ফুলুরি হাঁস

পাখির প্রজাতি

ফুলুরি হাঁস (বৈজ্ঞানিক নাম: Anas falcata) বা শিখাবিশিষ্ট হাঁস Anatidae (অ্যানাটিডি) গোত্র বা পরিবারের অন্তর্গত Anas (অ্যানাস) গণের অন্তর্ভুক্ত এক প্রজাতির পরিযায়ী হাঁস।[২][৩] পাখিটি বাংলাদেশ, ভারত ছাড়াও এশিয়ার বিভিন্ন দেশে দেখা যায়। ফুলুরি হাঁসের বৈজ্ঞানিক নামের অর্থ কাস্তের মত পলাকবিশিষ্ট হাঁস (লাতিন: anas = হাঁস; falcatus = কাস্তের মত)।[৩] সারা পৃথিবীতে এক বিশাল এলাকা জুড়ে এরা বিস্তৃত, প্রায় ৩৫ লক্ষ ৫০ হাজার বর্গ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে এদের আবাস।[৪] বিগত কয়েক দশক ধরে এদের সংখ্যা ক্রমেই কমছে, তবে এখনও আশঙ্কাজনক পর্যায়ে যেয়ে পৌঁছেনি। সেকারণে আই. ইউ. সি. এন. এই প্রজাতিটিকে ন্যূনতম বিপদগ্রস্ত বলে ঘোষণা করেছে।[১] বাংলাদেশের বন্যপ্রাণী আইনে এই প্রজাতিটি সংরক্ষিত।[৩]

ফুলুরি হাঁস
Anas falcata
Anas falcata male.JPG
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: প্রাণী জগৎ
পর্ব: কর্ডাটা
শ্রেণী: পক্ষী
বর্গ: Anseriformes
পরিবার: Anatidae
উপপরিবার: Anatinae
গণ: Anas
প্রজাতি: A. falcata
দ্বিপদী নাম
Anas falcata
Georgi, 1775
Anas falcata

ফুলুরি হাঁস দলবদ্ধভাবে বসবাস করে এবং অপ্রজননকালীন মৌসুমে বিশাল বিশাল দলে বিচরণ করে। বড় সংরক্ষিত জলাশয়ে এদের সহজে দেখা যায়। উদ্ভিদ বীজ ও ছোছ ছোট জলজ জীব এদের প্রধান খাদ্য। পিয়াং হাঁস আর ইউরেশীয় সিঁথিহাঁস এর নিকটতম আত্মীয়।[৫]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. BirdLife International (2012). Anas falcata. In: IUCN 2012. IUCN Red List of Threatened Species. Version 2012.2.
  2. রেজা খান (২০০৮)। বাংলাদেশের পাখি। ঢাকা: বাংলা একাডেমী। পৃষ্ঠা ৩৩১। আইএসবিএন 9840746901 
  3. জিয়া উদ্দিন আহমেদ (সম্পা.) (২০০৯)। বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষ: পাখি, খণ্ড: ২৬। ঢাকা: বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি। পৃষ্ঠা ২৪–৫। 
  4. "Anas falcata"BirdLife International। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৯-১৮ 
  5. Johnson, Kevin P (১৯৯৯)। "Phylogeny and biogeography of dabbling ducks (genus: Anas): A comparison of molecular and morphological evidence" (PDF)The Auk116 (3): 792–805। ডিওআই:10.2307/4089339  অজানা প্যারামিটার |coauthors= উপেক্ষা করা হয়েছে (|author= ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে) (সাহায্য); অজানা প্যারামিটার |month= উপেক্ষা করা হয়েছে (সাহায্য)

বহিঃসংযোগসম্পাদনা