প্রধান মেনু খুলুন

ফাল্গুনী মুখোপাধ্যায়

বাঙালি লেখক

ফাল্গুনী মুখোপাধ্যায় (৭ মার্চ, ১৯০৪ - ২৫ এপ্রিল, ১৯৭৫) ছিলেন একজন খ্যাতনামা বাঙালি লেখক, ঔপন্যাসিকসম্পাদক। এটি তার ছদ্মনাম। তার আসল নাম তারাপদ। তার বিখ্যাত উপন্যাস চিতা বহ্নিমান ও শাপমোচন। এই দুটি উপন্যাস তার পাঠক সৃষ্টিতে বড় ভূমিকা রেখেছে।[১]

ফাল্গুনী মুখোপাধ্যায়
জন্মতারাদাস
(১৯০৪-০৩-০৭)৭ মার্চ ১৯০৪
নাকড়াকোন্দা, খয়রাশোল, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত
মৃত্যু২৫ এপ্রিল ১৯৭৫(1975-04-25) (বয়স ৭১)
পেশালেখক, কবি, ঔপন্যাসিক, সম্পাদক
ভাষাবাংলা
উল্লেখযোগ্য রচনাবলিচিতা বহ্নিমান
শাপমোচন

প্রাথমিক জীবনসম্পাদনা

ফাল্গুনী মুখোপাধ্যায় ১৯০৪ সালের ৭ মার্চ ভারতের পশ্চিমবঙ্গের খয়রাশোলের নাকড়াকোন্দা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার নামে ২০০৭ সালে এই গ্রামের একটি পাড়ার নামকরণ করা হয় 'ফাল্গুনী পল্লি'।[২]

সাহিত্যজীবনসম্পাদনা

তিনি ছিলেন বঙ্গলক্ষী মাসিকপত্রের সম্পাদক। সেখান থেকেই তার সাহিত্য জীবন শুরু হয়।[১] তার রচিত অন্যতম এবং বহুপঠিত দুটি উপন্যাস চিতা বহ্নিমানশাপমোচন[৩] ১৯৫৫ সালে শাপমোচন উপন্যাস অবলম্বনে কোলকাতার পরিচালক সুধীর মুখার্জি উত্তম কুমার-সুচিত্রা সেন জুটিকে নিয়ে একই নামে একটি চলচ্চিত্র নির্মাণ করেন।[৪][৫] এছাড়া ২০০৯ সালে দুর্গা পূজা উপলক্ষ্যে বাংলাদেশী নাট্য নির্মাতা এসএম দুলাল একই নামে একটি টেলিফিল্ম নির্মাণ করেন। আহসান হাবীব নাসিম ও মেহবুবা মাহনুর চাঁদনী অভিনীত টেলিফিল্মটি এনটিভিতে প্রচারিত হয়।[৬] তার অন্যান্য উপন্যাসগুলোর মধ্যে আকাশ বনানী জাগে, আশার ছলনে ভুলি, বহ্নিকন্যা, ভাগীরথী বহে ধীরে, মন ও ময়ূরী, জলে জাগে ঢেউ, মীরার বধূয়া, স্বাক্ষর, চরণ দিলাম রাঙায়ে উল্লেখযোগ্য। এছাড়া প্রকাশিত হয় তার রচিত দুটি কাব্যগ্রন্থ হিঙ্গুল নদীর কূলেকাশবনের কন্যা[১]

গ্রন্থতালিকাসম্পাদনা

উপন্যাস

  • চিতা বহ্নিমান
  • শাপমোচন
  • আকাশ বনানী জাগে (১৯৪৩)
  • আশার ছলনে ভুলি (১৯৫০)
  • বহ্নিকন্যা (১৯৫১)
  • ভাগীরথী বহে ধীরে (১৯৫১)
  • মন ও ময়ূরী (১৯৫২)
  • জলে জাগে ঢেউ (১৯৫৪)
  • মীরার বধূয়া (১৯৫৬)
  • স্বাক্ষর (১৯৫৭)
  • চরণ দিলাম রাঙায়ে (১৯৬৬)
  • বধূ
  • ফুলশয্যার রাত
  • ফাল্গুনী অমনিবাস
  • শ্রেষ্ঠ উপন্যাস সমগ্র

কাব্যগ্রন্থ

  • হিঙ্গুল নদীর কূলে (১৯৩৫)
  • কাশবনের কন্যা (১৯৩৮)

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Falguni Mukhopadhyay - ফাল্গুনী মুখোপাধ্যায়"গুডরিডস। সংগ্রহের তারিখ ২৫ অক্টোবর ২০১৬ 
  2. দয়াল সেনগুপ্ত (৪ অক্টোবর ২০১৬)। "একুশ হাতেই মজেছে গাঁ"আনন্দবাজার পত্রিকা। সংগ্রহের তারিখ ২৫ অক্টোবর ২০১৬ 
  3. সমরেশ মজুমদার (১ জুন ২০১০)। "'কালবেলা', 'কালপুরুষ' দিয়ে আমার পাঠক তৈরি হয়েছে"দৈনিক সমকাল। সংগ্রহের তারিখ ২৫ অক্টোবর ২০১৬ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  4. চ্যাটার্জি, সোমা (২০১৫)। Suchitra Sen: The Legend and the Enigma। ভারত: হারপার কলিনস পাবলিশার্স। 
  5. রাসেল পারভেজ (১৭ জানুয়ারি ২০১৪)। "চিরদিনের সুচিত্রা"রাইজিংবিডি। সংগ্রহের তারিখ ২৫ অক্টোবর ২০১৬ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  6. "Puja Special - Tele-film Shapmochon on ntv"দ্য ডেইলি স্টার। সেপ্টেম্বর ২৮, ২০০৯। সংগ্রহের তারিখ ২৫ অক্টোবর ২০১৬ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা