"। Germán Bleiberg, Maureen Ihrie, and Janet Pérez (eds.)। Dictionary of the Literature of the Iberian Peninsula: volume 2, L-Z। Westport, CT: Greenwood Publishing। পৃষ্ঠা 1082–1083। আইএসবিএন 0-313-28732-5ওসিএলসি 20993644 
  • Molla, Guillem (n.d.)। "Bernat Metge [English biography]"Autors i autores। Barcelona: AELC। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৯-২৮ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা