প্রধান মেনু খুলুন
A dark gray and red sphere representing the scorched Earth lies against a black background to the right of an orange circular object representing the Sun
সূর্য লোহিত দানব পর্যায়ে আসার পর ঝলসিত পৃথিবীর চিত্র, এখন থেকে প্রায় ৭ বিলিয়ন বছর পূর্বে।

পৃথিবীর জৈবিক ও ভূতাত্ত্বিক ভবিষ্যৎ কি হবে তা কিছু দীর্ঘমেয়াদি প্রভাবের উপর ভিত্তি করে নির্ণয় করা যেতে পারে। এর মধ্যে রয়েছে পৃথিবী পৃষ্ঠের রসায়ন, গ্রহের অভ্যন্তরের শীতলীকরণের হার, সৌরজগতের অন্যান্য বস্তুর সাথে মহাকর্ষীয় মিথস্ক্রিয়া এবং সৌর দীপ্তির ক্রম বৃদ্ধি। এই ভবিষ্যৎ নির্ণয়ে একটি অনিশ্চিত বিষয় হল মানব সৃষ্ট প্রযুক্তির চলমান প্রভাব, যেমন জলবায়ু প্রকৌশল, যা গ্রহটিতে ব্যাপক পরিবর্তন সাধন করতে পারে। বর্তমান প্রযুক্তির কারণে[১] হোলসিন বিলুপ্তি হচ্ছে এবং এর প্রভাব পাঁচ মিলিয়ন বছর পর্যন্ত স্থায়ী হতে পারে।[২] প্রযুক্তি মানবতার বিলুপ্তির কারণ হতে পারে, যা ধীরে ধীরে ধীরগতি সম্পন্ন বিবর্তনীয় গতিতে ফিরে যাবে এবং তা সম্পূর্ণ দীর্ঘমেয়াদী প্রাকৃতিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ঘটবে।

পরিণতিসম্পাদনা

মহাবিশ্ব সম্প্রসারণশীল বা প্রসারণশীল। এই মহাবিশ্ব কি চিরকালই সম্প্রসারিত হতে থাকব? এটা নির্ভর করে মহাবিশ্বে কি পরিমাণ পদার্থ রয়েছে এবং কত দ্রুত তা প্রসারিত হচ্ছে। মহাবিশ্বের পরিণতি সম্পর্কে তিন রকমের ধারণা করা যায়।

  • মহাবিশ্বের গড় ঘনত্ব যদি এর নির্দষ্ট সংকট ঘনত্ব যা প্রসারন হারের কার্যাপেক্ষকের চেয়ে ছোট হয় তাহলে মহাবিশ্ব উন্মক্ত এবং প্রসারণ কখনোই থামবে না। এর ফলে নতুন কোন গ্যালারি বা নক্ষত্র সৃষ্টি হবে না। এবং বর্তমানে থাকা গ্যালাক্সি ও নক্ষত্রগুলো কৃষ্ণ বামন, নিউট্রন নক্ষত্র এবং কৃষ্ণ বিবর হিসাবে শেষ হয়ে যাবে এবং শীতল মৃত্য ঘটবে।
  • যদি নির্দিষ্ট সংকট ঘনত্বর চেয়ে মহাবিশ্বের গড় ঘনত্ব বড় হয় তাহলে মহাবিশ্ব হবে আবদ্ধ এবং সাথে সাথে বা কিছুকাল পরে মহাকর্ষ প্রসারণ থামিয়ে দিবে। এর ফলে মহাবিশ্ব সংকুচিত হতে শুরু করবে। ঘটনার পরম্পরায় হবে মহাবিস্ফরণের পরে যা যা ঘটেছিল তার বীপরিত এর ফলে কড় কড় মড় মড় শব্দে ভেঙ্গে এক চরম সন্ধিক্ষণ উপস্থিত হবে এবং মহাবিশ্বের অগ্নিগর্ভের মৃত্য হবে। এরপর অন্য একটি মহাবিস্ফরণ কি ঘটবে? যদি ঘটে তাহলে মহাবিশ্বের শুরু ও শেষ হবে চক্রাকার-যার কোন শুরু বা শেষ নাই।
  • যদি মহাবিশ্বের ঘনত্ব ও নির্দিষ্ট সংকট ঘনত্ব সমাণ হয় তাহলে প্রসারণ চির ক্রমহাসমান হয়ে চলতে থাকবে কিন্তু মহাবিম্ব সংকুচিত হবে না । এক্ষেত্রে মহাবিশ্বের স্থানের জ্যামিতির কারণে মহাবিশ্বকে চ্যাপ্টা বা সমতল বলা যায়। যদি মহাবিশ্বের ঘনত্ব থেকে নির্দিষ্ট সংকট ঘনত্ব বড় হয় তাহলে মহাবিশ্বের স্থান হবে ঋণাত্বকবাবে বক্র যার দ্বিমাত্রিক সাদৃশ্য হলো জিন বা পর্যান (saddle) যদি মহাবিশ্বের ঘনত্ব থেকে নির্দিষ্ট সংকট ঘনত্ব ছোট হয় তাহলে মহাবিশ্ব হবে ধনাত্বকভাবে এবং বক্র যার দ্বিমাত্রিক সাদৃশ্য হবে কোন গোলকের পৃষ্ঠ। সকল ক্ষেত্রে স্থানকাল হবে বক্র।

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Myers 2000, পৃ. 63–70।
  2. Reaka-Kudla, Wilson এবং Wilson 1997, পৃ. 132–33।

বহিঃসংযোগসম্পাদনা